Monday, December 5, 2022
বাড়িরাজ্যকংগ্রেস এবং বিজেপি'র সংঘর্ষে আহত বহু, পুড়লো কংগ্রেস অফিস, চললো গুলি

কংগ্রেস এবং বিজেপি’র সংঘর্ষে আহত বহু, পুড়লো কংগ্রেস অফিস, চললো গুলি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২ নভেম্বর : কংগ্রেস ও বিজেপির কর্মসূচি ঘিরে অগ্নিগর্ভ বিশালগড় রাউৎখলা। দুপক্ষের সংঘর্ষে চললো কয়েক রাউন্ড গুলি। গুরুতর আহত বেশ কয়েকজন। আক্রান্ত দমকল কর্মীও। উদ্বোধনের আগে পুড়ে ভূষ্মীভূত কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়। ঘটনা সূত্রে জানা যায় মঙ্গলবার সকালে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা রাউৎখলা এলাকায় আগামী ৬ নভেম্বর কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিকের কর্মসূচির জন্য প্রচারসজ্জা লাগায়।

 একই এলাকায় আগামী ৩ নভেম্বর কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয় উদ্বোধনের জন্য প্রচারসজ্জা দিয়ে সাজানো কাজ চলছিল গোটা এলাকায়। তখন প্রায় ৫০ থেকে ৬০ টি বাইক এসে কংগ্রেস কর্মীর সমর্থকদের উপর তিন রাউন্ড গুলি চালাতে শুরু করে। ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে রাস্তার পাশে লুটিয়ে পড়ে এক কংগ্রেস কর্মী। আহত কংগ্রেস কর্মীর নাম সিকান্দার আলী। খবর পেয়ে ছুটে আসে বিশালগড় থানার পুলিশ ও টি এস আর সহ আধা সামরিক বাহিনী। আহত কংগ্রেস কর্মীকে উদ্ধার করে পাঠানো হয় বিশালগড় মহকুমা হাসপাতালে।

 কিন্তু পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হতে শুরু করে। এলাকার গ্রামের প্রবেশ করে বাইক বাহিনী পুনরায় কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা শুরু করে। পাল্টা প্রতিরোধ করে কংগ্রেস কর্মী সমর্থক। দুই পক্ষের মধ্যে ছোড়া হয় পেট্রোল বোমা। আহত দুই দলেরই বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক। পরে একটা সময় বিজেপি দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে দেয় কংগ্রেসের নয়া দলীয় কার্যালয়ে। খবর পেয়ে ছুটে আসার সময় দমকল কর্মীদের উপর চলন্ত গাড়িতে লাঠি সাটা, লোহার রড এবং ধারালো অস্ত্র হামলা চালায় একদল দুর্বৃত্ত। রক্তাক্ত হয় এক দমকল কর্মী। সেই দমকল কর্মীকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় বিশালগড় মহকুমা হাসপাতালে। তারপরও পরিস্থিতি ক্রমশ উদ্বেগ জনক হয়ে উঠে। নিয়ন্ত্রণ আনতে এলাকায় মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত নিরাপত্তা কর্মী। পরে দমকল একটি ইঞ্জিন এনে কংগ্রেস অফিসের আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে। কংগ্রেসকর্মী সমর্থকরা শেষ পর্যন্ত আগরতলা সাব্রুম জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বসে। পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার হয় করা হয়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা এবং জয়দীপ বর্মন দাবি করেন বিশালগড় বাইপাস এলাকায় বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টার সময় নয়া কংগ্রেস কার্যালয়টি উদ্বোধন হওয়ার নির্ধারণ করা হয়।

 সে মোতাবেক বুধবার সকালে প্রচারসজ্জা এলাকায় লাগানোর কাজ চলছিল। তখন বিজেপির মন্ডল সভাপতি সুশান্ত দেবের নেতৃত্বে মন সাহা, রাজেশ সাহা গুলি চালায়। পরে কংগ্রেসকর্মী সমর্থকদের রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করে। ঘটনায় গুরুতর আহত হয় কংগ্রেস কর্মী সিকান্দার আলী। সিকান্দার আলী অবস্থা গুরুতর হওয়ায় বিশালগড় মহকুমা হাসপাতাল থেকে জিবি হাসপাতালে রেফার করা হয়। বিজেপি এ ধরনের কার্যকলাপের মূল উদ্দেশ্য হলো তাদের পায়ের নিচে জমি সরে গেছে। এদিনের ঘটনা ছিল পূর্বপরিকল্পিত। কারণ গত কয়েকদিন আগে সোনামুড়া মহকুমা ধনপুরের ব্ল্যাক লেডি এসে কর্মী সমর্থকদের সাথে সলা পরামর্শ করে ছক কষছে। আর এরই ঘটনা আজকে সংগঠিত করেছে বিজেপির দুর্বৃত্তরা বলে অভিযোগ তুলেন জয়দীপ বর্মন। এদিকে বিজেপি মন্ডল সভাপতি সুশান্ত দেবের অভিযোগ, কংগ্রেসের এটা পরিকল্পিত সন্ত্রাস। কংগ্রেসের নাম ভাঙিয়ে বিশালগড়ের কিছু সমাজদ্রোহী এদিন বিজেপি প্রচার সজ্জা নষ্ট করেছিল। আগামী ৬ নভেম্বর বিশালগড়ে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিকের ওয়ান নাইট, ওয়ান মন্ডল কার্যক্রম রয়েছে। এর জন্য এদিন সকালে পতাকা লাগানো হয়েছিল। কিন্তু কংগ্রেস সেই পতাকা নষ্ট করে ফেলে। এর প্রতিরোধ করেছে গ্রামবাসী।

যাই হোক দুপক্ষের পক্ষ থেকে অভিযোগ ছোঁড়া হয়ে একে অপরের দিকে। থানায় মামলা হয় পাল্টাপাল্টি। পুলিশ স্বতঃস্ফূর্ত মামলা হাতে নিয়ে তদন্তে নেমেছে। কিছু ভিডিও ফুটেজ দেখে পুলিশ দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করা শুরু করেছে। এদিনের ঘটনায় এলাকার দোকানপাট সমস্ত কিছু বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি বর্তমানে থমথম।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য