Saturday, December 3, 2022
বাড়িরাজ্যগ্রেফতার ৪, তালিকায় নাম নথিভুক্ত আরো ১৩ জন কংগ্রেস কর্মীর, উদ্ধার দুটি...

গ্রেফতার ৪, তালিকায় নাম নথিভুক্ত আরো ১৩ জন কংগ্রেস কর্মীর, উদ্ধার দুটি বোমা, মোতায়েন পুলিশ, টিএসআর সহ আধা আমরিক বাহিনী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৩ নভেম্বর : আতঙ্কের বেশ এখনও কাটেনি বিশালগড়ে। রাজনৈতিক পরিস্থিতি ক্রমশ চোখ রাঙাতে শুরু করেছে। কোন দিকে এগোচ্ছে বর্তমান অবস্থা তা নিয়ে বলা মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। বুধবার বিশালগড়ে কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনায় বিশালগড় থানার পুলিশ ১৭ জনের বিরুদ্ধে স্বতঃস্ফূর্ত মামলা গ্রহণ করে। কিন্তু আশ্চর্যজনক বিষয় হলো যাদের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ করেছে তারা সকলেই কংগ্রেসের কর্মী। এরমধ্যে প্রদেশ কংগ্রেসের দুজন সদস্য রয়েছেন। তারা হলেন জয়দুল হোসেন এবং জয়দেব রায় বর্মন। এই দুই নেতার বিরুদ্ধে মামলা নেওয়ার পাশাপাশি চড়িলাম ব্লক কংগ্রেসের সভাপতি তারা মিয়া এবং বিশালগড় মহকুমা অন্যতম হেভিওয়েট নেতা গুপিনাথ সাহার বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

কোন বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা না নেওয়ার কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। পুলিশ চারজন কংগ্রেস কর্মীকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার আদালতে তুলেছে। ধৃত কংগ্রেস কর্মীরা প্রবীর সরকার, বাপন দাস, সোহেল রানা এবং মাধব দেবনাথ। এদিকে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে বুধবার রাতে মহকুমা পুলিশ আধিকারিকের পক্ষ থেকে গজারিয়া এলাকায় কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের বাড়িঘরে প্রবেশ করে ভাঙচুর করেছে। এই ঘটনা নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানান কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ। কংগ্রেস নেতৃবৃন্দদের বক্তব্য শাসক দল বিজেপি থেকেও হিংস্য হয়ে উঠেছে পুলিশ। না হলে এ ধরনের একের পর এই ঘটনা সংঘটিত করতে পারে না তারা। যদিও মহকুমা পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ যাচাই করে নি সংবাদ মাধ্যম। তবে প্রশ্ন উঠছে পুলিশ আধিকারিকের ভূমিকায়। কারণ পুলিশ শপথ গ্রহণ করে জনগণের সেবায় নিয়োজিত হয়। তাহলে মানুষ কার দ্বারস্থ হবে ? রীতিমতো কান ভারী করছে গজারিয়া এলাকার পুলিশের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ।

এদিকে এদিন সকালে বিশালগড়ের রাউতখলা এলাকা থেকে উদ্ধার দুইটি তাজা বোমা। ঘটনার বিবরনে জানা যায় বুধবার রাজনৈতিক সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠে বিশালগড়ের রাউতখোলা এলাকা। সেখানে বোম নিক্ষেপের অভিযোগ উঠে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পর বোম স্কোয়ার্ড ঘটনার তদন্তে রাউতখলা এলাকায় যায়। বৃহস্পতিবার সকালে বোম স্কোয়ার্ডের অফিসাররা ঘটনাস্থল থেকে আরও দুইটি তাজা বোমা উদ্ধার করে। পরবর্তী সময় বোম স্কোয়ার্ডের অফিসাররা নির্জন স্থানে উদ্ধার হওয়া তাজা বোমা দুইটিকে নিষ্ক্রিয় করেন। যাইহোক গোটা মহাকুমা বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য