Wednesday, October 5, 2022
বাড়িরাজ্যদায়িত্ব নিলেন নয়া প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য

দায়িত্ব নিলেন নয়া প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৬ আগস্ট : ভারতীয় জনতা পার্টির সর্বভারতীয় শীর্ষ নেতৃত্বদের পর্যালোচনার পর বৃহস্পতিবার ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি’র নয়া সভাপতি হিসেবে রাজীব ভট্টাচার্যের নাম ঘোষণা করা হয়। শুক্রবার প্রদেশ বিজেপি’র কার্যালয়ে শ্যামাপ্রসাদ সভাগৃহে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজীব ভট্টাচার্য সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এদিন রাজীব ভট্টাচার্যকে সভাপতির আসনে বসিয়ে পুষ্পস্তবক তুলে দিয়ে অভিনন্দন জানান বিদায়ী সভাপতি তথা মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা।

সঙ্গে ছিলেন প্রদেশ বিজেপি’র প্রাক্তন সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব, কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক, প্রদেশ বিজেপি প্রভারী বিনোদ সোনকর সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এদিন প্রদেশ বিজেপির বিভিন্ন শাখা সংগঠনের পক্ষ থেকেও নয়া সভাপতিকে পুষ্পস্তবক তুলে দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। পরবর্তী সময় প্রদেশ সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য কার্যকর্তাদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রেখে বলেন, যে গুরু দায়িত্ব তিনি পেয়েছেন সেটা তিনি সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা করবেন। এর জন্য মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা এবং প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব যেভাবে নির্দেশ দেবেন সেভাবেই কাজ করে ২০২৩ সালে বিগত বিধানসভা নির্বাচন থেকে অধিক আসন নিয়ে দলকে সরকারের প্রতিষ্ঠিত করা হবে বলে জানান তিনি। যেহেতু ভারতীয় জনতা পার্টি কার্যকর্তার পার্টি, তাই কার্যকর্তাদের সভাপতির কাছে আসতে হবে না, তিনি কার্যকর্তাদের কাছে গিয়ে সংগঠন মজবুত করতে আহ্বান জানাবেন। বিশেষ করে ২০১৮ সালে যারা পরিশ্রম করে সরকার প্রতিষ্ঠিত করেছেন, তাদের ফুল দিয়ে দলে বরণ করা হবে বলে জানান। সাধারণ কার্যকর্তা থেকে সভাপতি হতে পেরে রাজীব ভট্টাচার্য এদিন সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ধন্যবাদ জানান। পাশাপাশি এই দিন রাষ্ট্রীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার সফরের ঘোষণা দেন তিনি। তিনি বলেন, আগামী ২৮ এবং ২৯ আগস্ট দুই দিনের রাজ্য সফরে আসতে চলেছেন জেপি নাড্ডা। সর্বভারতীয় সভাপতি প্রবাস মানেই নির্বাচনী দামামা বেজে যাবে। সেই মোতাবেক দলের বিভিন্ন কর্মসূচি সহ কাজকর্ম সঠিকভাবে পালন করার আহ্বান জানান শ্রী ভট্টাচার্য।

বিদায়ী সভাপতি তথা মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা বক্তব্য রেখে বলেন, ২০২০ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে তিনি সভাপতি দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা করেছেন। রাজীব ভট্টাচার্য দলের একজন একনিষ্ঠা পুরনো কর্মী। যখন যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেছেন তিনি। আগামী দিনে রাজীব ভট্টাচার্য সভাপতি পদে থেকে সংগঠন আরো বেশি শক্তিশালী করে ২০২৩ সালে সরকার এবং দলের মধ্যে সমন্বয় বজায় রাখতে বড় ভূমিকা পালন করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

নয়া সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য ভোট স্তর থেকে নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছেন। তার নেতৃত্বে দল আগামী দিনে আরও বেশি শক্তিশালী হবে বলে আশা করেন প্রভারী বিনোদ সোনকর।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য