Saturday, December 3, 2022
বাড়িখেলারোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জিতল নেদারল্যান্ডস

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জিতল নেদারল্যান্ডস

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, আগরতলা,১৭ অক্টোবর: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাথমিক পর্বে ‘এ’ গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে রোববার নেদারল্যান্ডসের জয় ৩ উইকেটে। আমিরাতের ১১১ রান ১ বল বাকি থাকতে পেরিয়ে যায় তারা।ডাচদের দ্রুত কয়েকটি উইকেট তুলে নিয়ে এক পর্যায়ে জয়ের সম্ভাবনা জাগায় টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে মিলিয়ে ৭ বছর পর বৈশ্বিক আসরে ফেরা আমিরাত। কিন্তু সপ্তম উইকেটে ২৭ রানের ছোট তবে গুরুত্বপূর্ণ জুটি গড়ে তাদের সেই স্বপ্ন ভেঙে দেন ডাচ অধিনায়ক স্কট এডওয়ার্ডস ও টিম প্রিঙ্গেল।শূন্য রানেই এই জুটি ভাঙার সুযোগ অবশ্য পেয়েছিল আমিরাত। কিন্তু প্রিঙ্গেলের সহজ ক্যাচ ছেড়ে বিপদ ডেকে আনেন অধিনায়ক সিপি রিজওয়ান।টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ১৯ রানে ৩ উইকেট নেওয়া বাস ডে লেডে পরে তিনে নেমে ১৪ রান করে জিতে নেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।ভিক্টোরিয়ার জিলংয়ের কঠিন উইকেটে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা আমিরাতের শুরুটা ছিল মন্থর। প্রথম ৩ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে স্রেফ ৬ রান তোলে তারা!লোগান ফন বিককে টানা দুই ছক্কায় উড়িয়ে ডান মেলার আভাস দিয়ে আবারও খোলসে ঢুকে যান মুহাম্মদ ওয়াসিম। চিরাগ সুরি প্রথম বাউন্ডারির দেখা পান ১৫তম বলে। দুই ওপেনার পাওয়ার প্লেতে তোলেন ৩১ রান।

সপ্তম ওভারে রুলফ ফন ডার মেরওয়াকে সুইচ হিট খেলার চেষ্টায় কট বিহাইন্ড হয়ে যান চিরাগ। মুখোমুখি হওয়া দ্বিতীয় বলে ছক্কায় ওড়ান কাশিফ দাউদ।পরের ওভারে আরেকটি উইকেট নিতে পারত ডাচরা। কিন্তু থার্ডম্যানে ১৮ রানে ওয়াসিমের ক্যাচ ছাড়েন বিক্রমজিত সিং। কয়েক ওভার পর কাশিফকে বোল্ড করে দেন প্রিঙ্গল।ওই দুই ছক্কার ২৪ বল পর বাউন্ডারির দেখা পান ওয়াসিম। ষোড়শ ওভারে তার ৪৭ বলে ওই তিন বাউন্ডারিতে ৪১ রানের ইনিংস থামান ফ্রেড ক্লাসেন। এই পেসার পরের ওভারে ফেরান সবচেয়ে কম বয়সে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার রেকর্ড গড়া আয়ান খানকে (১৬ বছর ৩৩৫ দিন)।১৯তম ওভারে তিন উইকেট তুলে নিয়ে আমিরাতকে অল্পতে আটকে রাখতে বড় ভূমিকা রাখেন ডে লেডে।রান তাড়ায় প্রথম ওভারে টানা দুই চারে ভালো কিছুর আভাস দেন বিক্রমজিত। কিন্তু বাসিল হামিদকে স্লগ করতে গিয়ে পরের ওভারেই বোল্ড হন তিনি।মাক্স ও’ডাওডের ব্যাটে দ্রুত বাড়তে থাকে ডাচদের রান। ১ ছক্কা ও ৩ চারে ২৩ রান করা ওপেনারকে ষষ্ঠ ওভারে বোল্ড করে দেন জুনাইদ সিদ্দিক।ব্যর্থ হন ডে লেডে, কলিন আকারম্যান। তবে তখনও জয়ের পাল্লা ভারি ছিল নেদারল্যান্ডসের দিকেই। চতুর্দশ ওভারে জোড়া শিকার ধরে আমিরাতকে ম্যাচে ফেরান জুনাইদ।টম কুপারকে এলবিডব্লিউ করার পর দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে এই পেসার বোল্ড করে দেন মেরওয়াকে। ওই ওভারেই বেঁচে যান প্রিঙ্গল।শেষ ৩৬ বলে ৩৫ রানের সমীকরণ মেলানোর পথে নেদারল্যান্ডকে ঠাণ্ডা মাথায় এগিয়ে নেন প্রিঙ্গল ও এডওয়ার্ডস। প্রিঙ্গল ফিরলেও দলের জয় সঙ্গে নিয়ে মাঠ ছাড়েন এডওয়ার্ডস।এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে ২ নম্বরে উঠে এলো নেদারল্যান্ডস। রান রেটে তাদের পেছনে ফেলে শীর্ষে নামিবিয়া। উদ্বোধনী দিনের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে অঘটন ঘটায় দলটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

সংযুক্ত আরব আমিরাত: ২০ ওভারে ১১১/৮ (চিরাগ ১২, ওয়াসিম ৪১, কাশিফ ১৫, ভিত্রিয়া ১৮, জাওয়ার ২, বাসিল ৪, রিজওয়ান ১, আয়ান ৫, কার্তিক ০*, জুনাইদ ০*; ক্লাসেন ৪-০-১৩-২, প্রিঙ্গেল ৪-০-৩-১, ফন বিক ২-০-১৯-০, ডে লেডে ৩-০-১৯-৩, ফন মেকেরেন ৪-০-২১-০, ফন ডার মেরওয়া ৩-০-১৯-১)

নেদারল্যান্ডস: ১৯.৫ ওভারে ১১২/৭ (বিক্রমজিত ১০, ও’ডাওড ২৩, ডে লেডে ১৪, আকারম্যান ১৭, কুপার ৮, এডওয়ার্ডস ১৬*, ফন ডার মেরওয়া ০, প্রিঙ্গেল ১৫, ফন বিক ৪*; জুনাইদ ৪-০-২৪-৩, বাসিল ১-০-৭-১, আয়ান ৩-০-১৫-১, কার্তিক ৪-০-২২-১, জহুর ৪-০-১১-১, জাওয়ার ২.৫-০-২৪-০, কাশিফ ১-০-৫-০)

ফল: নেদারল্যান্ডস ৩ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: বাস ডে লেডে

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য