Wednesday, May 29, 2024
বাড়িরাজ্যজ্বালানি সংকট নরসনে  উদ্যোগ নিচ্ছে  রাজ্য সরকার জানালেন পরিবহনমন্ত্রী

জ্বালানি সংকট নরসনে  উদ্যোগ নিচ্ছে  রাজ্য সরকার জানালেন পরিবহনমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৯ মে :  রাজ্যে জ্বালানি সংকট নিরসনে রাজ্য সরকার কেন্দ্রীয় সরকার এবং রেল দপ্তরের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। বৃহস্পতিবার রাজ্যে জ্বালানি সংকট সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে পরিবহন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন রাজ্য সরকারের তরফে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে ।

 মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি পরিবহন মন্ত্রী নিজেও এসব বিষয়ে নজর রেখে চলেছেন বলে জানিয়েছেন। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পরিবহন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন,

প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে আসামের ঝাটিঙ্গা এলাকায় রেল পরিষেবায় বিঘ্ন ঘটেছে। ফলে বিভিন্ন পণ্য এবং পেট্রোলিয়াম ট্রেন গুলি রাজ্যে প্রবেশ করতে পারছে না। যার ফলে রাজ্যের পেট্রোল পাম্প গুলিতে দীর্ঘ লাইন লক্ষ্য করা যাচ্ছে বেশ কয়েকদিন ধরে। তবে এই সমস্যা সমাধানে রাজ্য সরকার সচেষ্ট রয়েছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রাজ্যে পন্য বাহি ট্রেনগুলি যেন প্রবেশ করতে পারে তার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী।

তিনি আরো বলেন, এই বিষয়টি নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। রাজ্য সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী নিজে এই বিষয়টির দিকে নজর দিচ্ছেন। পাশাপাশি মন্ত্রি সুশান্ত চৌধুরীও সমস্ত ঘটনার উপর লক্ষ্য রেখে চলেছেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন খুব তাড়াতাড়ি রাজ্যে পণ্যবাহী রেলগাড়িগুলি প্রবেশ করবে।  জ্বালানি সহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের অভাব মিটবে।তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী ব্যক্তিগতভাবে ইতিমধ্যেই রেলমন্ত্রী অশ্বিনী কুমার বৈষ্ণবকে চিঠি দিয়েছেন। সে ক্ষেত্রে এই সমস্যার দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছে রেল  এই সমস্যার দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছে দপ্তর। এমনটাই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়াও মন্ত্রী বলেন, যারা বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রি করেন বিভিন্ন সময় দেখা গেছে রাজ্যের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিঘ্নিত হলে দ্রব্যমূল্যগুলির আকাশছোঁয়া মূল্য বৃদ্ধি হয়। সেই পথ অবলম্বন না করার জন্য তিনি রাজ্যের ব্যবসায়ীদের আবেদন দিয়েছেন। সর্বোপরি রাজ্য সরকার খুব দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করবেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী।

কয়েকদিন ধরে রাজ্যজুড়ে পেট্রোল সঙ্কট চরম আকার ধারন করেছে। সিংহভাগ পেট্রোল পাম্পে নেই পেট্রোল। আর যেসব পেট্রোল পাম্পের পেট্রোল আছে সেগুলির মধ্যে প্রায় কয়েক শতাধিক যানচালক দাঁড়িয়ে আছে পেট্রোল নেওয়ার জন্য। হাতে গোনা কয়েকটি পাম্পে পেট্রোল দেওয়া হলেও পাম্প গুলিতে যান চালক ও বাইক চালকদের দীর্ঘ লাইন। রাজধানীর পেট্রোল পাম্প গুলিতেও একই অবস্থা।সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পেট্রোলের জন্য লাইনে দাড়িয়েও মিলছে না পেট্রোল। রেলের লামডিং ডিভিশনে ট্র্যাক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সারাই করা হয়েছে। ইতিমধ্যে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। কিন্তু এখনো মালবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয় নি। মালবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পেট্রোল সঙ্কট স্বাভাবিক হয়ে যাবে  ।  

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য