Sunday, December 4, 2022
বাড়িবিশ্ব সংবাদকোভিড টিকার চতুর্থ ডোজও ওমিক্রন প্রতিরোধে যথেষ্ট নয়: গবেষণা

কোভিড টিকার চতুর্থ ডোজও ওমিক্রন প্রতিরোধে যথেষ্ট নয়: গবেষণা

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৮ জানুয়ারি। টিকার তৃতীয় ডোজের তুলনায় চতুর্থ ডোজ মানবদেহে আরো উচ্চমাত্রায় অ্যান্টিবডি তৈরি করলেও তা করোনাভাইরাসের দ্রুত সংক্রামক ধরণ ওমিক্রন প্রতিরোধে সক্ষম নয় বলে সম্প্রতি ইসরায়েলের এক প্রাথমিক গবেষণায় দেখা গেছে।

ইসরায়েলের শেবা মেডিকেল সেন্টার তাদের কর্মীদের পরীক্ষামূলকভাবে করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় বুস্টার ডোজ দিয়েছে।হাসপাতালটি তাদের ১৫৪ জন কর্মীকে ফাইজারের চতুর্থ ডোজ দিয়ে দুই সপ্তাহ পর এবং ১২০ জনের একটি দলকে মডার্নার চতুর্থ ডোজ দিয়ে এক সপ্তাহ পর তাদের শরীরে কি পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে তা গবেষণা করে দেখছে। হাসপাতালটির সংক্রামক ব্যাধি ইউনিটের পরিচালক গিলি রেগেভ-ইয়োচাই একথা জানিয়েছেন।

দ্বিতীয় বুস্টার ডোজ বা টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হয়নি এমন একটি দলের সঙ্গে তাদের অ্যান্টিবডি তুলনা করে দেখা হয়েছে। যাদেরকে মডার্নার দ্বিতীয় বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে তারা আগে ফাইজারের তিনটি ডোজ নিয়েছিলেন।

রেগেভ-ইয়োচাই সাংবাদকিদের বলেন, ‘‘দ্বিতীয় বুস্টার ডোজের কারণে মানবদেহে অ্যান্টিবডির পরিমাণ বেড়েছে। সেটা আমরা তৃতীয় ডোজের পর যতটা দেখতে পেয়েছি তার থেকেও কিছুটা বেশি।

“কিন্তু তারপরও হয়ত এটা ওমিক্রন সংক্রমণ ঠেকাতে যথেষ্ট নয়। এখন পর্যন্ত আমরা যতটুকু জানতে পেরেছি তাদের ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে বা এটার বিরুদ্ধে শরীরে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে উঠতে যে পর্যায়ের অ্যান্টিবডি থাকতে হবে সেটা টিকায় পাওয়া অ্যান্টিবডির চেয়ে বেশি হতে হবে, এমনকী সেটা যত ভাল টিকাই হোক না কেন।”

শেবা মেডিকেল সেন্টার কর্তৃপক্ষের দাবি, বিশ্বে তারাই প্রথম এ ধরনের গবেষণা করেছে। যদিও গবেষণা একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে এবং এখন পর্যন্ত ওই গবেষণা প্রতিবেদন কোথাও প্রকাশ করা হয়নি।

বিশ্বের মধ্যে ইসরায়েল সব থেকে দ্রুতগতিতে নাগরিকদের কোভিড-১৯ এর টিকা দিতে সক্ষম হয়েছে। গত মাস থেকে দেশটি তাদের সব থেকে ঝুঁকিপূর্ণ নাগরিকদের টিকার চতুর্থ ডোজ বা দ্বিতীয় বুস্টার ডোজ দিতে শুরু করেছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য