Wednesday, June 29, 2022
বাড়িরাজ্যঅগ্নিপথ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে বামেদের বিক্ষোভ শহরে

অগ্নিপথ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে বামেদের বিক্ষোভ শহরে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৪ জুন : দেশের সেনাবাহিনীতে নিয়োগের ক্ষেত্রে বেআইনি অগ্নিপথ প্রকল্প বাতিল করতে হবে। এই প্রকল্পের দ্বারা যুবকদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেওয়া হবে বলে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে এবার মাঠে নামলো বাম কৃষক সংগঠন এবং শ্রমিক সংগঠন। সরকারের বিরুদ্ধে শুক্রবার বিক্ষোভ কর্মসূচি সংঘটিত করে এই প্রকল্প বাতিলের দাবি জানায়।

সারা ভারত কৃষক সভা, ত্রিপুরা ক্ষেতমজুর ইউনিয়ন এবং সি আই টি ইউ রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচী সংগঠিত করা হয়। সি.আই.টি.ইউ কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি মিছিল সংঘটিত করা হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন সি আই টি ইউ রাজ্য সভাপতি মানিক দে, সাধারণ সম্পাদক শংকর প্রসাদ দত্ত সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সি আই টি ইউ রাজ্য সভাপতি মানিক দে বলেন বিজেপি সরকার দেশের নিরাপত্তা বিরোধী অগ্নিপথ প্রকল্প এনেছে। সরকার গোটা দেশে চুক্তিবদ্ধ প্রথা চালু করে দিয়েছে। দেশটাকে চাইছে ঠিকাদারদের হাতে তুলে দিতে। সরকারের এ ধরনের নীতি দেশে সার্বভৌমত্বের পরিপন্থী। বেসরকারি এ ধরনের প্রকল্প চালু করে দেশকে দুর্বল করতে চাইছে। নানা কায়দায় তারা কৌশল হাতে নিচ্ছে। তাই এর তীব্র বিরোধিতা জানানো হচ্ছে বলে জানান মানিক দে। এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে গোটা দেশের মানুষ সোচ্চার হয়েছে। তারপরও বিজেপি সরকার ভাওতাবাজি করছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি।

এদিকে ছাত্র-যুব ভবনের সামনে থেকে সংযুক্ত কৃষাণ মোর্চা এবং ক্ষেতমজুর ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিল সংঘটিত করা হয়। মিছিলের অগ্রভাগে উপস্থিত সংযুক্ত কিষান মোর্চার রাজ্য কমিটির নেতা পবিত্র কর জানান, সংযুক্ত মোর্চার পক্ষ থেকে অগ্নিপথ প্রকল্প বাতিলের দাবি জানিয়ে দেশের রাষ্ট্রপতির কাছে একটি দাবি সনদ পেশ করা হবে। তাই সারা দেশের পাশাপাশি ত্রিপুরা রাজ্যেও এ দিন বিক্ষোভ কর্মসূচি সংঘটিত করা হচ্ছে বলে জানান পবিত্র কর। সরকারের এই অগ্নিপথ প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের স্বাধীনতার ৭৫ বছর পর সীমান্ত রক্ষা এবং নিরাপত্তাকে দলীয়করণ করতে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার। বিজেপি সরকার আর এস এস -এর নির্দেশে এই কাজটি করেছে। এটি দেশে মঙ্গলের ক্ষেত্রে অবমাননা হবে এবং যুবকদের প্রতি অবমাননা হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন পবিত্র কর। সেনাবাহিনীর ৯০ শতাংশ হল কৃষক পরিবারের সন্তান। তাই সরকারের এই অগণতান্ত্রিক নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংযুক্ত কৃষাণ মোর্চা বলে জানান শ্রী কর।

উল্লেখ্য, অগ্নিপথ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলন। প্রকল্পটি বাতিলের জন্য ত্রিপুরা রাজ্যে আন্দোলন ক্রমশ বৃহৎ আকার ধারণ করতে চলেছে। গত কয়েকদিনে দেশে যুবক আন্দোলন এতটা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে মৃত্যু ঘটনা পর্যন্ত সামনে এসেছে। ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সরকারি সম্পত্তি। ব্যাঘাত ঘটেছে জনজীবনের উপর। কিন্তু কেন্দ্র অটল থেকেছে অগ্নিপথে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে চার বছর পরে অগ্নিবীর অবসরে চলে যাবেন। তবে নিয়োগের চার বছর পরে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত অগ্নিবীরকে সেনায় রাখা হবে। বাকিদের অবসর নিতে হবে। তাঁদের মিলবে না পেনশনের সুবিধাটুকুও। তাই এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে ক্রমশ আন্দোলন দেশের যুবকদের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি তেজী করে তুলছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য