Tuesday, February 27, 2024
বাড়িজাতীয়মণিপুরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মায়ানমার সীমান্ত সিল করছে কেন্দ্র !

মণিপুরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মায়ানমার সীমান্ত সিল করছে কেন্দ্র !

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ২০ জানুয়ারি: মণিপুরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মায়ানমার সীমান্ত সিল করছে কেন্দ্র। শনিবার একথা জানিয়েছেন খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জানা গিয়েছে, গত তিন মাসে ৬০০-এর বেশি মায়ানমার সেনা সীমান্ত পেরিয়ে উত্তর-পূর্বের রাজ্যে আশ্রয় নিয়েছেন। মায়ানমার থেকে সীমান্ত এলাকায় এই গতিবিধি রুখতেই এবার কঠোর পদক্ষেপ করতে চলেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

মণিপুর ও মিজোরাম লাগোয়া মায়ানমার। দুই রাজ্যেই সীমান্তবর্তী। ‘ল্যান্ড বর্ডার ক্রসিং’ লাগোয়া মোরে শহর। দুই দেশের আদিবাসীরা ১২ কিলোমিটার পর্যন্ত ভিসা ছাড়া স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ২০ জানুয়ারি: যাতায়াত করতে পারেন। এবার সেই অবাধ যাতায়াতে লাগাম টানতে চায় কেন্দ্রীয় সরকার। এ প্রসঙ্গে এদিন অসমে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়েছেন, “বাংলাদেশ সীমান্তের মতোই নিরাপত্তার চাদরে মুড়বে মায়ানমার সীমান্তও।” শীঘ্রই মায়ানমার সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে ঢুকতে সে দেশের আদিবাসীদের ভিসার প্রয়োজন হবে। শেষ হবে ১৯৭০-এর ‘ফ্রি মুভমেন্ট রেজিম’ চুক্তি।

গত ৩ মে মণিপুরে শুরু হয় মেতেই-কুকি জাতিদাঙ্গা। সরকারি পরিসংখ্যান অনুয়ায়ী, প্রায় শ-দুয়েক মানুষের মৃত্যু হয়েছে গত ৭ মাস ধরে চলা অশন্তির জেরে। এক হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন। নিখোঁজ ৩২ জন। প্রায় লাখ খানেক মানুষ ঘরছাড়া। দুষ্কৃতীরা পাঁচ হাজার বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। ৩৮৬টি ধর্মীয়স্থানে হামলা হয়েছে বলে খবর। অশান্তি আগের তুলনায় কমলেও নতুন বছরে স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরতে পারেনি উত্তপূর্বের রাজ্য।

সেনাকর্তাদের মতে, প্রথমত মণিপুরে অশান্তির শিকড় রয়েছে আসলে মায়ানমারে। কীভাবে? সেনাকর্তার বক্তব্য, মায়ানমার গৃহযদ্ধের প্রভাব পড়ছে মিজোরাম এবং মণিপুর দুই রাজ্যেই। সংঘর্ষ না থামার দ্বিতীয় কারণ, মেতেই ও কুকি দুই গোষ্ঠীর কাছে রয়েছে প্রচুর হাতিয়ার।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য