Wednesday, July 24, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদহুতিরা দ্বিতীয় আরেকটি জাহাজ ‘ডুবিয়ে দিয়েছে’

হুতিরা দ্বিতীয় আরেকটি জাহাজ ‘ডুবিয়ে দিয়েছে’

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ১৯ জুন: ইয়েমেনের ক্ষমতাসীন হুতিদের সামরিক বাহিনী লোহিত সাগরে ‘টিউটর’ নামের দ্বিতীয় আরেকটি জাহাজ ডুবিয়ে দিয়েছে, এমন ধারণা করা হচ্ছে বলে যুক্তরাজ্যের মেরিটাইম ট্রেড অপারেশন্স (ইউকেএমটিও) জানিয়েছে।এর আগে ইউকেএমটিও, হুতি ও অন্যান্য মাধ্যমগুলো জানিয়েছিল, গ্রিসের মালিকানাধীন কয়লাবাহী টিউটর ১২ জুন ক্ষেপণাস্ত্র ও বিস্ফোরকভর্তি দূরনিয়ন্ত্রিত নৌকার আঘাতে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয় ও জাহাজটিতে পানি উঠতে শুরু করে।এক সতর্ক বার্তায় ইউকেএমটিও বলেছে, “সামরিক কর্তৃপক্ষ (টিউটরের) শেষ কথিত অবস্থানে সামুদ্রিক আবর্জনা ও তেল দেখতে পেয়েছে।”এ বিষয়ে টিউটর জাহাজের ব্যবস্থাপকের মন্তব্য জানতে রয়টার্সের পক্ষ থেকে তার সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

হামলার পর থেকে টিউটরের এক ক্রু নিখোঁজ রয়েছেন। তিনি জাহাজটির ইঞ্জিন রুমে কাজ করতেন বলে ধারণা।ইরান সমর্থিত হুতিরা ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে নভেম্বর থেকে লোহিত সাগর অঞ্চলে ইসরায়েল ও ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্কিত অথবা গাজা যুদ্ধে ইসরায়েলকে সমর্থন দেওয়া দেশগুলোর জাহাজ লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছে।হুতিদের হামলায় ডুবে যাওয়া প্রথম জাহাজটি ছিল যুক্তরাজ্যের মালিকানাধীন ‘রুবিমার’। হুতিদের ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার প্রায় দুই সপ্তাহ পর ২ মার্চ জাহাজটি ডুবে যায়।

টিউটরের সম্ভাব্য ডুবে যাওয়ার বিষয়ে ইউকেএমটিও-র প্রতিবেদনটি এল লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী জাহাজটিকে হুতিরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করার এক সপ্তাহ পর। ওই একই সময় হুতিরা পালাউয়ের পতাকাবাহী কাঠের নির্মাণ সামগ্রি দিয়ে ভরা জাহাজ ভারবেনায়ও হামলা চালিয়েছিল।হামলার সময় ভারবেনায় আগুন ধরে যায়। এর নাবিকরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে না পেরে জাহাজটি ছেড়ে চলে যান। তারপর থেকে ভারবেনা পরিত্যাক্ত অবস্থায় এডেন উপসাগরে ভেসে চলছে, এটিও ডুবে যেতে পারে।গত বছরের নভেম্বর থেকে হুতিরা এ পর্যন্ত অন্তত একটি জাহাজ জব্দ করেছে আর তাদের পৃথক হামলায় তিন নাবিক নিহত হয়েছেন।

হুতিদের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার কারণে জাহাজ কোম্পানিগুলো সুয়েজ খালের রুট এড়িয়ে আরও অনেক দূর দিয়ে আফ্রিকা ঘুরে গন্তব্যে মালামালবাহী জাহাজ পাঠাচ্ছে। এতে মালামাল আনা-নেওয়ায় সময় বেশি লাগার পাশাপাশি খরচও অনেক বেড়ে গেছে।সোমবার মার্কিন ও ব্রিটিশ বাহিনী ইয়েমেনের হোদেইদাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও দেশটির লোহিত সাগরীয় উপকূলের সালিফ বন্দরের নিকটবর্তী কামারান দ্বীপের বিমান হামলা চালিয়েছে।রোববার হুতিরা জানিয়েছিল, তারা একটি মার্কিন যুদ্ধজাহাজসহ আরও দুটি বেসামরিক জাহাজে হামলা চালিয়েছে। হুতিদের সামরিক মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি জানান, মার্কিন ডেস্ট্রয়ারটি লক্ষ্য করে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে তারা।এসব হামলার জবাবেই যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য ইয়েমেনে বিমান হামলা চালিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য