Tuesday, February 27, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদইরাকে ইসরায়েলের ‘গোয়েন্দা সদরদপ্তরে’ ইরানের হামলা

ইরাকে ইসরায়েলের ‘গোয়েন্দা সদরদপ্তরে’ ইরানের হামলা

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ১৬ জানুয়ারি: ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডস জানিয়েছে, তারা ইরাকের আধাস্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলে ইসরায়েলের ‘গোয়েন্দা সদরদপ্তরে’ হামলা চালিয়েছে। ইরানের অভিজাত এই বাহিনীটি জানিয়েছে, তারা সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধেও হামলা চালিয়েছে।সোমবার রাতে ইরানের রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম এসব হামলার খবর জানায়।৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে লেবানন, সিরিয়া, ইরাক ও ইয়েমেন থেকে ইরানের মিত্ররা এই সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছে। এই সংঘাত এখন মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে। এ নিয়ে উদ্বেগের মধ্যেই এ হামলার ঘটনা ঘটল।ইরাকের কুর্দিস্তানের রাজধানী ইরবিলে যুক্তরাষ্ট্রের কন্স্যুলেটের কাছেই একটি আবাসিক এলাকায় হামলাটি হয়; জানিয়েছে রয়টার্স। এক বিবৃতিতে গার্ডস বলেছে, “জায়নবাদী শাসকদের সাম্প্রতিক নৃশংসতার কারণে গার্ডসের ও প্রতিরোধ অক্ষের কমান্ডারা নিহত হয়েছে, এর জবাবে ইরাকের কুর্দিস্তান অঞ্চলে মোসাদের অন্যতম প্রধান গোয়েন্দা সদরদপ্তর ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।”

রয়টার্স জানিয়েছে, তারা ইরানের গণমাধ্যমের এই প্রতিবেদন স্বতন্ত্রভাবে যাচাই করতে পারেনি। তাৎক্ষণিক মন্তব্য জানার জন্য ইসরায়েলের সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।ইরাকের কুর্দিস্তান অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রী মাসরুর বারজানি ইরবিলে চালানো হামলাকে ‘কুর্দি লোকজনের বিরুদ্ধে অপরাধ’ হিসেবে অভিহিত করে এর নিন্দা জানিয়েছেন।এক বিবৃতিতে কুর্দিস্তান সরকারের নিরাপত্তা কাউন্সিল জানিয়েছে, হামলায় অন্তত চার বেসামরিক নিহত ও ছয়জন আহত হয়েছে।গত মাসে সিরিয়ায় ইসরায়েলের হামলায় ইরানের গার্ডসের এক জ্যেষ্ঠ কমান্ডারসহ তিন সদস্য নিহত হয়েছিল। সিরিয়ায় তারা সামরিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছিলেন। ইরান এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার প্রত্যয় জানিয়েছিল।

গাজায় হামলার পাশাপাশি ইসরায়েল তাদের উত্তর সীমান্তে লেবাননের হিজবুল্লাহ গোষ্ঠীর সঙ্গেও গোলাগুলি বিনিময় করছে। লেবাননে ইসরায়েলের হামলায় ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহর ১৩০ জনের মতো যোদ্ধা নিহত হয়েছে। “শহীদদের শেষ রক্তবিন্দুর প্রতিশোধ না নেওয়া পর্যন্ত গার্ডসের আক্রমণাত্মক অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে আমরা আমাদের জাতিকে আশ্বস্ত করছি,” বিবৃতিতে বলেছে রেভল্যুশনারি গার্ডস। গার্ডস জানিয়েছে, তারা ইরাক ছাড়াও সিরিয়ায় বেশ কয়েকটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে ইসলামিক স্টেটসহ ইরানে ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালানো অপরাধীদের ধ্বংস করে দিয়েছে’।চলতি মাসের প্রথমদিকে ইরানের কেরমান শহরে রেভল্যুশনারি গার্ডসের প্রয়াত শীর্ষ কমান্ডার কাসেম সোলেমানির মাজারে দু’টি আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে প্রায় ১০০ জন নিহত হয়। আইএস এ হামলার দায় স্বীকার করেছিল।   যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইরবিল হামলার নিন্দা করে একে ‘বেপরোয়া’ বলে মন্তব্য করেছে। মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইরবিলে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো স্থাপনাকে লক্ষ্যস্থল করা হয়নি এবং হামলায় মার্কিন কোনো নাগরিক হতাহতও হয়নি।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য