Wednesday, May 18, 2022
বাড়িখেলাযারাই সাতবার দল বদল করে, তারা নিষ্ঠাবান নেতৃত্ব দিতে পারে না :...

যারাই সাতবার দল বদল করে, তারা নিষ্ঠাবান নেতৃত্ব দিতে পারে না : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২২ ফেব্রুয়ারি : নিষ্ঠা, একাগ্রতা নিয়ে কাজ করে যেতে হবে। কেউ কেউ তিন বছর দল কিছু দেয়নি বলে প্রচার চালায়। রাজনীতিতে কোন শর্ট কার্ট নেই। যারাই শর্ট কার্ট করতে চায় তারাই সাত বার দল বদল করে। দল বদল কারীরা নিষ্ঠাবান নেতৃত্ব দিতে পারে না। মঙ্গলবার এম বি বি কলেজ মাঠে বিজেপি ৯ বনমালিপুর মন্ডল কমিটির উদ্যোগে প্রয়াত হিরুধন দেব স্মৃতি নক আঊট টেনিস ক্রিকেট টুর্নামেন্টের সূচনা করে বলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, প্রদেশ বিজেপি-র সভাপতি ডাঃ মানিক সাহা, চা উন্নয়ন নিগমের চেয়ারম্যান সন্তোষ সাহা, মন্ডল সভাপতি দীপক কর সহ অন্যান্যরা। এদিনের টুর্নামেন্টের শুরুতে ব্যাটীং করেন মুখ্যমন্ত্রী। বল করেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। টুর্নামেন্টে অংশ গ্রহনকারী সকলকে উৎসাহিত করতে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগ। এরপর দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিত হন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন জন সংঘ করায় বহু তীক্ত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে তাদের কাটাতে হয়েছে। মানুষ তাচ্ছিল্য করত। সেই সময় ত্রিপুরায় ক্ষতায় ছিল কংগ্রেস ও এরপর সিপিএম। একটা সময় মন মানসিকতা ভেঙ্গে যাচ্ছিল। কিন্তু হাল ছাড়েন নি। যার উদাহরণ বর্তমান সময়। এখন ত্রিপুরাতে বিজেপি সরকার। যারা এক সময় কুটুক্তি ও তাচ্ছিল্য করত এরাই এখন বিজেপি-র পদাধিকারী হতে চায়। এরাই লাইনে দারীয়ে থাকে। কিন্তু বিজেপি দল অন্তিম  ব্যক্তির মানুষের ছেলেকে মুখ্যমন্ত্রী বানিয়েছে।  জীবনে কাউকে ছোট ভাবলে ভুল হবে। লিগন, নিষ্ঠা, একাগ্রতা নিয়ে কাজ করে  যেতে হবে। কেউ কেউ বলেন তিন বছর অনেক কিছু দলকে দিয়েছে বলে প্রচার চালায়। তারাই দলের কাছে থেকে বিনিময়ে চায়। রাজনীতিতে কোন শর্ট কার্ট নেই। জারাই শর্ট কার্ট করতে চায় তারাই সাত বার দল বদল করে। দল বদল কারীরা নিষ্ঠা বান নেতৃত্ব দিতে পারে না বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। সুসান দিতে পারে না।

মণ্ডলের কার্যকরতাদের উদ্দেশ্যে আহ্বান জানান দল কি দিয়েছে না দিয়েছে সেই মানসিকতা না রেখে কাজ করার জন্য।  নিজেকে চিনুন। পুরো দিনের মধ্যে কি কাজ মানুষের জন্য করছেন তা সম্পর্কে অবগত হোন। জে ব্যক্তি নিজেকে চেনে সে সর্ব শ্রেষ্ঠ ব্যক্তি হতে পারে। জে নিজেকে চেনে না সে অন্যকে চিনতে পারে না। নেশা মুক্ত ত্রিপুরার স্লোগান ২০১৮ সাল থেকে তুলেছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের ঐতিহ্যবাহী কলেজ এম বি বি। এই কলেজকে যাতে কেউ বদনাম করতে না পারে তার দিকে নজর রাখতে হবে। নেশা সামগ্রী যাতে কেউ গ্রহণ না করে তা নিশ্চিত করতে হবে। এই নেশার আমদানী করেছে পুরনো সরকারের মুখিয়ারা বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বামুটিয়া এক ব্যক্তির বাড়িতে গেছে। সেখানে গিয়ে তার বাড়ি ভাংচুরের জন্য বিজেপি-র উপর দোষ চাপিয়েছে। সিপিএম-র এল সি সেক্রেটারি ফেন্সিডিলের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ছিল বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। সেই বাড়িতে গিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বাহানা খুঁজছে। নেশাকারবারীদের সঙ্গে কোন আপোশ করা হয় না বর্তমান সরকারের আমলে। নতুন ত্রিপুরা গড়ার লক্ষ্যে এগুচ্ছে ত্রিপুরা বলে জানান তিনি। ছেলে মেয়েদের ক্রীড়া মাঠে পাঠানোর আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন সোমবার রবীন্দ্র  কাননের কাছে একটি মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। মৃত ব্যক্তির প্যাকেট থেকে উদ্ধার হয়েছে নেশার সিরিঞ্জ। সেই জায়গায় রাজ্যকে পৌঁছে দিয়েছিল পূর্বতন সরকার। আগে রাজ্যের মানুষ , পরে দল বলে স্পষ্ট করে দেন মুখ্যমন্ত্রী। অংশ গ্রহণকারী সমস্ত দলগুলির কাছেও আহ্বান জানান নেশা মুক্ত ত্রিপুরা গড়তে সহযোগিতার হাত বারিয়ে দিতে। এই টুর্নামেন্টে ৫৮ দল অংশ গ্রহণ করছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য