Saturday, April 1, 2023
বাড়িরাজ্যহেনস্থার প্রতিবাদে পুলিশ সুপারের অফিসে বিক্ষোভ সাংবাদিকদের

হেনস্থার প্রতিবাদে পুলিশ সুপারের অফিসে বিক্ষোভ সাংবাদিকদের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৩ মার্চ : রাষ্ট্রীয় শক্তি দ্বারা সাংবাদিক হেনস্থা করার প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে সরব হলেন বিশালগড় প্রেসক্লাবের সদস্যরা। সোমবার সিপাহীজলা জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে গিয়ে বিশালগড় প্রেসক্লাবের সদস্যরা টাকারজলা থানার ওসি দেবানন্দ রিয়াং -কে অবিলম্বে চাকুরি থেকে বরখাস্ত করার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, স্যন্দন পত্রিকার গোলাঘাটির সাংবাদিক ভবতোষ ঘোষকে গত ২ মার্চ মাঝরাতে কোনরকম ওয়ারেন্ট জারি না করেই পুলিশ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় টাকারজলা থানায়।

দীর্ঘ কয়েক ঘন্টা থানায় বসিয়ে রেখে হেনস্তা করা হয়। শুধু তাই নয়, টি এস আর জওয়ান দিয়ে শারীরিক নিগ্রহ করা হয় সাংবাদিককে। যদিও শেষ পর্যন্ত ভুলবশত থানায় আনা হয়েছে বলে ওসি দেবানন্দ রিয়াং স্বীকার করেন। সকাল হতেই কি খবর সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তেই সংবাদ মাধ্যমের একটি প্রতিনিধি দল রাজ্য পুলিশের সদর কার্যালয়ে গিয়ে পুলিশের মহা নির্দেশক অমিতাভ রঞ্জনের উদ্দেশ্যে স্মারকলিপি তুলে দিয়ে দাবি জানান টাকারজলা থানার ওসি দেবেন্দ্র রিয়াংকে অবিলম্বে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করতে হবে এবং অভিযুক্ত এই পুলিশ অফিসার সহ যারা জড়িত রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। প্রতিনিধি দলে উপস্থিত ছিলেন স্যন্দন পত্রিকা এবং স্যন্দন টিভির ডিরেক্টর অভিষেক দে, সাংবাদিক অরিন্দম চক্রবর্তী, টিপু সুলতান সহ অন্যান্যরা।

এদিকে সাংবাদিকের একটি প্রতিনিধি দল সিপাহীজলা জেলা পুলিশ সুপারের সাথে দেখা করে ওসি সাহেবের বরখাস্তে দাবি করেন। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে ১০ দিন অতিক্রান্ত হয়ে গেল জেলা পুলিশ সুপার এবং অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকরা ওসি সাহেবের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এর প্রতিবাদে সোমবার সিপাহীজলা জেলা পুলিশ সুপার অফিসে গিয়ে বিক্ষোভের সামিল হয় বিশালগড় প্রেস ক্লাবের কর্মীরা। দাবি জানান অবিলম্বে ওসি সাহেবকে বরখাস্ত করার জন্য। নাহলে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্য হবে বলে জানান সাংবাদিক ভবতোষ ঘোষ। জেলা পুলিশ সুপার জগদীশ্বর রেড্ডি এদিন স্যন্দন পত্রিকার ডিরেক্টর অভিষেক দে -র কাছে চিঠি দিয়ে জানান, টাকারজলা থানার দায়িত্বে থাকা মহকুমা পুলিশ আধিকারিককে বিষয়টি তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী টাকারজলা থানার অফিসারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য