Wednesday, August 17, 2022
বাড়িরাজ্যসাম্প্রদায়িক হিংসার মিথ্যা ও ভুয়ো খবর প্রচারের দায়ে গ্রেফতার দুই তরুণী সাংবাদিকের...

সাম্প্রদায়িক হিংসার মিথ্যা ও ভুয়ো খবর প্রচারের দায়ে গ্রেফতার দুই তরুণী সাংবাদিকের শর্তাধীন জামিন মঞ্জুর

আগরতলা, ১৫ নভেম্বর (হি. স.) : ত্রিপুরায় কথিত সাম্প্রদায়িক হিংসার মিথ্যা ও ভুয়ো খবর প্রচারের দায়ে গ্রেফতার দিল্লি-ভিত্তিক দুই যুবতী সাংবাদিককে আজ সোমবার শর্তাধীন জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত। গতকাল অসমের করিমগঞ্জ জেলার অন্তর্গত নিলামবাজার থানার পুলিশ দুই তরুণী সাংবাদিককে আটক করেছিল। এর পর ভোররাতে ত্রিপুরা পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে রাজ্যে নিয়ে এসেছিল। আজ তাঁদের গোমতি জেলা মুখ্য বিচারবিভাগীয় আদালতে সোপর্দ করেছিল পুলিশ। আদালত তাঁদের জামিন মঞ্জুর করেছে।

দিল্লি-ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল এইচডব্লিউ নিউজ নেটওয়ার্কের ওই দুই তরুণী সাংবাদিক সমৃদ্ধি কে সকুনিয়া এবং স্বর্ণা ঝা ৭৫ হাজার টাকা করে ব্যক্তিগত বন্ড এবং আগামীকাল মঙ্গলবার কাঁকড়াবন থানায় হাজিরা দেওয়ার পর মুক্তি পাবেন। এদিকে, তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী ওই দুই সাংবাদিককে রাজনৈতিক দলের দোসর বলে মন্তব্য করেছেন।

জানা গেছে, ত্রিপুরায় তথাকথিত সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সম্পর্কিত খবর সংগ্রহ করতে গত বৃহস্পতিবার এসেছিলেন সমৃদ্ধি এবং স্বর্ণা। এখানে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের উসকানি দিয়ে বিশ্বহিন্দু পরিষদের বিরুদ্ধে তাঁদের মুখ থেকে মিথ্যা বক্তব্য বের করার অপচেষ্টা করেছিলেন বলে উভয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ। ইত্যবসরে ত্রিপুরায় তাঁদের বিরুদ্ধে ধর্মের নামে জনতাকে উসকানো এবং অপরাধজনিত ষড়যন্ত্র রচনার দায়ে উত্তর ত্রিপুরা জেলার ফটিকরায় থানায় এবং গোমতি জেলার কাঁকড়াবন থানায় মামলা রুজু হয়েছে।

এরই মধ্যে পুলিশের কাছে খবর যায়, এঁরা ত্রিপুরা থেকে দিল্লির উদ্দেশে পালিচ্ছেন। এই খবরের ভিত্তিতে গোমতির পুলিশ সুপার যোগাযোগ করেন অসমের করিমগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপারের সঙ্গে। করিমগঞ্জের পুলিশ সুপার ত্রিপুরা-অসম জাতীয় সড়ক সংলগ্ন সব থানাকে সতর্কবার্তা পাঠিয়ে ফেক খবর ছড়ানোকারিণী দুই সাংবাদিককে ধরতে নির্দেশ দেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রবিবার নিলামবাজার থানা কর্তৃপক্ষ দলবল নিয়ে জাতীয় সড়কে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে তাঁদের আটক করেন। ত্রিপুরা পুলিশ তাঁদের অসম থেকে ত্রিপুরায় নিয়ে আসে এবং দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর উভয়কে গ্রেফতার করে।

তাঁদের বিরুদ্ধে কাঁকড়াবন থানায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ, ১৫৩বি, ১৯৩, ৫০৪, ২০৪ এবং ১২০বি ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। মামলা নম্বর ৮২/২০২১। এ-বিষয়ে তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন, ত্রিপুরায় শান্তি-সম্প্রীতি নষ্ট করার বদ্–উদ্দেশ্যে ওই দুই সাংবাদিক রাজ্যে এসেছেন। ত্রিপুরাকে বদনাম করার জন্য রাজনৈতিক দলের ইন্ধনে মিথ্যা খবর রটিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার অপচেষ্টা করেছেন তাঁরা।

সুশান্তবাবু বলেন, গত ১১ নভেম্বর সমৃদ্ধি কে সকুনিয়া এবং স্বর্ণা ঝা ত্রিপুরায় আসেন এবং তাঁরা উনকোটি জেলায় গিয়ে সংখ্যালঘু মানুষদের কাছে উস্কানিমূলক বক্তব্য রেখেছেন। তাঁরা নিজেদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকেও মিথ্যা খবর ছড়িয়েছেন। তাই তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় পুলিশ দুজনকে সহযোগিতা করতে বলেছিল। কিন্তু সহযোগিতা করার বদলে পালিয়ে যেতে চেয়েছিলেন তাঁরা।

তথ্য মন্ত্রী দৃঢ়তার সাথে বলেন, ত্রিপুরার মসজিদে আগুন কিংবা ভাঙচুর এবং সংখ্যালঘু অংশের মানুষকে মারধরের কোনও ঘটনাই ঘটেনি। অথচ সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ত্রিপুরায় ঢুকে ওই দুই সাংবাদিক মিথ্যা ও অসত্য খবর প্রচার করেছেন। তাঁর দাবি, ওই দুই সাংবাদিক রাজনৈতিক দলের দোসর হিসেবে ত্রিপুরায় এসেছেন। তাঁরা ত্রিপুরাকে লণ্ডভণ্ড করতে চাইছেন। তিনি প্রশ্ন তুলেন, তাঁরা কোনও অন্যায় না করে থাকলে পুলিশের ডাকে ভয় পেয়েছেন কেন? আগরতলা দিয়ে বিমানে দিল্লি যাওয়ার বদলে অসমে কেন পালিয়ে গেছেন?

এদিকে, আজ গোমতি জেলা মুখ্য বিচারবিভাগীয় আদালত ওই দুই সাংবাদিককে ৭৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন মঞ্জুর করেছে। পুনরায় তাঁদের হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। শুধু তা–ই নয়, আগামীকাল তাঁদের কাঁকড়াবন থানায় হাজিরা দিতে হবে। পাশাপাশি, ওই মামলায় পুলিশকে দ্রু

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য