Monday, February 26, 2024
বাড়িরাজ্যপরীক্ষা আসলেই বুঝা যায় সারা বছর কি পড়াশোনা হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

পরীক্ষা আসলেই বুঝা যায় সারা বছর কি পড়াশোনা হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৯ মার্চ : রাষ্ট্রবাদী চিন্তা ধারায় দেশকে শক্তিশালী করতে কাজ করা উচিত। কিন্তু এতে গেজেটেড অফিসার্স সঙ্ঘের খামতি রয়েছে। এটা প্রমাণিত হয়েছে সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে। রবিবার আইজিএম হাসপাতালে গেজেটেড অফিসার্স সঙ্ঘের স্বেচ্ছা রক্তদান শিবিরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এভাবেই কর্মচারীদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা। তিনি বলেন, অনুষ্ঠানে থাকলেও আসল ক্ষেত্রে দেখা গেল ফিনিশিং টাচ দেওয়া বিষয়ে কিন্তু আপনাদের পাওয়া যায় না। এটা কেন হচ্ছে সেটা জানা নেই।

সরকার ৫ বছরে কর্মচারীদের অধিকার যতটুকু সম্ভব গোছানোর চেষ্টা করেছে। এর মধ্যে কর্মচারীদের একটা ব্যতিক্রমী চিন্তাধারাও লক্ষ্য করা গেছে। তাহলে এই সংগঠনের অর্থ কি দাঁড়িয়েছে? সুতরাং পরীক্ষা আসলেই বুঝা যায় সারা বছর কি পড়াশোনা হয়েছে। এভাবেই কর্মচারী নেতাদের সজাগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী সংগঠনের নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, দেশ এবং রাজ্যের জন্য কি করতে পেরেছেন সেটা নিজেকে প্রশ্ন করুন। মুখ্যমন্ত্রী গেজেটেড অফিসারদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন সংগঠন সম্পর্কে কে কি ভাবে সেটা অবগত রয়েছেন তিনি। দাবি দেওয়া পূরণ করা, আবার কেউ নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য সংগঠন করতে চায়।

কাজের প্রতি তাদের অনেকের আস্থা নেই। এ ধরনের ব্যতিক্রমি চিন্তাধারা থেকে বের হয়ে আসতে হবে কর্মচারীদের। রাষ্ট্রবাদী চিন্তা ধারা নিয়ে সংগঠন তৈরি করলে মানুষের উপকারে আসবে বলে অভিমত ব্যক্ত করলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি রক্তদান প্রসঙ্গে বলেন, সকলকে রক্তদানে এগিয়ে আসার জরুরী। সন্তানের চেয়ে উর্ধ্বে রক্তদান। রক্তদানের চেয়ে মহৎ কোন দাম হতে পারে না বলে অভিমত ব্যক্ত করে মুখ্যমন্ত্রী। আয়োজিত সভায় যেদিন এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ বিজেপি সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্যী। তিনি জানান, রক্তের সংকট চলছে। মুখ্যমন্ত্রী আহ্বানে সাড়া দিয়ে রবিবার সারা রাজ্যে বারটি স্থানে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে বলে খবর রয়েছে। ধারাবাহিকভাবে রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত করার আহ্বান জানান প্রদেশ বিজেপি সভাপতি। এদিন রক্তদান শিবিরে মধ্য দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য শুনে হয়তো চোখ কান খুলবে সংগঠনের অনেক নেতাদের। মুখ্যমন্ত্রী এদিন বোঝাতে চেয়েছেন রাষ্ট্রের জন্য সংগঠনের কাজ করা জরুরি। তাহলে সংগঠনের সার্থকতা আসবে। এদিনের আয়োজিত শিবিরে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সমস্ত নেতৃত্ব। অনুষ্ঠানের পর মুখ্যমন্ত্রী রক্তদান শিবির পরিদর্শন করে রক্তদাতাদের উৎসাহিত করেন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য