Wednesday, August 17, 2022
বাড়িবিশ্ব সংবাদকোভিড: ইউরোপে ফের বাড়ছে সংক্রমণ, দায়ী ‘অপর্যাপ্ত টিকাদান’

কোভিড: ইউরোপে ফের বাড়ছে সংক্রমণ, দায়ী ‘অপর্যাপ্ত টিকাদান’

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ৫ নভেম্বর : ইউরোপ আবারও কোভিড মহামারীর একটি উপকেন্দ্রে পরিণত হওয়ার ঝুঁকির কথা জানিয়ে সামনের দিনগুলোর জন্য সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে মহাদেশটিতে শনাক্ত রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যাও লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে দেখা যাচ্ছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।এক সংবাদ সম্মেলনে ডব্লিউএইচও-র ইউরোপ অঞ্চলের প্রধান হানস ক্লুগ বলেছেন, ইউরোপ আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির মধ্যে মহামারীতে আরও ৫ লাখ মৃত্যু দেখতে পারে।

সংক্রমণের এই নতুন ঊর্ধ্বগতির জন্য মূলত অপর্যাপ্ত টিকাদানকেই দায়ী করেছেন তিনি।“আমাদের কৌশল বদলাতে হবে, কোভিড-১৯ এর ঊর্ধ্বগতি মোকাবেলার বদলে এমনটা যেন না হয় সেজন্য পদক্ষেপ নিতে হবে,” বলেছেন তিনি। ইউরোপে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে টিকাদানের হার ক্রমাগত শ্লথ হয়েছে।

স্পেনে টিকা পাওয়ার উপযুক্তদের ৮০ শতাংশ এরই মধ্যে দুই ডোজ পেয়ে গেলেও ফ্রান্স ও জার্মানিতে এই হার তুলনামূলক কম, যথাক্রমে ৬৮ ও ৬৬ শতাংশ। মধ্য ও পূর্ব ইউরোপের অনেক দেশে এই হার আরও কম। গত মাস পর্যন্ত রাশিয়া মাত্র ৩২ শতাংশকে টিকার সব ডোজ দিতে পেরেছে।

ক্লুগ জনস্বাস্থ্য বিষয়ক ব্যবস্থাপনায় শিথিলতাকেও ইউরোপ অঞ্চলে সংক্রমণ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ বলছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপ অঞ্চলের আওতায় যে ৫৩টি দেশ রয়েছে, তার মধ্যে মধ্য এশিয়ার একাংশও পড়ে; এই অঞ্চলটি এখন পর্যন্ত মহামারীতে প্রায় ১৪ লাখ মৃত্যু দেখেছে।বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ বিষয়ক কর্মকর্তা মারিয়া ভ্যান কেরখোভে বলেছেন, ‘টিকা ও সরঞ্জামের যথেষ্ট সরবরাহ’ থাকা সত্ত্বেও ইউরোপে গত ৪ সপ্তাহে রোগীর সংখ্যা ৫৫ শতাংশ বেড়েছে।মারিয়ার সহকর্মী ড. মাইক রায়ান বলছেন, ইউরোপের অভিজ্ঞতা বিশ্বের জন্য ‘সতর্ক সংকেত’।

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় জার্মানিতে রেকর্ড প্রায় ৩৪ হাজার নতুন কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে; যুক্তরাজ্যে বৃহস্পতিবারও ৩৭ হাজারের বেশি মানুষের দেহে প্রাণঘাতী ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। 

জার্মানিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এখনও যুক্তরাজ্যের চেয়ে কম হলেও সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউয়ের কারণে সামনের দিনগুলোতে বিপুল সংখ্যক মৃত্যু দেখা যেতে পারে এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় ভয়াবহ চাপ পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছেন দেশটির জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তারা।

জার্মানিতে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে ১৬৫ জনের মৃত্যু রেকর্ড হয়েছে, আগের সপ্তাহেও দেশটি একদিনে সর্বোচ্চ ১২৬ জনের মৃত্যু দেখেছিল।

“এখনই যদি পাল্টা ব্যবস্থা না নিই, তাহলে চতুর্থ ঢেউ আরও ভোগান্তি নিয়ে আসবে,” বলেছেন জার্মানির আরকেআই ইনস্টিটিউটের লোথার ভিইলার।

জার্মানিতে টিকা না পাওয়াদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব মানুষের সংখ্যাই এখনও ৩০ লাখের বেশি, তারাই সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

শনাক্ত রোগী-মৃত্যুর এই ঊর্ধ্বগতি যে কেবল জার্মানিতেই দেখা যাচ্ছে, তাও নয়।

গত সপ্তাহে কেবল রাশিয়াই মহামারীতে ৮ হাজার ১০০-র বেশি মৃত্যু দেখেছে, ইউক্রেইনে প্রাণ গেছে ৩ হাজার ৮০০ মানুষের। দুটো দেশেই টিকাদানের গতি শ্লথ; ইউক্রেইনে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ২৭ হাজার ৩৭৭ নতুন রোগীও শনাক্ত হয়েছে।

রোমানিয়া চলতি সপ্তাহে একদিনে সর্বোচ্চ ৫৯১ জনের মৃত্যু দেখেছে, হাঙ্গেরিতেও শনাক্ত লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তা সত্ত্বেও দেশটিতে কেবল গণপরিবহন ও হাসপাতালেই মাস্ক পরতে হচ্ছে।“এই মুহুর্তে আমরা এমন একটা ভাবে রয়েছি, যেন মহামারী শেষ, আমাদের খালি আর কিছু লোককে টিকা দিলেই হবে। ব্যাপারটা মোটেও সেরকম নয়,” বলেছেন ড. রায়ান।

চলতি সপ্তাহে নেদারল্যান্ডসের সরকার জানিয়েছে, এক সপ্তাহে হাসপাতালে ভর্তি ৩১ শতাংশ বেড়ে যাওয়ায় তারা জনসমাগম হয় এমন অনেক স্থানে মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা বাধ্যতামূলক করতে যাচ্ছে।

রেকর্ড সংক্রমণের পর লাটভিয়া সোমবার থেকে তিন মাসের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে।

ক্রোয়েশিয়ায় বৃহস্পতিবার রেকর্ড ৬ হাজার ৩১০ নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে; চেক রিপাবলিকে সংক্রমণ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে, শেষ যা দেখা গেছে বসন্তে।

তবে যে দেশগুলোতে টিকাদানের হার ভালো, সেখানে সংক্রমণের হার তুলনামূলক কম। টিকাদানের হার ভালো দেশগুলোর অন্যতম ইতালিতে গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে ১৬ দশমিক ৬ শতাংশ বেশি রোগী দেখা গেছে।

পর্তুগালে শনাক্ত নতুন রোগীর সংখ্যা সেপ্টেম্বরের পর প্রথম হাজারের উপরে উঠেছে।ইউরোপের যে অল্পকটি দেশে এখন সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি দেখা যাচ্ছে না, তার অন্যতম স্পেনে বুধবার নতুন ২ হাজার ২৮৭ জনের দেহে কোভিড শনাক্ত হয়েছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য