Thursday, February 29, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদএকুয়েডরে সরাসরি সম্প্রচার চলাকালে টেলিভিশন স্টুডিওতে বন্দুকধারীদের হামলা

একুয়েডরে সরাসরি সম্প্রচার চলাকালে টেলিভিশন স্টুডিওতে বন্দুকধারীদের হামলা

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ১০ জানুয়ারি: দক্ষিণ আমেরিকার দেশ একুয়েডরে সরাসরি সম্প্রচার চলাকালে মুখোশধারী বন্দুকধারীরা একটি টেলিভিশন স্টুডিওতে জোর করে ঢুকে পড়ে আতঙ্কিত কর্মীদের হুমকি-ধামকি দিয়েছে।মঙ্গলবার দেশটির বন্দর শহর গুয়াইয়াকিলে ঘটনাটি ঘটেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন চ্যানেল টিসি-তে সম্প্রচার চলাকালে বন্দুকধারীরা কর্মীদের স্টুডিওর মেঝেতে বসিয়ে রাখে। এর কিছুক্ষণের মধ্যে সরাসরি সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়।পরে হামলাকারীদের স্টুডিও ছেড়ে চলে যেতে দেখা যায়। পুলিশ ১৩ বন্দুকধারীর সবাইকে গ্রেপ্তার করেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

দেশটির এক কুখ্যাত গুন্ডা গুয়াইয়াকিলের কারাগারে তার সেল থেকে ‘হাওয়া’ হয়ে যাওয়ার পর একুয়েডরজুড়ে ৬০ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। সোমবার থেকে জরুরি অবস্থা শুরু হয়েছে। তবে টেলিভিশন স্টেশনের ঘটনার সঙ্গে অপরাধী দল চোনেরোসের প্রধান ‘ফিতো’ নামে পরিচিতি অ্যাদোলফো ম্যাসিয়াস ভিয়ামারের অন্তর্ধানের কোনো সম্পর্ক আছে কি না, তা পরিষ্কার হয়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি।বন্দুকধারীরা টিসি-র স্টুডিওটি দখল করে নেওয়ার পর আরও প্রায় ২০ মিনিট ধরে লাইভ সম্প্রচার চলে। বন্দুকধারীরা সবাই মাঙ্কিটুপি পরা ও অধিকাংশই কালো পোশাকে ছিল। মেঝেতে বসা টেলিভিশন কর্মীরা তাদের গুলি না করার জন্য কাকুতি মিনতি করছিল।টেলিভিশনেই এসব দেখা যাচ্ছিল। গুলির শব্দ ও কর্মীদের ভয়ার্ত আর্তনাদের শব্দও শোনা যাচ্ছিল। আক্রমণকারীদের কেউ কেউ টেলিভিশন ক্যামেরার সামনে বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি করছিল। কেউ কেউ চিৎকার করে বলছিল, “নো পুলিশ।”

টিসি, গামাভিশন নামের আরেকটি রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম ও কয়েকটি রেডিও স্টেশনের সঙ্গে স্টুডিও শেয়ার করে অনুষ্ঠান পরিচালনা করে। হামলাকারীরা গামাভিশনের রিসিপশন দিয়ে স্টুডিওতে প্রবেশ করে। তারা কর্মীদের লাঞ্ছিত করে ও পেছনে ডিনামাইট স্থাপন করে আসে।পুলিশ যখন স্টুডিওটিতে অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে তখন টিসির সংবাদ সমন্বয়কারী ও সাংবাদিক লিওনার্দো ফ্লোরেস মোরেনো রয়টার্সকে বলেন, “আমরা একটি মিটিংয়ে ছিলাম। তারা আমাদের সতর্ক করার পর আমরা লুকিয়ে পড়তে পেরেছিলাম।”পুলিশ জানিয়েছে, অভিযান চালিয়ে তারা হামলাকারী সব বন্দুকধারীকে গ্রেপ্তার করেছে আর ঘটনাস্থল থেকে বন্দুক ও বিস্ফোরক জব্দ করেছে। সামাজিক মাধ্যমে পুলিশের করা পোস্টে কিছু তরুণকে পেছনে হাত বাঁধা অবস্থায় মেঝেতে উপুড় হয়ে পড়ে থাকাতে দেখা গেছে।এক্স প্ল্যাটফর্মে পুলিশ বলেছে, “সব জিম্মিকে মুক্ত করা হয়েছ। অপরাধীরা বিচারের মুখোমুখি হবে এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য শাস্তি পাবে।”

পরে সন্ধ্যাকালীন সংবাদ পরিবেশনের জন্য চ্যানেলটি ফের সম্প্রচার শুরু করে। খবর পাঠক জানান, অ্যাটর্নি জেনারেলের দপ্তরের কর্মকর্তারা তাদের স্টুডিওতে উপস্থিত হয়ে সাক্ষ্য প্রমাণ সংগ্রহ করছেন। ঘটনার সময় তাদের দু’জন কর্মী আহত হয় বলে চ্যানেলটি জানিয়েছে।একুয়েডর বিশ্বের শীর্ষ কলা রপ্তানিকারী দেশ। এর পাশাপাশি দেশটি তেল, কফি, কোকো, চিংড়ি ও মৎস্য পণ্য রপ্তানি করে। আন্দিজ পর্বতমালার এই দেশটিতে গত কিছুদিন ধরে ব্যাপক সহিসংতা চলছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে কোকেইন চোরাচালানের রুটগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে মাদক অপরাধী দলগুলোর মধ্যে লড়াই শুরু হয়েছে। এসব অপরাধী দলের মধ্যে স্থানীয় ও বিদেশি উভয় ধরনের গ্যাং রয়েছে। এই নিয়ে দেশটির কারাগারগুলোর মধ্যেও সহিংসতা চলছে।মঙ্গলবারের প্রথম কয়েক ঘণ্টায় দেশটির রিওবাম্বা শহরে দণ্ডিত আরেক মাদক চোরাচালানের হোতাসহ প্রায় ৪০ জন বন্দি কারাগার ভেঙে পালিয়ে যায়। আরেক ঘটনায় বন্দুকের মুখে অন্তত সাত পুলিশ কর্মকর্তাকে অপহরণ করা হয়েছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য