Sunday, October 2, 2022
বাড়িরাজ্যজে আর বি টি অফিসে বেকার যুবক-যুবতীদের বিক্ষোভ

জে আর বি টি অফিসে বেকার যুবক-যুবতীদের বিক্ষোভ

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৯ সেপ্টেম্বর :  বর্তমান সরকার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সময় প্রতিশ্রুতি ছিল বছরে ৫০ হাজার চাকরি প্রদান করার। সরকার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সাড়ে চার বছর অতিক্রান্ত হয়ে গেল প্রতিশ্রুতি পূরণের ছিটেফোটাও দেখেনি রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীরা। শেষ পর্যন্ত সরকারি দপ্তরের দরজার কড়া নেড়ে বলতে হচ্ছে স্বাধীনতা অমৃত যুগে বেকাররা বঞ্চিত কেন ? কেন অবহেলিত ? কিন্তু বেকারদের চাকরি কোথায় ? সরকারের কাছে বেকারদের আবেদন চাকুরি দাও, না হলে বিষ দাও। এমনটাই হতাশাজনক চিত্র ফুটে উঠেছে শুক্রবার জে আর বি টি অফিসে। সরকারি দপ্তর গুলিতে শূন্য পদ পূরণ করার জন্য এক বছর আগে জে আর বি টি -র মাধ্যমে লিখিত পরিক্ষা হয়। বিভিন্ন দপ্তরে গ্রুপ সি এবং গ্রুপ ডি পদে শূন্য পদ পূরণ করা হবে বলে। কিন্তু পরীক্ষা সংঘটিত হওয়ার পর দুজন কোভিডের জন্য জে আর বি টি -র পরীক্ষায় বসতে পারেনি বলে মামলা ত্রিপুরা হাইকোর্টে। তারপর হাইকোর্ট জে আর বি টি ফল প্রকাশ স্থগিত রাখার জন্য নির্দেশ দেয় রাজ্য সরকারকে। গত ২৩ আগস্ট উচ্চ আদালত সেই অন্তর্বর্তী মামলা তুলে দেয়। এবং এখন সরকার যেকোনো সময় ফলাফল ঘোষণা করতে পারে। কিন্তু কয়েকদিন অতিক্রান্ত হয়ে গেল ফলাফল ঘোষনা করছে না সংশ্লিষ্ট দপ্তর কর্তৃপক্ষ। তাই এদিন বেকার যুবক যুবতীরা দপ্তরের অফিসে গিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। তাদের আরো অভিযোগ কিছুদিন পর পর দপ্তরের চেয়ারম্যানের দ্বারস্থ হলেও ঘুম ভাঙছে না তাদের। এই পরীক্ষায় এক লক্ষ একুশ হাজার চাকুরী প্রত্যাশী যুবক-যুবতী অংশগ্রহণ করে। এর জন্য ফর্ম পূরণ করতে কয়েক শতাধিক টাকা ব্যয় হয়েছে বেকারদের। সুতরাং কোটি কোটি টাকা কামাই করা হয়েছে এই পরীক্ষার নাম করে। এখন ফলাফল প্রকাশ করছেনা সংশ্লিষ্ট দপ্তর। গত ২৯ শে আগস্ট যখন ডেপুটেশন প্রদান করতে আসে তখন সাত দিনের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত ফলাফল প্রকাশের কোন উদ্যোগ নেই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের। দপ্তরের এ ধরনের প্রতি প্রকৃতিতে চরম হতাশায় ভুগছে বেকার যুবক যুবতীরা। তারা জানান পুলিশ দিয়ে তাদের আন্দোলন রুখে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তাই পুলিশের কাছে দাবি জানানো হচ্ছে বেকার মুখ নিয়ে তারা বাড়ি ফিরতে পারছে না। তাই লাকি পেটা না করে মাথায় গুলি করার জন্য বলল হতাশা গ্রস্ত এক বেকার যুবক।

শেষ পর্যন্ত বেকার হতাশাগ্রস্ত যুবক-যুবতীরা জে আর বি টি অফিসে বসে পড়ে। তারা দাবি জানায় দ্রুত ফলাফল প্রকাশ করার জন্য। জে আর বি টি বোর্ডের কোন আধিকারিক তাদের সাথে দেখা করতে আসে নি। পরিশেষে পরিস্থিতি উত্তেজিত হয়ে উঠলে পুলিশ যুবক যুবতীদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ লাইন মাঠে নিয়ে যায়। বেকার যুবক-যুবতীদের বক্তব্য জে আর বি টি বোর্ড একটা অপদার্থ বোর্ড। দীর্ঘ এক বছরের অধিক সময় অতিক্রান্ত হয়ে গেল ফলাফল প্রকাশ করতে পারেনি। এ ধরনের ব্যর্থতার পরিচয় হয়তো ভূ-ভারতে নজির বিহীন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য