Saturday, April 13, 2024
বাড়িরাজ্যবিনা চিকিৎসায় মৃত্যু রোগীর, হুলুস্থুল জিবি হাসপাতালে

বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু রোগীর, হুলুস্থুল জিবি হাসপাতালে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৬ মে : বিনা চিকিৎসার কারণে জিবি হাসপাতালে মৃত্যু হল আমবাসার ঝর্ণা ঘোষ দেব নামে এক গৃহবধুর। এমনটাই অভিযোগ তুলে শুক্রবার সকালে উত্তেজিত হয়ে উঠে জিবি হাসপাতালে রোগীর পরিজন। অভিযোগ একটি গৃহবধূ তার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে জিবি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকে চিকিৎসকদের এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের চরম উদাসীনতার কারণে মৃত্যু কোলে ঢলে পড়েছে বলে জানায় তার পরিবার। পরিবারের লোকজনদের অভিযোগ গৃহবধূর আজ সকালবেলার ডায়ালাইসিস করার কথা ছিল। কিন্তু সকাল আটটা পর্যন্ত কোন চিকিৎসক না থাকায় ডায়ালাইসিস হয় নি। সঠিক সময়ের মত ডাইলোসিস করা হলে গৃহবধূ বেঁচে যেত বলে ধারণা স্বামী রাজীব দেবের। হাসপাতালে এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বিজেপির গ্রামীণ জেলার সহ-সভাপতি কিরণ ভট্টাচার্যীও সেখানে তার মার চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। তিনি এদিন হাসপাতালের পরিষেবা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন হাসপাতালে রোগী থাকলে মৃত্যু হবে। বারবার পরীক্ষা নিরীক্ষার পর রোগীর রোগ সঠিকভাবে ধরা পড়ে না। যে গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে তার রক্তের প্রয়োজন ছিল, সে অনুযায়ী রক্তের ব্যবস্থা করেছিল পরিবার।

কিন্তু বৃহস্পতিবার একই ইউনিট জোগাড় করার পর রক্ত ফ্রীজের মধ্যে না রেখে টেবিলে ফেলে রেখে দেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। ফলে রক্তটি নষ্ট হয়। বৃহস্পতিবার সারারাত মেয়েটি শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক কেউ আসেননি। শুক্রবার সকালে এসে গৃহবধূকে একটি ইনজেকশন দেওয়ার পর সাথে সাথে মৃত্যু হয়। তিনি আরো বলেন, মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে ঢাক পেটান জিবি হাসপাতালের পরিষেবা ভালো। কিন্তু হাসপাতালের মধ্যে চলছে আমলাতন্ত্র। রোগীর পরিষেবা দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ওষুধ পত্র থাকে না। তিনি আরো জানান গত ২৬ এপ্রিল কেন্দ্রীয় সরকারের স্কিম অনুযায়ী সাড়ে তিন কোটি টাকার ঔষধপত্র থেকে শুরু করে রোগীর সরঞ্জাম এসেছে জিবি হাসপাতালে। কিন্তু তারপরও রোগীর পরিজনদের বাইরে ঔষধের দোকান থেকে চিকিৎসার সরঞ্জাম ক্রয় করতে হয়। আরো বলেন হাসপাতালে সমস্ত জুনিয়র ডক্টর দিয়ে পরিষেবা প্রদান করা হচ্ছে। সিনিয়র ডক্টর না থাকার কারণে চরম গাফিলতি এবং বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হচ্ছে রোগীর। এবং স্বাস্থ্যকর্মী ও সিকিউরিটি গার্ডদের দুর্ব্যবহারে অতিষ্ঠ হাসপাতালে আসা রোগী ও রোগীর পরিজনেরা। তাই তার মার চিকিৎসা হাসপাতালে করবেন না। বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাবেন বলে এদিন সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য