Friday, May 20, 2022
বাড়িরাজ্যবাজেটে আত্মনির্ভর ত্রিপুরার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

বাজেটে আত্মনির্ভর ত্রিপুরার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৭ মার্চ : আজকের বাজেট শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থান এবং ইনফ্রাস্ট্রাকচার সহ সব দিক থেকে জনকল্যাণমুখী বাজেট। এই বাজেটে আত্মনির্ভর ত্রিপুরার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। দেশের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির চাইছেন আত্মনির্ভর ভারত। উনার মার্গদর্শনে এই প্রথমবার রাজ্যে আত্মনির্ভর বাজেট নিয়ে আসা হয়েছে। বিগত বছরের বাজেট ছিল ২০ হাজার কোটি টাকার। এবার বাজেট হয়েছে ২৬,৮৯৩ হাজার কোটি টাকার।

এই বাজেট বৃদ্ধি পেয়েছে বিগত বছরের তুলনায় ১৮.৩৪ শতাংশ। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী বিধানসভার অফিস কক্ষে ২০২২-২৩ -এর বাজেট প্রসঙ্গে একথা বলেন। তিনি বলেন, নয়া বাজেটে শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যয় হবে ৫,০২৬ কোটি টাকা। বিগত বাজেটে শিক্ষা ক্ষেত্র থেকে ২০ শতাংশ বেশি। স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ব্যয় হবে ১,৭৭৭ কোটি টাকা। বিগত বছরের স্বাস্থ্য ক্ষেত্র থেকে এবছর ২৩ শতাংশ বেড়েছে। ৮০ লক্ষ টাকা প্রত্যেক পঞ্চায়েতের জন্য বরাদ্দ করা হবে। পঞ্চায়েত সেক্রেটারি মজবুত করতে ১১৭৮ জন পঞ্চায়েত এক্সিকিউটিভ অফিসার নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তারা সরকারি প্রকল্পগুলি জনসমক্ষে তুলে ধরবে এবং সঠিক সময়ে বাস্তবায়িত করার জন্য ভূমিকা গ্রহণ করবেন। পাশাপাশি সরকারি কর্মচারীদের জন্য ত্রিপুরা গভমেন্ট স্কিম আনা হয়েছে। এডিসি এলাকার জন্য ১৩০০ কোটি টাকা ব্যয় করে একলব্য স্কুল, হোস্টেল নির্মাণ করা হবে।

 টিএসআর জওয়ানদের চাকুরীর মেয়াদ ৫৭ বছর থেকে বৃদ্ধি করে ৬০ বছর করা হয়েছে। তাদের রেশন মানি ৮০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা করা হয়েছে। এবং তাদের ক্যাম্প গুলি পরিদর্শনের সময় দেখা গেছে তাদের ব্যারেকে কিছু সমস্যা রয়েছে। তাই ব্যারেক মেরামত করতে ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হবে। একইভাবে সামাজিক ভাতা ১০০০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২০০০ টাকা করার প্রস্তাব পেশ হয়েছে। বিদ্যাজ্যোতি প্রকল্পের আওতায় ১০০ টি স্কুল আনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু আজকের বাজেট আরো ২৫ টি স্কুল এই প্রকল্পের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কারণ সিবিএসসি করার দাবি উঠছে রাজ্যের বিভিন্ন স্থান থেকে। পাশাপাশি স্বনির্ভর ত্রিপুরা করতে যুবকদের কর্মসংস্থানের জন্য ১ হাজার কোটি টাকা রাখা হয়েছে। আইন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৫০ কোটি টাকা রাখা হয়েছে। ডাটা সেন্টারের জন্য ৬৬ কোটি টাকা রাখা হয়েছে। টি আই টি পলিটেকনিকের জন্য ২০ কোটি টাকা রাখা হয়েছে। আম জনতার উপর কোন কর বসানো বা ভোজা চাপানোর মত বাজেট নয় এটি। মাত্র এক বছরে মাথায় করোনা প্রতিকূলতা কাটিয়ে সরকার ২০ হাজার কোটি টাকার বাজেট থেকে ২৬ হাজার ৮৯৩ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছে। পাশাপাশি ২০২৫ সালের মধ্যে রাজ্যের সব কটি মহাকুমার রাস্তা ডাবল লেন করার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। সরকার একসাথে সব সমস্যা সমাধান করতে পারে না। তারপরও যে আশা নিয়ে সরকারটা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তা পূরণ করতে পেরেছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি আরো বলেন কৈলাশহর এয়ারপোর্ট করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার থেকে মঞ্জুরি আসার পর এটি নির্মাণে কাজে হাত লাগানো হবে। কিন্তু বিরোধী দল কাজ নেই, খাদ্য নেই বলে ত্রিপুরাকে বদনাম করতে চাইছে। এর তীব্র ভাষায় প্রতিবাদ জানান মুখ্যমন্ত্রী।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য