Tuesday, February 7, 2023
বাড়িরাজ্যমানুষকে বোকা বানিয়ে নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য কংগ্রেস এবং সিপিআইএমের জোট :...

মানুষকে বোকা বানিয়ে নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য কংগ্রেস এবং সিপিআইএমের জোট : বিজেপি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২০ জানুয়ারি : মানুষকে বোকা বানিয়ে নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য কংগ্রেস এবং সিপিআইএমের জোট। শুক্রবার প্রদেশ বিজেপি কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনটাই বললেন প্রদেশ বিজেপির মুখ্য মুখপাত্র সুব্রত চক্রবর্তী। তিনি বলেন, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন ত্রিপুরা রাজ্যের জন্য একটা গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। সমগ্র ত্রিপুরা রাজ্যের মানুষ লক্ষ্য করছে সুদীর্ঘকাল যারা একে অপরের বিরুদ্ধে অবস্থান করছিল এবং যারা সুদীর্ঘকাল একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল, তারা বর্তমানে একসঙ্গে এক জোটে আবদ্ধ হয়েছে।

যেকোনো রাজনৈতিক দল তার অবস্থান নিতে পারে, এটা যে কোন রাজনৈতিক দলের অধিকার রয়েছে। সে বিষয়ে বিজেপির কোন বক্তব্য নেই। কিন্তু তাদের জন্য যে মানুষগুলি অত্যাচারিত হয়েছিল, নিপীড়িত হয়েছিল, গৃহ ছাড়া হয়েছিল তাদের জন্য কমিটমেন্ট কোথায় গিয়েছে বলে প্রশ্ন তুলেন তিনি। জিরানিয়ার ঘটনা নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন নির্বাচন ঘোষণার পর প্রশাসন সম্পন্ন নির্বাচন কমিশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। সেই জায়গায় রাজ্যে একটা অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করার জন্য, একটা বিভাজন রেখা তৈরি করার জন্য বিরোধী দলগুলো কতগুলি অপপ্রচার এবং কতগুলি অনাকাঙ্ক্ষিত পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। এটা মোটেও কাম্য নয়। ১৮ জানুয়ারি কংগ্রেসের একটি বাইক রেলি আগরতলা থেকে শুরু হয়ে মজলিশপুরের শচীন্দ্র নগর কলোনী পৌঁছায়।

শচীন্দ্র নগর কলোনী পর্যন্ত যাওয়ার কোন অনুমতি ছিল না এই বাইক রেলির। বাইক রেলি শচীন্দ্র নগর কলোনি পৌঁছানোর পর একদল কংগ্রেস কর্মী সমর্থক বিজেপির বুথ অফিসে প্রবেশ করে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালায়। বিজেপির বুথ অফিস ভাঙচুর করে, সেখান থেকে জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তী সময় বিজেপির মহিলা কর্মীদের উপর আক্রমণ সংঘটিত করা হয়। এলাকার বিধায়ক তথা মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী ঘটনার খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ঘটনাস্থলে ছুটে যান। নির্বাচনের আগে রাজ্যের পরিস্থিতিকে জটিল করার একটা নীল নকশা করা হয়েছে। এই নিয়ে দুটি থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন প্রশাসনের মাধ্যমে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে আশা ব্যক্ত করেন সুব্রত চক্রবর্তী। সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি আরো জানান সুরমা বিধানসভা কেন্দ্র এলাকায় প্রণজিৎ নমশূদ্র নামে এক ব্যক্তিকে খুন করা হয়েছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে সেই খুনটাকে বিজেপির ঘাড়ে চাপিয়ে দেওয়ার জন্য রাজনৈতিক রং দেওয়ার চেষ্টা চলছে। সেখানে একটা ষড়যন্ত্র রচনা করা হয়েছে। প্রচার করা হচ্ছে এই হত্যার ঘটনার জন্য বিজেপি দলের কার্যকরতারা দায়ী। কিন্তু নির্বাচন কমিশন থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই হত্যার ঘটনার সাথে কোন ধরনের রাজনৈতিক বিষয় জড়িত নয়। সম্পূর্ণরূপে ব্যক্তিগত ও আর্থিক লেনদেনের বিষয়কে কেন্দ্র করে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে। মিথ্যা প্রচার করে বিজেপি দলের ভাবমুক্তি কালিমা লিপ্ত করার ষড়যন্ত্র চলছে বলেও অভিযোগ করেন সুব্রত চক্রবর্তী। রাজ্যজুড়ে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি। সাংবাদিক সম্মেলনে সুব্রত চক্রবর্তীর সাথে উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ বিজেপির প্রবক্তা অস্মিতা বণিক।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য