Tuesday, July 23, 2024
বাড়িরাজ্যমহিলার শ্লীলতাহানির প্রতিবাদের থানা ঘেরাও করলো গ্রামবাসী

মহিলার শ্লীলতাহানির প্রতিবাদের থানা ঘেরাও করলো গ্রামবাসী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৫ জুন : পানিসাগর মহকুমার পেকুছড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় দুই শতাধিক মানুষ থানা ঘেরাও করে পানিসাগর থানায় ডেপুটেশন দিল। তাদের দাবি অভিযুক্ত চারজনকে অতিসত্বর পুলিশ গ্রেপ্তার করতে হবে, না হলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, জমি এবং গবাদি পশু নিয়ে এক মহিলার সাথে রফিক উদ্দিন, শামসুদ্দিন ইসলাম উদ্দিন এবং জালালুদ্দিনের একটা বিবাদ চলছিল।

 ১১ জুন সাড়ে চারটায় তারা সেই মহিলা ছাগল নিয়ে যাওয়ার সময় প্রচন্ড মারধর করে এবং শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। তখন সেই মহিলার চিৎকারে তার স্বামী তাকে বাঁচাতে আসে। তখন অভিযুক্তরা তার স্বামীকেও মারধর করে। এদিকে ঘটনার দিন আক্রান্ত মহিলা থানাতে আসার আগেই তাদের নামে পানিসাগর থানায় অভিযুক্তরা একটি মামলা দায়ের করে। এই মামলাকে ভিত্তি ধরে পানিসাগর থানার পুলিশ সেই মহিলা ও মহিলার স্বামী বাড়িতে যাওয়ার আগেই তাদেরকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। জানা যায় আব্দুল সুফীন ধর্মনগর কোর্টে পাঠালে জামিনে ছাড়া পায়। পানিসাগর থানায় তাদের অভিযোগ নিয়ে গেলে পানিসাগর থানা এই অভিযোগ রাখতে অস্বীকার জানায়।

পরবর্তী সময় সেই মহিলা ও তার স্বামী অভিযুক্ত চারজনের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলা দায়ের করেন। শনিবার পানিসাগর মহকুমার পেকুছড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ২ নং ওয়ার্ডের প্রায় দুই শতাধিক মানুষ সঠিক বিচার চেয়ে পানিসাগর থানা ঘেরাও করে। তারা জানায় গ্রামের নয়জনের প্রতিনিধি দল অভিযুক্তদের বাড়িতে গেলে বিচারের জন্য তারা প্রতিনিধি দলকে অপমান করে এবং বলে গ্রামবাসী পুলিশ প্রশাসন মন্ডল এমনকি বিধায়ক সহ সবকিছু তাদের পকেটে। শনিবার গ্রামবাসীরা পানিসাগর থানায় তাদের অভিযোগ নিয়ে ঘেরাও করে। এই চারজন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীরা সরব হয়। তারা জানায় এই অভিযুক্তদের মধ্যে যে ইসলাম উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি রয়েছে সে বালির ব্যবসার সাথে জড়িত। তবে পুলিশ যদি ইতিবাচক গ্রহণ না করে তাহলে পরিস্থিতির উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য