Wednesday, February 8, 2023
বাড়িরাজ্যবিজেপি বুঝতে পারছে ঠগবাজি করে সরকারে আসার আর কোন রাস্তা নেই :...

বিজেপি বুঝতে পারছে ঠগবাজি করে সরকারে আসার আর কোন রাস্তা নেই : সুদীপ

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৪ ডিসেম্বর :  ২০১৮ সালে মানুষ যখন দীর্ঘদিনের একগুয়েমী সরকারের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে চেয়েছিল, তখন মানুষকে নানা ভাবে ২৯৯ টি প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি সরকারে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু এতদিনে ২৯৯ টি প্রতিশ্রুতির মধ্যে একটি প্রতিশ্রুতিও ভারতীয় জনতা পার্টি সরকার সঠিকভাবে পালন করতে পারে না। শুধু নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার জন্য এই প্রতিশ্রুতি ছিল।

এ প্রতিশ্রুতি শুধু প্রতারণার দলিল, আর কিছু নয় বললেন বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন। শনিবার প্রদেশ কংগ্রেস ভবনের সামনে ১৬ দফা দাবিতে ত্রিপুরা সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের পক্ষ থেকে চার ঘণ্টার গণ অবস্থানে সুদীপ রায় বর্মন আরো বলেন, বিজেপি বুঝতে পারছে ঠগবাজি করে সরকারে আসার আর কোন রাস্তা নেই। সপ্তম বেতন কমিশনের যে প্রতিশ্রুতি ছিল তা পালন করতে পারেনি। ফলে কর্মচারী মহল ক্ষোভে ফুটছে। হয়তো আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে কয়েক শতাংশ মহার্ঘ ভাতা প্রদান করে আবার সরকারে আসতে চাইছে। তারপর আগামী পাঁচ বছর আর কোনরকম মহার্ঘ ভাতা তারা সরকারি কর্মচারীদের প্রদান করবে না। এমনটাই বললেন সুদীপ রায় বর্মন। তিনি বলেন কর্মসংস্কৃতি লাটে উঠেছে। সমস্ত উন্নয়নমূলক কাজ বন্ধ। দুর্নীতিতে নিমজ্জিত এই সরকার। আর এই পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে আসতে প্রয়োজন এই সরকারের পতন। আর আগামী বিধানসভা নির্বাচনের জন্য মানুষ প্রস্তুত হয়ে আছে। মানুষ সরকার তাকে পতন করে ছাড়বে বলে জানান শ্রী বর্মণ।

গ্রাম পাহাড়ে খাদ্য নেই, মানুষ অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। জিনিসপত্রের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্রয় ক্ষমতা মানুষের নাগালে বাইরে চলে গেছে। তাই এই অবস্থা থেকে স্বৈরাচারী সরকারকে পতন করে রাজ্যবাসীকে মুক্তি দিতে হবে বলে জানান সুদীপ রায় বর্মন। সুদীপ রায় বর্মন শাসক দলকে উৎখাত করতে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন রাজ্যের মানুষ চুপ করে বসে আছে। আর কয়েকদিন পর এই ফ্যাসিবাদী সরকারকে সরাতে কাতারে কাতারে রাস্তায় নামবে বলে জানান।

গণবস্থানে উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বীরজিৎ সিনহা, প্রাক্তন বিধায়ক আশীষ কুমার সাহা সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। উপস্থিত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, শিক্ষক কর্মচারীদের বঞ্চনার পরিপ্রেক্ষিতে যে ১৬ দফা দাবি নিয়ে গণ অবস্থানের সমর্থন করে প্রদেশ কংগ্রেস। গণ অবস্থানে রাজ্যের সমস্ত কর্মচারীবৃন্দকে এগিয়ে এসে দাবি পূরণের আহ্বান জানান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তিনি আরো জানান সরকারের প্রতিষ্ঠিত হলে কংগ্রেস সরকারি কর্মচারীদের স্বার্থে সপ্তম কেন্দ্রীয় বেতন কমিশনের রিপোর্ট অনুযায়ী বেতন কার্যকর করা হবে, বকেয়া ৩০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা প্রদান করা হবে। এছাড়াও যে দাবিগুলি রয়েছে সেগুলিও অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে পূরণ করা হবে বলে জানান তিনি।

প্রাক্তন বিধায়ক আশীষ কুমার সাহা জানান, বিজেপি সরকার সবচেয়ে বেশি প্রতারণা করেছে রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের সাথে। সপ্তম বেতন কমিশন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পালন করে নি, অনিয়মিত কর্মচারীদের জন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করে নি। এছাড়াও বিভিন্ন ভাবে বঞ্চনা করেছে। এবং আজকে এই গণ অবস্থান এরপরও সরকার কোন সাড়া দেবে না। যতক্ষণ না পর্যন্ত এ সরকার পরিবর্তন হবে। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে নতুন সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়ে সংগঠনের এই ১৬ দফা দাবি গুরুত্বারোপ করে পূরণ করবে বলে আশা ব্যক্ত করুন শ্রী সাহা। আয়োজিত গণ অবস্থানে এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি গোপাল রায় সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য