Tuesday, October 4, 2022
বাড়িরাজ্যআগে রাজাদের ইতিহাস কোনঠাসা করে রাখা হতো : মুখ্যমন্ত্রী

আগে রাজাদের ইতিহাস কোনঠাসা করে রাখা হতো : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৯ আগস্ট : শুক্রবার রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্য বাহাদুর দেববর্মণের ১১৪ তম জন্ম জয়ন্তী উদযাপন করা হয়। এদিন তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের উদ্যোগে হয় অনুষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানের সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা। তারপর মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্য বাহাদুর দেববর্মণের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী, উপ মুখ্যমন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মা, মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, মেয়র দীপক মজুমদার, বিধায়ক রেবতী মোহন দাস, তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের অধিকর্তা রতন বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা বলেন, যারা দুই থেকে তিন দশক ধরে রাজ্যে ক্ষমতায় ছিলেন তারা বলতেন মহারাজারা ত্রিপুরার জন্য কিছুই করেন নি।

 আসলে রাজাদের ইতিহাস রাজবাড়ীতে কোনঠাসা করে রাখার চেষ্টা করত তারা। এবং নবীন প্রজন্মের কাছ থেকে রাজ্যের ইতিহাসকে ভুলিয়ে রাখার চেষ্টা করত। ২০১৮ সালে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর রাজ্য ও রাজ্যবাসীর জন্য যারা কাজ করে গেছেন তাদের যথাযোগ্য সম্মান প্রদর্শন করা হচ্ছে। জনজাতিদের নামে আগে কুম্ভীরাশ্রু ফেলা হতো। এখন জনজাতিদের জন্য প্রকৃত অর্থে কাজ চলছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। আরো বলেন, আগরতলা বিমানবন্দরের নামাকরণ মহারাজার নামে করা হয়েছে। এই বিমানবন্দর আধুনিক মান সম্পন্ন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মহারাজার জন্ম দিনকে সামনে রেখে দুটি ঘোষণা দেন ।

 তিনি বলেন  মহারাজা বীরচন্দ্র কিশোর মানিক্য বাহাদুর, রাধা কিশোর মানিক্য , বীরেন্দ্র কিশোর মানিক্য বাহাদুর রাজ্যের উন্নয়নে বহুমুখী কর্মযজ্ঞের সূচনা করেছিলেন। তার যোগ্য উত্তরসূরী মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্য বাহাদুর দেববর্মণ। সেই ধারায় তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। সেই সময় গনতন্ত্র মানতেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী বলেন দীর্ঘ দিন ধরে বটতলা এলাকায় একটি রাজ শ্মশান রয়েছে। এই শ্মশানে রাজন্য পরিবারের সদস্যদের অন্ত্যেষ্টি পক্রিয়া সম্পন্ন হয়। বহু বছর যাবত এই শ্মশান সংস্কারের দাবি জানানো হচ্ছিল। সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই রাজ শ্মশানকে সংস্কার করে তার সৌন্দর্যায়ন করার। কামান চৌমুহনী এলাকায় থাকা আইল্যান্ডের নামাকরণ করে সেই আইল্যান্ডে মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্য বাহাদুর দেববর্মণের মূর্তি স্থাপন করা হবে। এই নিয়ে পুর নিগমের মেয়রের সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য