Wednesday, October 20, 2021
বাড়িজাতীয়ডিমা হাসাওয়ে নিম্ন কপিলি জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের ভূমিপূজন ও দু-লাইন হাইওয়ে নির্মাণের সূচনা...

ডিমা হাসাওয়ে নিম্ন কপিলি জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের ভূমিপূজন ও দু-লাইন হাইওয়ে নির্মাণের সূচনা নির্মলা সীতারমণের

উমরাংসো (অসম), ৭ অক্টোবর (হি.স.) : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা সহ বহুজনকে সঙ্গে নিয়ে রাজ্যের অন্যতম পাহাড়ি জেলা ডিমা হাসাও জেলায় দু-দুটি প্রসল্পের শিলান্যাস করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। প্রথমে জেলার শিল্পনগরী হিসেবে পরিচিত উমরাংসোর লংকু নিম্ন কপিলি জল বিদ্যুৎ প্রকল্প (হাইড্রো ইলেকট্রিক প্রজেক্ট)-এর ভূমিপূজন করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা।

 তার পর দিয়ুংমুখে হাফলং তিনআলি থেকে লোয়ার হাফলং পর্যন্ত ৯০ কিলোমিটার দু-লাইন হাইওয়ে সড়ক নির্মাণের শিলান্যাস করেন তিনি।আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় দিল্লি থেকে গুয়াহাটি বরঝাড়ে গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন নির্মলা। গুয়াহাটি বিমানবন্দর থেকে বায়ুসেনার হেলিকপ্টারে এদিন সকাল প্রায় ১১টা নাগাদ উমরাংসোর লংকুতে অবতরণ করে এখানে আসাম পাওয়ার জেনারেশন কর্পোরেশন লিমিটেডে (এপিজিসিএল)-এর অধীনে নতুন ১২০ মেগাওয়াট নিম্ন কপিলি জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের ভূমিপূজন করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সমাবেশে নির্মলা সীতারমণ বলেন, প্রকল্পটি এই অঞ্চলের উন্নয়ন তরান্বিত করতে অনেক সহায়ক হবে। প্রথমবার এই অঞ্চলে এসে তিনি অনেক আনন্দ অনুভব করছেন।
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্র্ মোদী উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে উন্নয়নের শিখরে নিয়ে যেতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মোদীজির স্বপ্ন সাকার করতে অসম সরকার অক্লান্ত প্রয়াস জারি রেখেছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের সাহায্যে পাহাড়ি জেলা উন্নয়নের ক্ষেত্রে অনেক দূর এগিয়ে যাবে বলে দাবি করেন নির্মলা সীতারমণ।
এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী ড. হিমন্তবিশ্ব শর্মা ছাড়াও ছিলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অজন্তা নেওগ, বিদ্যুৎমন্ত্রী বিমল বরা, উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত পরিষদের মুখ্য কার্যনির্বাহী সদস্য দেবোলাল গারলোসা, পার্বত্য পরিষদের চেয়ারপার্সন রাণু লাংথাসা, কারবি আংলং স্বশাসিত পরিষদের মুখ্য কার্যনির্বাহী সদস্য তুলিরাম রংহাং প্রমুখ।প্রসঙ্গত, কপিলি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প (হাইড্রো ইলেকট্রিক প্রজেক্ট)-এর জন্য ২,২০০ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এই টাকার মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার দেবে ১,৭০০ টাকা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য