Friday, August 19, 2022
বাড়িরাজ্যদীর্ঘ ছয় ঘণ্টা বন্ধ সিটি স্ক্যান পরিষেবা, দুর্ভোগ রোগীদের

দীর্ঘ ছয় ঘণ্টা বন্ধ সিটি স্ক্যান পরিষেবা, দুর্ভোগ রোগীদের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২ আগস্ট : দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কারণে দীর্ঘ ছয় ঘণ্টা বন্ধ সিটি স্ক্যান পরিষেবা। অবশেষে চালু হলো সিটি স্ক্যান মেশিন। দুর্ভোগের শিকার রোগী এবং রোগীর পরিজনেরা। ঘটনা  ধর্মনগর উত্তর ত্রিপুরা জেলা হাসপাতালে। মঙ্গলবার আচমকা সিটি স্ক্যান পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। সিটি স্ক্যান কক্ষের সামনে নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। নোটিশে লেখা ছিলো টেরেসা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মাধ্যমে বিনামূল্যে সিটি স্ক্যান পরিষেবা বিষয়ক চুক্তি গত ৩১ শে জুলাই শেষ হয়েছে।

 চুক্তি পুনর্নবীকরণ না হওয়ার জন্য পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত সিটি স্ক্যান পরিষেবা বন্ধ রাখার জন্য। যার ফলে এদিন সকাল থেকেই রোগীরা বিপাকে পড়েন, শুরু হয় কাতর আবেদন নিবেদন, কিন্তু কোন কিছুতেই সিটি স্ক্যান পরিষেবা চালু হয় নি। অবশেষে রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা জানান, জেলা হাসপাতালে আসলে রোগী পর্যন্ত বলা হচ্ছে অন্যথায় নিয়ে রোগী সিটিস্ক্যান করার জন্য। কিন্তু আশেপাশে কোন সিটি স্ক্যানের সুবিধা না থাকায় নিয়ে যেতে হচ্ছে শিলচরে। অসহায় রোগী এবং রোগীর পরিজনদের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করতে দেখা যায় এদিন।

জেলার স্বাস্থ্য আধিকারিকের সাথে দেখা করে বিস্তারিত জানতে চাওয়া হয়। পরে তিনি ফোনে কথা বলেন, মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে। তারপর এই ঘটনা জানতে পেরে দ্রুত জেলা হাসপাতালে সিটি স্ক্যান পরিষেবা চালু করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করেন মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক অরুণাভ চক্রবর্তী। তবে দীর্ঘ সাড়ে ৬ ঘণ্টা সিটি স্ক্যান পরিষেবা বন্ধ থাকার পর পুনরায় চালু হওয়ায় পর খুশি রোগীর প্রয়োজনীরা। উপকৃত হবে রোগীর পরিজনেরা। তবে সকাল থেকে রোগী পরিজনেরা দুপুর সাড়ে বারোটা পর্যন্ত এসে পরিষেবা পায় নি। রোগী পরিজনদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। কারণ স্বাস্থ্য আধিকারিকদের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কারণে দীর্ঘ ছয় ঘন্টা সিটিস্ক্যান পরিষেবা থেকে বঞ্চিত ছিল বহু সংকটাপন্ন রোগী। অ্যাম্বুলেন্স বা গাড়ি ভাড়া করে রোগীকে নিয়ে রোগীর প্রয়োজনদের যেতে হয়েছে শিলচরে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য