Monday, February 26, 2024
বাড়িরাজ্যশরিক বন্ধুর জন্য পাঁচটি আসন ছাড়লো বিজেপি, প্রার্থী করেছে এন.সি দেববর্মার মেয়েকে

শরিক বন্ধুর জন্য পাঁচটি আসন ছাড়লো বিজেপি, প্রার্থী করেছে এন.সি দেববর্মার মেয়েকে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৮ জানুয়ারি : ২০২৩ সালের বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপির সাথে জোট হয়ে লড়াই করতে যাচ্ছে আইপিএফটি। তবে এইবার আইপিএফটি-কে মাত্র ৫ টি আসন ছাড়তে রাজি হয়েছে বিজেপি। বিজেপি ও আইপিএফটি-র মধ্যে জোটের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের পর উভয় দলের নেতৃত্বরা শনিবার রাজধানীর এক বেসরকারি হোটেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই বিষয়ে জানান। সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহা জানান ২০১৮ সালের নির্বাচনে বিজেপি আইপিএফটির সাথে জোট করেছিল।

 কমন মিনিমাম প্রোগ্রামের ভিত্তিতে এই জোট হয়েছিল। তার পর বিজেপি আইপিএফটির জোট সরকার প্রতিষ্ঠা হয়। সেই জোট সরকার ৫ বছর কাজ করেছে। ইতিহাস সাক্ষী বিজেপি কারোর সাথে জোট করলে সেই জোট ছাড়ে না। অন্য দল বিজেপিকে ছেড়ে চলে গেছে। কিন্তু বিজেপি কাউকে ছেড়ে চলে যায় নি। ২০২৩ সালের নির্বাচনকে সামনে রেখে বিজেপি-আইপিএফটির নেতৃত্বদের মধ্যে জোটের বিষয়ে আলচনা হয়। আলোচনাক্রমে দুই দলের জোট জারি থাকার সিদ্ধান্ত হয়। এবং বিজেপি জোট ধর্ম মেনে আইপিএফটি-কে ৫ টি আসন ছেড়ে দিয়েছে। এই ৫ টি আসনে আইপিএফটি প্রার্থী লড়াই করবে। সেই অনুযায়ী আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে আগে ভারতীয় জনতা পার্টি আই পি এফ টি -র জন্য পাঁচটি আসন ছেড়ে দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ৩৮ নং জুলাইবাড়ি, ১২ নং টাকারজলা, ২৪ নং রামচন্দ্র ঘাট, ২৬ নং আশারাম বাড়ি, ৬০ নং কাঞ্চনপুর বিধানসভা কেন্দ্র। আই পি এফ টি দলের নেতৃত্ব পাঁচটি আসনে রাজি হয়েছেন।

 তিনি আরো বলেন আগামী দিনে ভারতীয় জনতা পার্টি ও আই পি এফ টি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মাগ দর্শনে জনজাতিদের উন্নয়ন হবে বলে জানান। আইপিএফটি যুব সংগঠনের চেয়ারম্যান শুক্লাচরণ নোয়াতিয়া পাঁচটি আসনের মধ্যে একটি আসনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। তিনি হলেন ২৬ নং আশারাম বাড়ি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লড়াই করবেন জয়ন্তী দেববর্মা।  তিনি আরও জানান দেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব মেনে আইপিএফটি ২৬ আশারামবারি কেন্দ্রে প্রয়াত আইপিএফটি সুপ্রিমো এন.সি দেববর্মার মেয়েকে প্রার্থী করেছে। শুক্লাচরণ নোয়াতিয়া আরো জানান, আসন্ন নির্বাচনে জোটের মূল উদ্দেশ্য হলো জনজাতিদের সমস্যার সমাধান করা। কিন্তু এদিন তিপ্রাল্যান্ডের প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান তিনি। বর্তমানে আইপিএফটি তিপ্রাল্যান্ড সমর্থন করে কিনা সে বিষয়ে মুখ খুলেননি। এদিকে প্রদেশ বিজেপির সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্যী জানান, ভারতীয় জনতা পার্টি জানে জনজাতিদের উন্নয়ন করে রাজ্যের সার্বিক উন্নয়ন করা সম্ভব। তিনি বলেন গত পাঁচ বছর বিজেপি ও আইপিএফটি জোট সরকার উন্নয়নের স্বার্থে কাজ করেছে। কিন্তু একদিনের জন্য তিপ্রাল্যান্ড প্রসঙ্গে কথা বলে নি। আর গ্রেটার তিপরাল্যান্ড সমর্থন করে না বলে জানান তিনি। আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এদিন এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আইপিএফটি -র মুখপাত্র বিধান দেববর্মা, সাংসদ রেবতী ত্রিপুরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য