Thursday, February 29, 2024
বাড়িরাজ্যস্কুল চলাকালীন সময়ে গুন্ডামী শ্রেণী কক্ষে, আহত দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র

স্কুল চলাকালীন সময়ে গুন্ডামী শ্রেণী কক্ষে, আহত দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৭ ফেব্রুয়ারি : মেয়ে সংক্রান্ত ঘটনা ঘিরে রাজ্যের বনেদী স্কুল উমাকান্ত একাডেমিতে ঘটলো ধুন্ধুমার কান্ড। দ্বাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রকে স্কুল বহির্ভূত পোশাক পরিধান করে বেধড়ক মাধ্যম করার দৃশ্য সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই নড়েচড়ে বসলেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক রাজেশ দেববর্মা।

তিনি স্কুল বহির্ভূত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এই ঘটনা সংঘটিত হয়েছে বলে বিষয়টি ধাপাঝাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন বুধবার। সংবাদ মাধ্যমে মুখোমুখি হয়ে তিনি জানান, গত পাঁচ ডিসেম্বর স্কুলে সি বি এস ই বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণীর সাইকোলজির প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা ছিল। প্রথম বেলার পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর স্কুলের একটি খালি কক্ষে এক ছাত্রকে স্কুলের অন্যান্য ছাত্ররা বেধড়ক মারধর করেছে। মারধর করার সময় যখন অন্যান্য ছাত্ররা বিষয়টি মোবাইল বন্দী করছিল তখন দুই পক্ষের মধ্যে মেয়ে সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হতে দেখা গেছে। পরবর্তী সময়ে ছাত্রদের চিৎকার শুনে স্টাফ রুম থেকে ছুটে আসেন প্রধান শিক্ষক রাজেশ দেববর্মা থেকে শুরু করে অন্যান্য শিক্ষক শিক্ষিকারা।

 তখন অভিযুক্তরা স্কুল থেকে পালিয়ে যায়। ছয় ফেব্রুয়ারি ডাকা হয় ঘটনার সাথে চলিত সমস্ত ছাত্র ও তাদের অভিভাবকদের। অভিভাবকরা বিষয়টি মীমাংসা করে নেয়। তারপর আহত ছাত্রের পরিবারের কাছ থেকে জানা যায় এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তারা সকলেই আহত ছাত্রের বন্ধু। তারপর প্রধান শিক্ষক ছাত্রদের ও অভিভাবকদের স্বীকারোক্তি নেয়। আহত ছাত্রেরও শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেওয়া হয়। কয়েকদিনের মধ্যে আহত ছাত্রের আবার কেমিস্ট্রি পরীক্ষা রয়েছে। বুধবার বৈঠকের সময় স্কুল পরিচালন কমিটির সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষকের কক্ষে বলে জানান তিনি। তবে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে স্কুলে মধ্যে যদি ছাত্রদের এই ধরনের ঘটনা সংঘটিত হয় তাহলে নিরাপদ কোথায় ছাত্ররা? স্কুল বহির্ভূত পোশাক পরে কিভাবে স্কুলের মধ্যে তারা ঘোরাফেরা করছে সে বিষয়টা নিয়েও উঠতে শুরু করেছে নানা প্রশ্ন? উমাকান্ত একাডেমিতে স্কুল চলাকালীন সময়ে এ ধরনের গুন্ডামী আগে কেউ দেখেনি। স্কুলের বিগত দিনের সমস্ত সুনাম নষ্ট করেছে এই ছাত্ররা। কিন্তু অভিযুক্ত ছাত্রদের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানা যায়নি প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য থেকে। অনেকে মনে করছে যারা মারপিটের ঘটনায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে প্রধান শিক্ষকের কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার দায়িত্ব ছিল।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য