Tuesday, May 28, 2024
বাড়িরাজ্যবিদ্রোহ কর্মীদের ক্ষোভের আগুন আঁচড়ে পড়লো রাজ অন্দরে

বিদ্রোহ কর্মীদের ক্ষোভের আগুন আঁচড়ে পড়লো রাজ অন্দরে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৯ জানুয়ারি : তিপ্রা মথার কুড়িজনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর বিদ্রোহ কর্মীদের ক্ষোভের আগুন আঁচড়ে পড়লো রাজ অন্দরে। ব্যথিত হলেন বোবাগ্রা। যদিও নির্বাচনে প্রার্থী ঘোষণা করার পর থেকেই সমস্ত রাজনৈতিক দল গুলির নেতা ও কর্মীদের মধ্যে অসন্তোষ প্রকাশ্যে আসছে। এর থেকে বাদ যায়নি তিপ্রা মথা।

 শেষ লগ্নে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেও দলীয় কর্মীদের বিদ্রোহ রুখতে পারে নি দলের সুপ্রিমো প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মন। রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে ঘটছে ক্ষোভের বহিঃ প্রকাশ। শনিবার গভীর রাতে প্রথম দফায় ২০ টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে তিপ্রা মথা। এই তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের বহিঃ প্রকাশ ঘটতে শুরু করে। ঘোষিত ২০ টি আসনের মধ্যে মাত্র ১২ টি জনজাতি সংরক্ষিত আসনের জন্য প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে তিপ্রা মথা দল। বাকী ৮ টি আসন ছিল সাধারণ এবং তপশিলিদের জন্য সংরক্ষিত। রবিবার ঘোষিত প্রার্থী তালিকা নিয়ে ক্ষোভ জানায় তিপ্রা মথার নেতা ও কর্মীরা। উত্তেজনাকর পরিস্থিতির উদ্বেগ হয় রাজবাড়ীর সামনে। বিভিন্ন স্থান থেকে কর্মী ও নেতারা জড়ো হয় রাজবাড়ীর সামনে। তাঁদের একাংশের বক্তব্য রাজ্যের একটা বড় অংশ চাকমা সম্প্রদায়ের মানুষ তিপ্রা মথা দলের সমর্থক।

তাই ৬ টি আসনের মধ্যে দুটি আসনে চাকমা সম্প্রদায় থেকে প্রার্থী দেওয়ার দাবী জানান তারা। বিজেপি দল এবার তিন জন প্রার্থী চাকমা সম্প্রদায় থেকে করেছে। তিপ্রা মথার জন্য ভোট চাইতে গেলে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে। তিপ্রা মথা দলের সুপ্রীমোকে তাঁদের বক্তব্য শুনতে হবে। অন্যথায় ছামনু বিধানসভা কেন্দ্রে আন্দোলন সংগঠিত করা হবে বলে জানান প্রার্থীর দাবিদার হলিউড চাকমা। এদিকে উত্তেজনা কর পরিস্থিতির উদ্বেগ হলে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পৃথক ভাবে কথা বলেন মথা সুপ্রীমো। পেচারথল কেন্দ্র থেকে শেষ পর্যন্ত প্রার্থী হিসাবে হলিউড চাকমার নাম স্থির করা হয়। এর সুর পরিবর্তন করেন তিনি। এদিকে দলের সুপ্রিমো প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মণ আক্ষেপের শুরু দাবি করেন, জোট নিয়ে কোন রাজনৈতিক দলের কথা শুনেন নি তিনি। গ্রেটার তিপরাল্যান্ডের জন্য কোন রাজনৈতিক দলের সাথে আপোষ করেনি। কিন্তু আজকে সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দলের সাথে একাই লড়ছে তিপ্রা মথা। কিন্তু সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো তিপ্রাসারা বোবাগ্রা ত্যাগ বুঝতে পারে নি। কিন্তু কেউ কেউ এই বিষয়টা না বুঝে বিধায়ক হওয়ার জন্য নির্দলের প্রার্থী হয়ে লড়তে চাইছে। এতে স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে কখনো তারা তিপ্রাসাদের কথা ভাবেনি শুধুমাত্র নিজের স্বার্থের কথা ভেবেছে। আর এভাবে শুধু মাত্র বোবাগ্রাকে দুঃখ দেয়নি, তিপ্রাসাদের  লড়াই দুর্বল করছে বলে জানান তিনি। দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বার্তা রেখে বলেন আগামী ১৬ যাতে কাজ করে, তারপর দেখবে বোবাগ্রা কি নিয়ে আসে বলে জানান তিনি। এখনো রাজ অন্দরে চলছে দলীয় আলোচনা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য