Thursday, May 19, 2022
বাড়িরাজ্যপ্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে উত্তর-পূর্বাঞ্চল সফর, খতিয়ে দেখা হচ্ছে সরকারি প্রকল্পের বাস্তবায়ন দিক :...

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে উত্তর-পূর্বাঞ্চল সফর, খতিয়ে দেখা হচ্ছে সরকারি প্রকল্পের বাস্তবায়ন দিক : কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১২ এপ্রিল : উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলির উন্নয়নে আন্তরিক সরকার। তাই উত্তর-পূর্বাঞ্চল রাজ্যগুলিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলি বাস্তবায়নের দিক খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তাই উত্তর পূর্বাঞ্চলের প্রতিটি রাজ্যে ধারাবাহিক ভাবে যাচ্ছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। মঙ্গলবার রাজ্য অতিথি শালায় পর্যালোচনা বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই কথা জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিশ্বেশ্বর টুডু।

 তিনি আরও জানান এই রাজ্যের দুটি দপ্তরের প্রন্সিপাল সেক্রেট্রারি, আধিকারিকদের নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক হয়েছে। এই বৈঠকে সাংসদ রেবতী কুমার ত্রিপুরা ছিলেন। রাজ্য সরকারের দুটি দপ্তর থেকে দেওয়া তথ্য অত্যন্ত সন্তোষ জনক। ২০২৩ সালের মধ্যে প্রতি ঘরে জল পৌছে দেওয়ার ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে দাড়িয়ে এখনো পর্যন্ত দেশে ৫০ শতাংশের কাছাকাছি সাফল্য রয়েছে। কিন্তু এই ক্ষেত্রে ব্যতিক্রমী ত্রিপুরা। ত্রিপুরায় প্রতি ঘরে জল পৌঁছে দেওয়ার বিষয়টি ৫০ শতাংশের উপর হয়ে গেছে। এটা সম্ভব হয়েছে রাজ্য সরকার, জন প্রতিনিধি ও আধিকারিকদের কারনে বলে জানান তিনি। একই সঙ্গে আরও জানান ত্রিপুরায় সমস্ত কেন্দ্রীয় প্রকল্প গুলি সঠিক ভাবে কার্যকর হচ্ছে। রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার একত্রিত হয়ে কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। ত্রিপুরার ডার্লং সম্প্রদায়কে ষষ্ঠ তহশিলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এটা জন জাতি দপ্তরের বড় সাফল্য। ১১ হাজার ডার্লং সম্প্রদায়ের বসবাস। তাদের এতদিন বঞ্চিত রাখা হয়েছিল। এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে তারা উপকৃত হবেন বলে জানান কেন্দ্রীয় জল সম্পদ ও জনজাতি কল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী বিশ্বেশ্বর টুডু। রাজ্যের জনজাতিদের বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে উন্নয়নের কাজ চলছে বলে তিনি। জনজাতিদের উন্নয়ন ঘটাতে হলে শিক্ষাকে প্রধান্য দিয়েছে সরকার। তার জন্য একলব্য স্কুল নির্মাণ করা হচ্ছে। ২০২৩ –র মধ্যে ১৭ টি একলব্য স্কুল হবে রাজ্যে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য