Monday, March 4, 2024
বাড়িখেলাসৌদি আরবের মাঠে কেন দুয়ো দেওয়া হলো ক্রুসকে

সৌদি আরবের মাঠে কেন দুয়ো দেওয়া হলো ক্রুসকে

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ১১ জানুয়ারি: ভিন্ন এক দেশে নিরপেক্ষ আঙিনায় খেলা। কিন্তু আতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে স্প্যানিশ সুপার কাপের সেমি-ফাইনালে বিরূপ এক অভিজ্ঞতার শিকার হতে হয়েছে টনি ক্রুসকে। রেয়াল মাদ্রিদের এই মিডফিল্ডারের পায়ে বল গেলেই গ্যালারি থেকে জোরেসোরে শোনা গেছে দুয়ো। শুরুতে অনেকের কাছে এটির কারণ বোধগম্য না হলেও পরে একটি যোগসূত্র খুঁজে পেয়েছে কিছু সংবাদমাধ্যম।আতলেতিকোর বিপক্ষে এই ম্যাচে শুরুর একাদশে ছিলেন না ক্রুস। ৬৬তম মিনিটে লুকা মদ্রিচের জায়গায় তাকে নামান কোচ কার্লো আনচেলত্তি। মাঠে নামার পর চেনা ছন্দেই দেখা যায় অভিজ্ঞ এই মিডফিল্ডারকে, বেশ ভালো পারফর্ম করেন তিনি। কিন্তু তিনি প্রতিবার বলে স্পর্শ করতেই গ্যালারি থেকে ধেয়ে আসে দুয়ো।

ম্যাচ চলার সময় ধারাভাষ্যকাররা এটির কারণ বুঝতে পারছিলেন না। ম্যাচ শেষে কার্লো আনচেলত্তিকে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনিও বিস্ময় প্রকাশ করেন, “আমি ঠিক বুঝে উঠতে পারছি না, তাকে কেন দুয়োগ দেওয়া হলো। টনি (ক্রুস) নিজেও বুঝতে পারছে না।”পরে অবশ্য বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে একটি সম্ভাব্য কারণ উঠে এসেছে। গত অগাস্টে সেল্তা ভিগো ছেড়ে সৌদি আরবের ক্লাব আল আহলিতে নাম লেখান তরুণ স্প্যানিশ মিডফিল্ডার গাব্রি ভেইগা। সেটি তখন বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। তার দিকে নজর ছিল বার্সেলোনা, চেলসি, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, পিএসজি ও নাপোলির মতো ক্লাবের। এমনকি নাপোলির সঙ্গে কথা অনেকদূর গড়িয়েছিল বলেও শোনা গিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিন বছরের চুক্তিতে তিনি পাড়ি জমান সৌদি আরবে।

দারুণ প্রতিভাবান ও সম্ভাবনাময় একজন ফুটবলারের স্রেফ ২১ বছর বয়সেই সৌদি ফুটবলে চলে যাওয়ার ব্যাপারটি চোখে লেগেছিল ক্রুসের। দলবদলের খবরের জন্য পরিচিত ইতালিয়ান সংবাদকর্মী ফাব্রিসিও রোমানো সামাজিক মাধ্যমে যে পোস্টে ভেইগার আল-আহলিতে যোগদানের খবর নিশ্চিত করেছিলেন, সেই পোস্টে ক্রুস মন্তব্য করেছিলেন, ‘লজ্জাজনক।’ওই মন্তব্যের কারণেই এবার সৌদি আরবে ক্রুসকে দুয়ো দেওয়া হলো বলে ধারণা করা হচ্ছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে।সামাজিক মাধ্যমে বরাবরই দারুণ সক্রিয় ও রসাল মন্তব্যে জন্য পরিচিত ক্রুস অবশ্য এতে চটে যাননি বা বিরক্ত হননি বলেই মনে হয়েছে। সামাজিক মাধ্যমে তার প্রতিক্রিয়ায় তেমনটিই ফুঠে উঠল, “আজকে বেশ মজা হলো… দর্শকেরা ছিল অসাধারণ।”উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে আতলেতিকোকে ৫-৩ গোলে হারিয়ে সুপার কাপের ফাইনালে ওঠে রেয়াল মাদ্রিদ। রোববার ফাইনালে মাঠে নামবেন ক্রুসরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য