Friday, May 31, 2024
বাড়িরাজ্যরাষ্ট্রীয় বাল স্বাস্থ্য কার্যক্রম সফল রাজ্যে

রাষ্ট্রীয় বাল স্বাস্থ্য কার্যক্রম সফল রাজ্যে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৬ মে : ২০১৪ সালে রাষ্ট্রীয় বাল স্বাস্থ্য কার্যক্রম চালু হয়েছিল। রাষ্ট্রীয় বাল স্বাস্থ্য কার্যক্রমের উদ্দেশ্য হচ্ছে ০ থেকে ১৮ বছর বয়সী যে সকল শিশুদের জন্মগত শারীরিক অসঙ্গতি রয়েছে তাদের চিহ্নিত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা। রাজ্যে রাষ্ট্রীয় বাল স্বাস্থ্য কার্যক্রমের মোট ৪৮ টি ডেডিকেটেড মোবাইল হেলথ্ টিম রয়েছে। এই ডেডিকেটেড মোবাইল হেলথ্ টিম অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে গিয়ে ০ থেকে ৬ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের স্ক্রিনিং করে।

সরকারি ও সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত বিদ্যালয় গুলিতে ৬ থেকে ১৮ বছর বয়সী ছেলেমেয়েদের স্ক্রিনিং করা হয়। রাজ্যের যে সকল শিশু জন্মগত হৃদরোগে আক্রান্ত রয়েছে তারা এ জি এম সি ও জিবিপি হাসপাতাল, চেন্নাইর অ্যাপেলো চিলড্রেন হাসপাতাল, কলকাতার মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল ও মনিপুরের শিজা হাসপাতাল ও রিসার্চ সেন্টার থেকে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবে। বৃহস্পতিবার মহাকরণে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই সংবাদ জানান জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের রাজ্য অধিকর্তা রাজিব দত্ত। তিনি আরো জানান, ঠোঁট ও তালু কাটা শিশুদের গৌহাটি মিশন স্মাইল হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা গ্রহণের ব্যবস্থা রয়েছে। যে সকল শিশুর হিয়ারিং এইড-এর প্রয়োজন রয়েছে তারা আগরতলার আই.এল.এস হাসপাতাল থেকে সংগ্রহ করতে পারবে।

যে সকল শিশুর পা বাঁকা তারা মুম্বাইর অনুষ্কা ফাউন্ডেশান থেকে চিকিৎসা পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবে। ২০১৫ সাল থেকে এখনো পর্যন্ত ৯০০ টির উপর ঠোঁট কাটা এবং তালু কাটা, ৬০০ টি জন্মগত হৃদরোগ, ৩৫০ টি বাঁকা পা, ১০০ টি দৃষ্টি প্রতিবন্ধকর্তাজনিত রোগে আক্রান্ত ছেলেমেয়েদের এবং ৪০০ টি ক্লাবফুট রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা এবং প্রয়োজনে সফল অস্ত্রোপাচার করা হয়েছে। তারা প্রত্যেকেই বর্তমানে সুস্থ রয়েছে। রাজ্যে জন্মগত শ্রবণজনিত প্রতিবন্ধকতা রোগে আক্রান্ত শিশুদের ৮০০ টি শ্রবণযন্ত্র বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের যুগ্ম রাজ্য অধিকর্তা বিনয় ভূষণ দাস, স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডাক্তার সঞ্জীব দেববর্মা সহ অন্যান্যরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য