Tuesday, October 4, 2022
বাড়িরাজ্যশিক্ষামন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ টেট উত্তীর্ণদের, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ

শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ টেট উত্তীর্ণদের, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২০ আগস্ট : শনিবার সকালে আচমকা অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি হয়ে উঠে শিক্ষামন্ত্রীর বাসভবন চত্বর। টেট উত্তীর্ণ যুবক-যুবতীরা এদিন সকালে শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ি ঘেরাও করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পশ্চিম থানার পুলিশ। পুলিশ মন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক অবরোধ তুলতে বললে যুবক-যুবতীরা অবরোধ প্রত্যাহার করেনি এবং শিক্ষামন্ত্রী বাড়ির সামনে রাস্তায় বসে পড়েন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে শুরু করলে সৃষ্টি হয় রণক্ষেত্র।

 পুলিশ এবং উত্তেজিত যুবক-যুবতীদের মধ্যে শুরু হয় ধস্তাধস্তি। শেষ পর্যন্ত পুলিশ লাঠি উঁচিয়ে গ্রেফতার করে বিক্ষোভ কারী যুবক যুবতীদের। কিন্তু সেই মুহূর্তে ঘটনাস্থলে হাজির হন বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বীরজিৎ সিনহা, প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি গোপাল রায় সহ অন্যান্য কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দ। পুলিশের সাথে দীর্ঘক্ষণ আলোচনার পর গ্রেপ্তার হওয়া যুবক-যুবতীদের গাড়ি থেকে নামিয়ে আনার ব্যবস্থা করেন কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ। কথা বলেন বিক্ষোভকারী যুবক-যুবতীদের সাথে। বিক্ষোভকারী যুবক-যুবতীরা বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মনকে কাছে পেয়ে জানান, ২০২১ সালে টেট পরীক্ষা গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট দপ্তর। কিন্তু টেট উত্তীর্ণ যুবক যুবতীদের নিয়োগ করার ইতিবাচক কোন ভূমিকা নেই রাজ্য সরকারের। রাজ্যে মোট ৩,৬৩১ জন টেট পরীক্ষায় ২০২১ সালে উত্তীর্ণ হলে মাত্র ৫৭৬ জনকে নিয়োগ করার অনুমোদন দিয়েছে সরকার। আর কয়েক মাস পর এক বছর অতিক্রান্ত হয়ে যেতে বসেছে, সরকার যুবক যুবতীদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে শুরু করেছে। এখন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে এ বিষয়ে জানতে আসলে পুলিশ দিয়ে অপরাধীর মতো টেনে গ্রেফতার করা হচ্ছে। এবং জেলে আটকানোর হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে বলে তাদের অভিযোগ। কিন্তু অভিযোগকারীদের আরো প্রশ্ন রাজ্য সরকার কি চোখে দেখছে না কেন এভাবে আন্দোলন সংঘটিত করা হচ্ছে, পুলিশ দিয়ে অমানবিকভাবে ধস্তাধস্তি করছে বলে অভিযোগ তুলেন যুবতীরা। এবং তাদের অভিযোগ এদিন যারা মহিলা বিক্ষোভকারী ছিলেন তাদের সাথে পুরুষ পুলিশ ধস্তাধস্তি করেছে। তারা শরীরে আঘাত পেয়েছে। এর তীব্র নিন্দা জানিয়ে তদন্তের দাবি করে তারা।

বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন যেদিন শিক্ষামন্ত্রীর সাথে দেখা করে বের হয়ে বলেন, সরকার একেক সময় একেক কথা বলছে। আন্দোলনরত যুবক-যুবতীদের সোনালী ভবিষ্যৎ রয়েছে। তাদের সাথে জড়িত রয়েছে ছাত্রসমাজ। সরকার তাদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করছে না। তাই রাজ্য সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে সরকারের এ ধরনের গাফিলতি করা ঠিক নয়। শিক্ষামন্ত্রী আগে বলেছিলেন রাজ্যে টেট উত্তীর্ণ যুবক যুবতী নেই নিয়োগ করার জন্য। আর এখন যখন তারা টেট উত্তীর্ণ হয়ে বসে আছে তাদের নিয়োগ করা হচ্ছে না। এখন তারা শিক্ষা দপ্তর এবং অর্থ দপ্তর একে অপরের উপর দায়ভার চাপিয়ে যুবক-যুবতীদের গ্যারাকালে ফাঁসিয়ে দিচ্ছে। তাই সরকারের কাছে দাবি জানানো হচ্ছে যেন অবিলম্বে প্রতিশ্রুতি পালন করে। আর না হলে এই ঠকবাজদের কাছ থেকে জোর করে আদায় করতে হবে বলে জানান সুদীপ রায় বর্মন।

শিক্ষামন্ত্রী সাথে দেখা করে বের হয়ে টেট উত্তীর্ণ যুবক যুবতীরা জানান, তাদের আশ্বস্ত করা হয়েছে আগামী দুর্গাপূজার আগেই পর্যায়ক্রমে নিয়োগ করা হবে বলে জানান বিক্ষোভকারী টেট উত্তীর্ণ যুবক-যুবতীরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য