Monday, May 16, 2022
বাড়িরাজ্যমহিলাদের কাছে রোজগার না গেলে ত্রিপুরা দাড়াতে পারবে না : মুখ্যমন্ত্রী

মহিলাদের কাছে রোজগার না গেলে ত্রিপুরা দাড়াতে পারবে না : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১০ এপ্রিল : মহিলাদের নিজ অধিকার সম্পর্কে অবগত হয়ে সঠিক দিশায় কাজ করতে হবে। মহিলা শ্বশক্তিকরণে যে সমস্ত উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তার অধিকার ভোগ করতে হবে। মহিলাদের কাছে রোজগার না গেলে ত্রিপুরা কোন দিন নিজের পায়ে দাড়াতে পারবে না। ভারত একত্রিত রয়েছে মহিলাদের জন্য। রবিবার বাধারঘাট মণ্ডলের উদ্যোগে আয়োজিত ধন্যবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে  এই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। আগে ৭০০ টাকার বেশি ভাতা পেত না। বর্তমানে ১০০০ টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী দুর্গা পূজার আগে ২০০০ টাকা ভাতা পাবেন ভাতা প্রাপকেরা। ৪ লক্ষ পরিবার এই সুবিধা পাবে। কমিউনিস্টরা ভেবেছিল বর্তমান সরকার তা দিতে পারবে না। কিন্তু সরকারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আছে।

প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে থাকলে সমস্ত কিছু করা সম্ভব এই সরকার তা প্রমান  করে দিয়েছে।  এদিন রাজ্যের মহিলাদের অর্থনৈতিক বুনিয়াদকে শক্তিশালী করতে ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণ দেওয়ার সিদ্ধান্তকে ধন্যবাদ জানিয়ে এই র্যাালীর আয়োজন করা হয়। সমাজ ব্যবস্থায় মহিলা বিরোধী মানসিকতা তৈরি হয়ে আসছিল। পুরুষদের কর্তব্য মহিলাদের তাদের অধিকার দেওয়ার। সম জায়গায় নিয়ে যাওয়া। মহিলা আগামী দিনে শক্তিশালী ত্রিপুরা গড়বে বলে আশা ব্যক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী। ত্রিপুরাকে শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরা বানানোর জন্য মহিলাদের ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ৫০ শতাংশের উপর মহিলা রয়েছে রাজ্যে। আর এই মহিলাদের কাছে রোজগার না গেলে ত্রিপুরা কোন দিন নিজের পায়ে দাড়াতে পারবে না। ৫০ শতাংশ অবহেলিত থাকলে, বাকী ৫০ শতাংশ দিয়ে ত্রিপুরাকে দার করানো সম্ভব হবে না।  মহিলারা মন্দিরে গেলে সেখান থেকে প্রসাদ এনে পুরো পরিবারকে দেন। পুরুষরা গেলে নিজে গিয়ে চলে আসে। এটাই স্বভাব পুরুষদের বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

 ভারত এক ব্যবস্থা, সংস্কৃতি। ভারতের বাইরে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা , নেপাল, ভূটানে ভারতের কৃষ্টি, সংস্কৃতি প্রমানিত। ভারত এক রাষ্ট্রবাদ, রাষ্ট্র চিন্তন। এর মধ্যে বড় ভূমিকা পালন করে মহিলারা। ভারত একত্রিত রয়েছে মহিলাদের জন্য। মায়ের কারনে ভারত একজায় থাকে। আইন কানুন ব্যবস্থা দেখার জন্য মহিলাদের কাছে অধিকার বেশী থাকা উচিৎ। সেই জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ আনা হয়েছে আরক্ষা ক্ষেত্রে। বহু শিক্ষিত মেয়ে টি এস আর-র যোগদান করেছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিধায়িকা মিমি মজুমদার, রাজ্য সম্পাদক টিঙ্কু রায়, রাজ্য সম্পাদিকা   পাপিয়া দত্ত, প্রদেশ মহিলা মোর্চার সভানেত্রী ঝর্না দেববর্মা সহ অন্যান্যরা। এদিন ১৯৯৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত নিহত বাম বিরোধী আন্দোলনের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নেতৃত্বরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য