Wednesday, October 20, 2021
বাড়িরাজ্যত্রিপুরায় উপ-রাষ্ট্রপতি, স্থানীয় সামগ্রী ক্রয় করতে জনগণের প্রতি আহ্বান

ত্রিপুরায় উপ-রাষ্ট্রপতি, স্থানীয় সামগ্রী ক্রয় করতে জনগণের প্রতি আহ্বান

আগরতলা, ০৬ অক্টোবর (হি.স.) : স্থানীয় সামগ্রী ক্রয় করুন। সেই দিশায় হস্ততাঁত, হস্তকারু এবং খাদিতে উৎপাদিত সামগ্রী ক্রয় করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন উপ-রাষ্ট্রপতি এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু। আজ বুধবার বিকেলে হাঁপানিয়ায় আন্তর্জাতিক মেলা প্রাঙ্গণে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে হস্ততাঁত ও হস্ত কারুশিল্পের উৎপাদিত সামগ্রীর প্রদর্শনী ও বিক্রয় মেলার উদ্বোধন করে এই আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁর কথায়, এমন সুন্দর, স্বাস্থ্যসম্মত, পরিবেশ-বান্ধব সামগ্রী আর কোথাও পাওয়া যাবে না। আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের অঙ্গ হিসেবে তিনদিনব্যাপী এই প্রদর্শনী ও বিক্রয় মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

আজকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব, উপজাতি কল্যাণ দফতরের মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া, খাদ্য ও জনসংভরণ দফতরের মন্ত্রী মনোজকান্তি দেব, মুখ্যসচিব কুমার অলক, এনইসি-র সেক্রেটারি কে মোসেস চেলাই প্রমুখ।

উপরাষ্ট্রপতি অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব, জনজাতি কল্যাণমন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া, শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী মনোজকান্তি দেব, মুখ্যসচিব কুমার অলক প্রমুখ তাঁকে স্বাগত জানান। প্রদর্শনী ও বিক্রয় মেলার উদ্বোধন করে উপ-রাষ্ট্রপতি উত্তরপূর্বের বিভিন্ন রাজ্য থেকে অংশগ্রহণকারী স্টলগুলি ঘুরে দেখেন। মুখ্যমন্ত্রী সহ অতিথিগণও উপ-রাষ্ট্রপতির সাথে ছিলেন। পরে প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন রাজ্যের হস্তকারু শিল্পীদের সাথে নাইডু মতবিনিময় করেন। উপ-রাষ্ট্রপতি তাঁদের কাজ, সমস্যা, আয়ের বিষয়ে খোঁজখবর নেন। বিভিন্ন রাজ্যের প্রতিনিধিগণ তাঁদের অভিজ্ঞতার কথা উপ-রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরেন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানের পর উপ-রাষ্ট্রপতি বলেন, এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করে আমি খুব আনন্দিত। আপনাদের কাজ দেখে আমার মনে হচ্ছে, উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রতিভার কোনও অভাব নেই। এই প্রতিভাকে আরও বেশি উৎসাহিত ও সহায়তা করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, হস্ততাঁত ও হস্ত কারুশিল্প আমাদের সংস্কৃতির অংশ। আমরা সবাই জানি, স্বাধীনতা সংগ্রামে খাদি ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছে। সারা বিশ্বে হস্ত কারুশিল্পের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এই শিল্প কর্মসংস্থানেরও অনেক সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে। উপ-রাষ্ট্রপতি বলেন, এক্ষেত্রে অনেকে নিজে স্বাবলম্বী হয়ে অন্যকেও রোজগারের পথ করে দিচ্ছেন। এটা খুব সহজ বিষয় নয়। এ জন্য তিনি উদ্যোগীদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

উপ-রাষ্ট্রপতি বলেন, আমাদের জনগণের মধ্যে প্রতিভা এবং পরাদর্শিতার কোনও অভাব নেই। এক্ষেত্রে সব থেকে বেশি প্রয়োজন তাঁদের খুঁজে বের করে প্রশিক্ষিত করা। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্কিল ডেভেলপমেন্ট নামে আলাদা মন্ত্রালয় চালু করেছেন।

তিনি বলেন, ১৩০ কোটি জনসংখ্যার এই দেশে প্রায় ৬৫ শতাংশ মানুষ ২৫ বছরের কম বয়সি। তাঁদের প্রশিক্ষিত করতে পারলে তাঁরা নিজেও স্বাবলম্বী হবেন, অন্যদেরও স্বাবলম্বী হতে সাহায্য করতে পারবেন। তাঁর দাবি, যাঁরা আজ এখানে আমার সঙ্গে কথা বলেছেন তাঁদের আত্মবিশ্বাস আছে বলেই তাঁরা ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতির সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলতে পেরেছেন। আমি খুব খুশি, এই আত্মবিশ্বাস আমাদের দেশকে শক্তিশালী করবে।

উপ-রাষ্ট্রপতি নাইডুর মতে, তাঁদের উৎসাহিত ও সহায়তা করা কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের দায়িত্ব। উভয়েই আন্তরিকভাবে এই কাজ করছে। এই ক্ষেত্রকে আরও উৎসাহিত করতে হবে। উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করার ব্যবস্থাও করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের দেশে সবকিছু আছে। আপনারা সবাই হস্ততাঁত ও হস্ত কারুশিল্পের উৎপাদিত সামগ্রী, খাদির উৎপাদিত সামগ্রী কিনুন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও ভোকাল ফর লোকালের কথা বলেছেন। আমাদের সবার স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত সামগ্রী ব্যবহারে উৎসাহিত করতে হবে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য