Wednesday, November 30, 2022
বাড়িরাজ্যগ্রেটার তিপরাল্যান্ড দাবি নিয়ে কোন আপোষ করবে তিপ্রা মথা : প্রদ্যোত

গ্রেটার তিপরাল্যান্ড দাবি নিয়ে কোন আপোষ করবে তিপ্রা মথা : প্রদ্যোত

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১২ নভেম্বর : স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশে অমৃত মহোৎসব পালন করা হচ্ছে। কিন্তু ত্রিপুরার তিপ্রাসাদের সাথে শুধু বঞ্চনা হয়েছে। চাকুরী নেই, রাস্তাঘাট নেই, পানীয় জল নেই, বিদ্যুৎ পরিষেবা নেই, স্কুল থাকলেও শিক্ষক নেই এবং হাসপাতাল থাকলেও চিকিৎসক নেই। চিকিৎসা পরিষেবার জন্য যেতে হচ্ছে জিবি হাসপাতাল, নাহলে বহির্রাজ্যে। সেই বঞ্চনার অবসান ঘটাতে অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছে তিপ্রাসারা।

 আর এর জন্যই সাংবিধানিক অধিকার গ্রেটার তিপরাল্যান্ড দাবি করা হচ্ছে। এটা কোন ভিক্ষা চাইছে না তিপ্রাসারা। চাইছে সাংবিধানিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে। এই দাবি নিয়ে কোন আপোষ চলবে না। শনিবার রাজধানীর স্বামী বিবেকানন্দ ময়দানে জনসমাবেশে কয়েক হাজার কর্মী সমর্থকে সামনে বক্তব্য রেখে এমনটাই বললেন তিপ্রা মথার সুপ্রিমো প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মন। তিনি বলেন, ত্রিপুরা রাজ্যে ২০১৮ সালের আগে চলো পাল্টাই এবং চলো উল্টাই যারা বলেছিল তারা কংগ্রেস থেকে বিজেপি’তে এসে কন্টাকটারি করেছেন। কিন্তু সেই নেতারাই এখন ক্ষমতায় বসে আছেন। তাই প্রত্যাশা তাদের কাছ থেকে করা যায় না। এমনটাই বললেন শ্রী দেববর্মন। সরকারে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগে ১০,৩২৩ -এর সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি, মিস কলে চাকুরি মিলবে বলে বেকারদের প্রতিশ্রুতি এবং রেগা মজুরি ৩৪০ টাকা করে দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল।

এখনো এর থেকে বঞ্চিত তিপ্রাসারা। এবং যারা দীর্ঘ চার থেকে সাড়ে চার বছর মন্ত্রী বিধায়ক হিসেবে আছেন তাদের হাতেও ক্ষমতা ছিল না। এই অধিকার একমাত্র সংবিধানে রয়েছে। যার ফলে প্রাক্তন মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া, বিধায়ক বৃষকেতু দেববর্মা, ধনঞ্জয় ত্রিপুরা দল ছেড়ে তিপ্রা মথায় যোগদান করেছেন। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে এ লড়াই লড়বে তিপ্রাসা বলে জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, রক্ত চাই না, চাই দু মাসের জন্য তিপ্রাসাদের থানসা। কারণ ২০২৩ হবে শেষ লড়াই। গোটা দেশ দেখবে তিপ্রাসাদের সাংবাদিক অধিকারের জন্য এই লড়াই। এবং দীর্ঘ ৭৫ বছরের বঞ্চনা মিটবে তিপ্রাসাদের বলে জানান তিনি। আরো বলেন ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে মথা এডিসিতে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর কোন বাঙালি আক্রমণের শিকার হয়নি এবং কোন সন্ত্রাস হয়নি পাহাড়ে। কারণ প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মন সস্তা রাজনীতি করে না বলে নিজের প্রশংসা করলেন তিনি। ত্রিপুরা রাজ্যে একপ্রকার ষড়যন্ত্র চলছে। মথার নেতৃত্বদের পয়সা দিয়ে ভোটের আগে কেনার চেষ্টা করবে। তাই সকল নেতৃত্ব যাতে সতর্ক থাকেন। যদি কেউ বিশ্বাসঘাতকতা করে তাহলে তিপ্রাসা তাদের ক্ষমা করবে না বলে হুশিয়ারি দেন প্রদ্যোত। তিনি এদিন প্রতিশ্রুতির স্বরূপ বলেন পাট্টা জমি জন্য মহকুমা শাসক অফিসে গিয়ে সকল তিপ্রাসা দরখাস্ত করার জন্য। ২০২৩ সালে লড়াইয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়ে পাট্টা জমির স্বপ্ন পূরণ করা হবে বলে জানান তিনি। এদিন প্রদ্যুৎ কিশোর দেব বর্মনকে দেখা যায় বক্তব্যের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শাসক দলকে আক্রমণ করতে। তবে এদিন প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মনের শক্তি প্রদর্শন আগামী দিনে কতটা মাইলেজ দেবে সেটাই বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। যাই হোক এদিন প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মনের বক্তব্য শুনে কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ছিল ব্যাপক উচ্ছ্বাস। সাথে উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গেছে সমাবেশে উপস্থিত সদ্য দলত্যাগী বিধায়ক মেবার কুমার জমাতিয়া সহ তিপ্রা মথার সভাপতি বিজয় রাঙ্খল ও এম ডি সি -দের।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

2 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য