Sunday, April 21, 2024
বাড়িরাজ্যব্যাপক অনিয়ম শহরের কেকের দোকান গুলোর মধ্যে, মেয়াদ উত্তীর্ণ দ্রব্য দিয়ে তৈরি...

ব্যাপক অনিয়ম শহরের কেকের দোকান গুলোর মধ্যে, মেয়াদ উত্তীর্ণ দ্রব্য দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে কেক, বন্ধ করে দেওয়া হল দোকান

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৬ ফেব্রুয়ারি : মেয়াদ উত্তীর্ণ জিনিস দিয়ে তৈরি হচ্ছে কেক। যা খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে প্রতিদিন বহু মানুষ। বিভিন্ন সময় শহরের এই অসাধু ব্যবসায়ীদের দোকানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে সামাজিক মাধ্যমে, কিন্তু কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। সম্প্রতি এক অভিযোগ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর কুম্ভ-নিদ্রা ভাঙছে প্রশাসনের। অভিযান চালিয়ে ব্যাপক অনিয়ম প্রত্যক্ষ করছে প্রশাসনিক টিম। সম্প্রতি রাজধানীর মন্ত্রী বাড়ি রোড কেক এন্ড প্লাজা নামে একটি কেকের দোকানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল।

কেকের মধ্যে ফাঙ্গাস পেয়েছিলেন। তারপরই খাদ্য দপ্তর, লিগ্যাল মেট্রোলজি এবং ফুড সেফটির পক্ষ থেকে যৌথভাবে সোমবার অভিযান চালানো হয় এই দোকানে। প্রশাসনিক কর্মীরা দোকানে অভিযান চালিয়ে দেখতে পায় মেয়াদ উত্তীর্ণ কেক, রুটি এবং ক্রিম সহ নানা সরঞ্জাম বিক্রির জন্য রাখা হয়েছে। তারপর এর নমুনা সংগ্রহ করে প্রশাসনিক টিম আপাতত দোকানটি বন্ধ করে দেয়। ল্যাবে নমুনা পরীক্ষার পর যদি অনিয়মের সততা পায় তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই দোকানের বিপরীত দিকে থাকা শ্রী কৃষ্ণ হট চিপস নামে একটি দোকানে অভিযান চালায় প্রশাসনিক আধিকারিকরা। খাবার সামগ্রী মধ্যে ব্যাপক অনিয়ম পায় প্রশাসনিক টিম।

তারপর বালাজি কেক এন্ড সুইটসে অভিযান চালিয়ে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার যথেষ্ট অভাব প্রত্যক্ষ করেন। দোকানের কাগজপত্র ঠিক নেই। সবগুলো দোকানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারণ দেখা গেছে কেক সহ বিভিন্ন খাবার বানানোর কাজে যেসব কেমিক্যাল ব্যবহার করা হচ্ছে সেগুলি মেয়াদ উত্তীর্ণ। বিশেষ করে যে সব পাওয়া রুটি প্যাকেট রয়েছে সেগুলিও ১০০ গ্রাম কম রয়েছে। এবং কিছু কিছু খাবার প্যাকেটের মধ্যে কবে বানানো হয়েছে সে বিষয়ে কোনো উল্লেখ নেই। প্রতিনিধি দলটি আরো জানান তারা ধারণাও করতে পারেনি এভাবে শহরের বুকে মেয়াদোত্তীর্ণ জিনিস দিয়ে কেক বানানো হচ্ছে। যা দেখে তাদের চোখ চড়ক গাছ হয়ে গেছে বলে স্বীকার করেন। তারা আরো জানান দপ্তরের কর্মী সংকটের কারণে তারা প্রতিনিয়ত সব দিকে নজর রাখতে পারছে না। তবে এই ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রতিনিধি দলটি। প্রতিনিধি দলে ছিলেন ফুড কন্ট্রোলার প্রদীপ কুমার সহ অন্যান্য আধিকারিক। এখন দেখার বিষয় সবকিছু নিজ চোখে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করে কিনা, নাকি সবটাই রফাদফার দিকে এগিয়ে যায় প্রশাসন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য