Wednesday, July 24, 2024
বাড়িজাতীয়ভয়াবহ হিংসায় উত্তাল হয়ে উঠল ওড়িশার বালেশ্বর !

ভয়াবহ হিংসায় উত্তাল হয়ে উঠল ওড়িশার বালেশ্বর !

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক,  ১৮ জুন :  বকরি ইদে গরু কুরবানি দেওয়া হয়েছে, মুসলিম সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ তুলে ভয়াবহ হিংসায় উত্তাল হয়ে উঠল ওড়িশার বালেশ্বর। পরিস্থিতি এতটাই গুরুতর আকার নিয়েছে যে ওই এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করার পাশাপাশি কার্ফু জারি করেছে প্রশাসন। মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল সংখ্যক পুলিশ বাহিনী।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বালেশ্বরের পাত্রপাড়া এলাকায় হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের সংখ্যা প্রায় সমান সমান। সোমবার এই এলাকায় হিন্দু সম্প্রয়াদের স্থানীয় কয়েকজন দেখেন রক্তে লাল হয়ে গিয়েছে এলাকার নিকাশি নালা। যা দেখে সন্দেহ হয় তাঁদের। বকরি ইদেএলাকায় গোহত্যা হয়েছে সন্দেহ করেন হিন্দুরা। এলাকার কয়েকজন মুসলিম পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে চড়াও হয় তারা। মুহূর্তের মধ্যে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। একে অপরকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ে দুই সম্প্রদায়। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে এলে হিংসা আরও ভয়াবহ আকার নেই। জানা গিয়েছে, এই হিংসায় ১৫ জন আহত হয়েছেন যাঁদের মধ্যে রয়েছেন ৫ পুলিশকর্মীও। পরিস্থিতি সামাল দিতে জেলা প্রশাসনের তরফে ১৪৪ ধারা জারি করা হয় এলাকায়।

তবে তাতে কাজ হয়নি। সোমবার রাতে পরিস্থিতি আরও গুরুতর আকার নেয়। ইট, পাথর, কাঁচের বোতল নিয়ে দুই সম্প্রদায়ের লোক হামলা চালায় একে অপরের বাড়িতে। হিংসা ছড়িয়ে পড়ে গোলাপোখারি, মোতিগঞ্জ ও সিনেমাচক এলাকায়। এই সব জায়গায় একাধিক গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। আগুন ধরানো হয় একাধিক বাড়িতে। পরিস্থিতি সামাল দিতে শূন্যে গুলি ছুড়তে হয় পুলিশকে। বালেশ্বরের পুলিশ সুপার সাগরিকা নাথ বলেন, ‘হিংসা যাতে না ছড়ায় তার জন্য বালেশ্বরের শহর এলাকায় আমরা কার্ফু জারি করেছি। গুজব ছড়ানো আটকাতে ইন্টারনেট পরিষেবাও বন্ধ করা হয়েছে। কেউ যাতে বাড়ির না বের না হন তার জন্য মাইকিং করা হচ্ছে গোটা এলাকায়।’ হিংসা ছড়ানোর ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

উল্লেখ্য, বিজেডির নবীন সরকারের পতনের পর সম্প্রতি বিজেপি সরকার গঠিত হয়েছে ওড়িশায়। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন মোহন মাঝি। তার পরই এই হিংসার ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ছে। সাধারণ মানুষের কাছে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়ে নয়া সরকার। এই ঘটনার পর এলাকাবাসীকে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন বালেশ্বরের বিজেপি সাংসদ প্রতাপ সারেঙ্গি ও বিধায়ক মানস কুমার দত্ত।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য