Wednesday, August 17, 2022
বাড়িবিশ্ব সংবাদইউরোপে তীব্র তাপপ্রবাহ, দাবানলে পুড়ছে ফ্রান্স-স্পেন-গ্রিস

ইউরোপে তীব্র তাপপ্রবাহ, দাবানলে পুড়ছে ফ্রান্স-স্পেন-গ্রিস

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৫ জুলাই।ইউরোপে তাপদাহ মারাত্মক রূপ নিয়েছে। দাবানলে পুড়ছে ফ্রান্স, স্পেন, গ্রিস ও পর্তুগাল। ফ্রান্সে শহর-গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে অধিবাসীরা।তীব্র বাতাস আর শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে ইউরোপের এই দেশগুলোতে দাবানলের আগুন আরও বেশি ছড়িয়ে পড়ছে।

গত কয়েকদিনে ফ্রান্সের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি এলাকা থেকে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ অন্য স্থানে সরে যেতে বাধ্য হয়েছে।স্পেন এবং পর্তুগালে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে চলে গেছে। বহু জায়গায় জ্বলছে দাবানলের আগুন। তাপপ্রবাহে দু’দেশে অন্তত ২৮১ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে বিবিসি।

স্পেনের পশ্চিমাঞ্চলে কয়েকটি শহর থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। গত সপ্তাহ থেকেই স্পেনের পশ্চিমাঞ্চল দাবানলে পুড়ছে। এবার দেশটির দক্ষিণেও নতুন করে দাবানল শুরু হয়েছে। যদিও আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, শুক্রবার থেকে স্পেনে তাপ কমতে শুরু করবে।

পর্তুগালের পাঁচ এলাকায় চরম তাপপ্রবাহের সতর্কতা রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ১৭টি দাবানল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছে এক হাজারের বেশি অগ্নিনির্বাপনকর্মী।

ফ্রান্সের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে গত মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া দুটি দাবানল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এক হাজারের বেশি দমকল কর্মী। কিন্তু তীব্র তাপপ্রবাহের কারণে আগুন বাড়তে থাকায় তা নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগে পেতে হচ্ছে তাদের।

স্প্যানিশ দ্য কার্লোস স্বাস্থ্য গবেষণা ইন্সটিটিউট বৃহস্পতিবার বলেছে, সাম্প্রতিক তাপপ্রবাহের প্রথম দুইদিন রোব ও সোমবারে অন্তত ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।এক সপ্তাহ ধরেই এই সব দাবানল জ্বলছে। এবছর এই দাবানলে ‍পুড়ে ছাই হয়েছে ৩শ স্কয়ার কিলোমিটারেরও বেশি এলাকা। ২০২১ সালে যতটুকু অঞ্চল পুড়েছিল, এবার তার সবটুকুই ছাড়িয়ে আরও বড় এলাকা আগুনের গ্রাসে চলে গেছে।দাবানলের বড় ধরনের ঝুঁকিতে পড়েছে ইউরোপের গোটা দক্ষিণাঞ্চল এবং মরোক্কো। ইতালি এবং ক্রোয়েশিয়াও এ সপ্তাহে দাবানলের খবর দিয়েছে। ওদিকে, তীব্র বাতাসের কারণে গ্রিসের পাঁচটি অঞ্চলে দাবানল ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে বলে সতর্ক করেছেন সংরক্ষণ কর্মকর্তারা।গ্রিসের কেন্দ্রস্থলের দুটি স্থানে শুক্রবার দাবানলের আগুন জ্বলার খবর পাওয়া গেছে। রাজধানী এথেন্সের দক্ষিণ-পূর্বের অধিবাসীদের অবিলম্বে সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে জরুরি সেবা বিভাগ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য