Sunday, June 23, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদদক্ষিণ আফ্রিকায় ভোট গণনা চলছে, এএনসির সামনে চ্যালেঞ্জ

দক্ষিণ আফ্রিকায় ভোট গণনা চলছে, এএনসির সামনে চ্যালেঞ্জ

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ৩০ মে; দক্ষিণ আফ্রিকার সাধারণ নির্বাচনে গতকাল বুধবার ভোট দিয়েছেন ভোটাররা। এখন ভোট গণনা চলছে। গণনা শেষে চূড়ান্ত ফল সপ্তাহান্তে জানা যেতে পারে। এবারের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস (এএনসি) গত তিন দশকের মধ্যে প্রথমবার পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোর আশঙ্কার মধ্যে পড়েছে।১৯৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণবাদের অবসানের পর থেকে গতকাল দেশটিতে সপ্তম গণতান্ত্রিক সাধারণ নির্বাচন হয়েছে। ১৯৯৪ সালের নির্বাচনে নেলসন ম্যান্ডেলা জাতীয় পরিষদে ৬২ দশমিক ৫ শতাংশ ভোট পেয়ে এএনসি দল থেকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু বিশ্লেষকেরা বলছেন, এবারের নির্বাচনে ম্যান্ডেলার উত্তরসূরিরা বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন।

চূড়ান্ত ফল জানতে সপ্তাহান্তে পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলেও পর্যবেক্ষকেরা ভোটদানের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে সম্ভাব্য ফল অনুমান করার চেষ্টা করছেন। বলা হচ্ছে, ৫০ শতাংশের কম ভোট পেয়ে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালে বর্তমান প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসাকে সরকার গড়তে জোটসঙ্গী খুঁজতে হতে পারে।গতকাল ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার নির্ধারিত সময় রাত ৯টার অনেক পরেও বিভিন্ন শহরে কেন্দ্রের বাইরে ভোটারদের লম্বা সারি দেখা গেছে। এ বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার নির্বাচন কমিশন দ্য ইনডিপেনডেন্ট ইলেকটোরাল কমিশন (আইইসি) বলছে, বিভিন্ন শহরে শেষ মুহূর্তে অনেক ভোটার কেন্দ্রে এসেছেন। তাই ভোট গ্রহণ শেষ হতে সময় বেশি লেগেছে। যদিও ভোটকেন্দ্রে অনেক ভোটার অভিযোগ করেছেন, তিনটি ব্যালটে ভোট দিতে হয়েছে। এটা বেশ জটিল একটি প্রক্রিয়া ছিল।

আইইসির প্রধান সাই মামাবোলো সাংবাদিকদের বলেন, অনেক বেশি ভোটারের চাপ সামাল দিতে হয়েছে আমাদের। এবার মোট ভোটার উপস্থিতি ২০১৯ সালের নির্বাচনের সময়কার ৬৬ শতাংশের বেশি হতে পারে।আইইসি আরও জানিয়েছে, এবারের নির্বাচনে ৭০টি রাজনৈতিক দল এবং স্বতন্ত্রসহ মোট ১৪ হাজার ৮৮৯ জন প্রার্থী অংশ নিয়েছেন। বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকার পার্লামেন্টে ৪০০ আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আসন ২৩০টি রয়েছে এএনসির। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন বা দেশটির বিরোধী দল হচ্ছে ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স। তাদের আসন ৮৪টি। এর বাইরে ইকোনমিক ফ্রিডম ফাইটার্সের আসন ৪৪টি। ইনকাথা ফ্রিডম পার্টির আসন ১৪টি। অন্য ১০টি দলের ২৮টি আসন রয়েছে।

জনমত জরিপ অনুযায়ী, এবারের নির্বাচনে সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার নতুন রাজনৈতিক দল উমখুনটো উই সিজ (এমকে পার্টি) ঐতিহ্যবাহী এএনসির বেশ কিছু আসন পাবে। কিন্তু তারপরও এএনসি যদি ৫০ শতাংশ আসন বা ২০১টি আসন পায়, তবে সিরিল রামাফোসা দ্বিতীয় মেয়াদে আবার পাঁচ বছরের জন্য প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবেন।কিন্তু জনমত জরিপে তাদের ভোট পাওয়ার সম্ভাবনা ৪০ শতাংশ। সে ক্ষেত্রে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেও জোট সরকার গড়ে ক্ষমতায় আসতে পারবে সিরিল রামাফোসার এএনসি।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য