Thursday, February 29, 2024
বাড়িরাজ্যরাম মন্দির প্রতিষ্ঠায় ইতিহাসের সন্ধিক্ষণের সাক্ষী হতে চলেছে দেশবাসী : প্রতিমা

রাম মন্দির প্রতিষ্ঠায় ইতিহাসের সন্ধিক্ষণের সাক্ষী হতে চলেছে দেশবাসী : প্রতিমা

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৭ জানুয়ারি : রাম মন্দির কোন ধর্মের প্রতিষ্ঠান নয়। রাম মন্দির রাষ্ট্রের প্রতীক ও রাষ্ট্রের মন্দির। তাই আগামী ২২ জানুয়ারি রাম মন্দির প্রতিষ্ঠা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। এটি জনতার উৎসব। আর এই ইতিহাসের সন্ধিক্ষণের সাক্ষী হতে চলেছে দেশবাসী। এই দিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

 রবিবার রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনের সামনে থেকে বিবেকানন্দ বিচার মঞ্চ ও মজনুর মনিটরিং সেল কর্তৃক আয়োজিত বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার শুরুর আগে এই কথা বললেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। ২২ জানুয়ারি অযোধ্যার বহু প্রতীক্ষিত ভব্য রাম মন্দির উদ্বোধন ও রামের প্রাণ প্রতিষ্ঠাকে সামনে রেখে আয়োজিত হয় এই শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রায় প্রথম সারিতেই ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। তিনি এই দিন আরো বলেন, ভগবান রাম শান্তির প্রতীক এবং মর্যাদার প্রতীক। এই রামের প্রাণ প্রতিষ্ঠা আগামী ২২ জানুয়ারি। এই দিনটি দেশবাসীর জন্য অত্যন্ত গর্বের ও আনন্দের। পাশাপাশি দিনটি দেশবাসীর জন্য আবেগ ভরা। যার জন্য ৫০০ বছর লড়াই করতে হয়েছে। অবশেষে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত ধরে সেই প্রতীক্ষার অবসান ঘটে রাম মন্দিরের প্রতিষ্ঠা হবে। এদিন প্রত্যেক বাড়িতে প্রদীপ প্রজ্বলন করার আহ্বান করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কারণ রাম যখন ১৪ বছর বন বাসের পর অযোধ্যায় ফিরেছিলেন তখন আবার গ্রাম অন্ধকার থেকে আলোক সজ্জা হয়েছিল। তাই সকলে যাতে বাড়িতে এবং নিজ নিজ এলাকার ভগবানের মন্দিরে প্রদ্বীপ প্রজ্বলন করে তার জন্য আহ্বান জানান কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য