Wednesday, November 30, 2022
বাড়িরাজ্যআগে রাজ্যে শিল্প তৈরীর নামে বহু প্রহসন হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

আগে রাজ্যে শিল্প তৈরীর নামে বহু প্রহসন হয়েছে : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৯ নভেম্বর : কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন জনকল্যাণমুখী প্রকল্পের সুবিধা রাজ্যের মানুষের কাছে দল মত নির্বিশেষে পৌঁছে যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের ১৩ টি প্রকল্প নিয়ে যে ফ্ল্যাগশিপ কর্মসূচি রয়েছে তার সাফল্য রাজ্যের ১০০ শতাংশের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

বাকি প্রকল্প গুলি অগ্রগতির জন্য প্রতি ঘরে সুশাসন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। বুধবার সমাজ কল্যাণ ও সমাজ শিক্ষা দপ্তর এবং শ্রম দপ্তরের উদ্যোগে রবীন্দ্রভবনে আয়োজিত রাজ্যভিত্তিক লাভার্থী সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী ডক্টর মানিক সাহা। তিনি বলেন, আগে রাজ্যে শিল্প তৈরীর নামে বহু প্রহসন হয়েছে। এর মধ্যে একটি শিল্প রাজ্যের তৈরি হয়েছে যার নাম কথা শিল্প। আগের সরকারের তাত্ত্বিক নেতারা এই কথাশিল্পে সিদ্ধ হস্ত ছিলেন। বর্তমান সরকার যা বলে তা করে দেখায়। প্রধানমন্ত্রীর সেই দিশা তে কাজ করছে রাজ্য সরকার। সমাজের অন্তিম ব্যক্তির উন্নয়ন না হলে সমাজের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই মানুষের কাছে স্বচ্ছতা বজায় রাখতে চায় সরকার। টেটের মাধ্যমে ৩ হাজার চাকরি প্রদান করা হয়েছে। বিভিন্ন দপ্তরে প্রতিনিয়ত চাকরি প্রদান করা হচ্ছে।

সরকারি কর্মচারীদের ৫ শতাংশ দিয়ে প্রদান করা হয়েছে। এই সরকারের উপর মানুষকে ভরসা রাখতে হবে। এই সরকার মর্মস্পর্শী। লাইনে হাঁটিয়ে চাকরির প্রদানের সরকার নয়। যারা ১০ হাজার ৩২৩ জনের চাকরি দিয়েছে এবং যারা সেই চাকরি খেয়েছেন এখন তাদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের সময়, স্বচ্ছতা বজায় রেখে আইন মোতাবেক চাকরী প্রদান করছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে বর্তমানে স্ব-সহায়ক দলের সংখ্যা ৩৬ হাজার। সশক্ত, শক্তিশালী এবং সশক্ত ভারত গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এই উদ্যোগ চলছে বলে জানান কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। একজন মা শুধু পরিবারকেই সমৃদ্ধ করে না। তিনি একটি পাড়া, মহল্লা, একটা পঞ্চায়েত, বিধানসভাকে একাই সমৃদ্ধ করতে পারেন। মা হচ্ছে  লক্ষী প্রতিরূপ। আর লক্ষ্মীর কাছে গচ্ছিত অর্থ সংসারের কঠিন সময়ে কাজে লাগে বলে জানান তিনি। উপস্থিত ছিলেন উপ মুখ্যমন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মা, মন্ত্রী সান্তনা চাকমা, মন্ত্রী ভগবান চন্দ্র দাস, মুখ্য সচিব জে কে সিনহা সহ অন্যান্যরা। রবীন্দ্রভবন প্রাঙ্গণে রাজ্যভিত্তিক লাভার্থী সম্মেলনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন দপ্তরের স্টল খোলা হয়। সেই সমস্ত স্টল পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি উদ্যোক্তাদের প্রশংসা করেন তিনি।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য