Saturday, June 15, 2024
বাড়িরাজ্যপ্রাথমিক ভাবে আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে রাজ্য সরকারের :...

প্রাথমিক ভাবে আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে রাজ্য সরকারের : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৭ মে : প্রাথমিক ভাবে আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ চালু করার জন্য সোমবার স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতাল পরিদর্শনে যান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহা। মুখ্যমন্ত্রীর সাথে ছিলেন স্বাস্থ্য সচিব কিরন গিত্তে, স্বাস্থ্য দপ্তরের অধিকর্তা ডাক্তার সঞ্জীব দেববর্মা সহ অন্যান্যরা। স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী এইদিন কথা বলেন হাসপাতালের চিকিৎসক, স্বাস্থ্য কর্মী ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের সাথে। ঘুরে দেখেন হাসপাতালের সার্বিক ব্যবস্থাপনা।

চিকিৎসা পরিষেবার বিষয়ে রোগীদের কাছ থেকে খোঁজখবর নেন। পরে মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহা সাংবাদিকদের সাথে সাক্ষাৎকারে জানান স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতালটি দীর্ঘ দিনের পুরানো। স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতাল নিয়ে মানুষের অনেক প্রত্যাশা রয়েছে। প্রচুর পরিমাণে রোগী আসে এই হাসপাতালে। হাসপাতালে ৫০ টি ব্যাড রয়েছে। কিন্তু তার থেকেও বেশি রোগী আসে এই হাসপাতালে। স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতালে প্রাথমিক ভাবে আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। তার জন্য স্বাস্থ্য সচিব ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের নিকট চিঠি প্রেরন করেছেন। প্রাথমিক ভাবে স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতালে আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ চালু করা হলেও পরবর্তী সময় রেন্টার্স কলোনি স্টেট হোমিওপ্যাথি হাসপাতালের পাশের জায়গায় আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ ও হোমিওপ্যাথি মেডিক্যাল কলেজ করা যায় কিনা তার চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে।

স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতালে যে সকল সমস্যা গুলি রয়েছে সেই গুলি দ্রুত সমাধান করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালে ব্যাডের সংখ্যা বৃদ্ধি করারও চিন্তা ভাবনা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতালে ঔষধের জন্য ইটেন্ডার করা সম্ভব হয় নি। তাই আপাতত দুই মাসের ঔষধ ক্রয় করার জন্য ফান্ড দেওয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় রিমাল মোকাবেলার বিষয় নিয়ে বলতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন সরকার ঘূর্ণিঝড় রিমাল মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত। প্রশাসনিক ভাবে সকল ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জানা গেছে রিমাল ক্রমশ শক্তি হারাচ্ছে। এইটা সকলের জন্য মঙ্গল। তবে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য সকল দপ্তরকে প্রস্তুত থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ধলাই জেলায় শিশু বিক্রয়ের ঘটনার বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হলে মুখ্যমন্ত্রী জানান এই ঘটনার বিষয়ে জানার পর তিনি ধলাই জেলার জেলা শাসকের সাথে কথা বলেছেন। শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে তুলে দেওয়া হয়েছে। তবে শিশু বিক্রয়ের ঘটনা আগে বেশি ঘটত। বর্তমানে এই শিশু বিক্রয়ের ঘটনা তেমন একটা ঘটে না। তারপরও এই ধরনের ঘটনার খবর আসার সাথে সাথে প্রশাসন পদক্ষেপ গ্রহণ করে। শিশু বিক্রয়ের ঘটনা যেন না ঘটে তার জন্য সরকার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী এইদিন স্টেট আয়ুর্বেদিক হাসপাতাল পরিদর্শনকালে হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের বেশকিছু নির্দেশ দেন। হাসপাতালের কিছু কিছু সমস্যা এইদিন মুখ্যমন্ত্রীর নজরে আসে। মুখ্যমন্ত্রী সমস্যা গুলিকে দ্রুত নিরসন করার জন্য দপ্তরের আধিকারিক ও হাসপাতালের চিকিৎসকদের নির্দেশ দেন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য