Friday, August 19, 2022
বাড়িরাজ্যমুখ্যমন্ত্রীর পদের মর্যাদার লড়াই মানিকের, পাল্লা দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে প্রচারে বিরোধীরা

মুখ্যমন্ত্রীর পদের মর্যাদার লড়াই মানিকের, পাল্লা দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে প্রচারে বিরোধীরা

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৩ জুন : আসন্ন উপনির্বাচনে চারটি আসনের মধ্যে পাখির চোখ ৮ নং টাউন বড়দোয়ালী এবং ৬ নং আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্র। নির্বাচনের যত দিনক্ষণ এগিয়ে আসছে প্রচারে ঢেউ তুলছেন দুটি বিধানসভা কেন্দ্রের শাসক-বিরোধী উভয় দলের প্রার্থীরা। শাসক দল বিজেপির পক্ষ থেকে যে দুইজন প্রার্থী দুটি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লড়তে চলেছেন, তারা শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়।

 তারা দীর্ঘ সময় চিকিৎসা পরিষেবার সাথে জড়িত ছিলেন। বর্তমানে বিজেপি দলের পক্ষ থেকে টিকিট পেয়ে লড়তে চলেছেন দুই প্রার্থী ডাঃ অশোক সিনহা এবং ডাঃ মানিক সাহা। কিন্তু শাসক দলের দুই প্রার্থীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে বিরোধীদলের পক্ষ থেকে কংগ্রেস নেতৃত্ব হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন। তবে বড়দোয়ালী বিধানসভা কেন্দ্রের শাসক দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি ডাঃ মানিক সাহার কাছে এই কেন্দ্রটি অত্যন্ত চ্যালেঞ্জের। কারণ এই কেন্দ্র থেকে দীর্ঘ সময়ের বিধায়ক ছিলেন আশীষ কুমার সাহা। ভোট আসতে নিজের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আশীষ কুমার সাহা প্রচারে ঝড় তুলেছেন। মুখ্যমন্ত্রী তথা মনোনীত প্রার্থী ডাঃ মানিক সাহাকে পরাজিত করতে আশিস কুমার সাহা বেশ তৎপর। কিন্তু মানিক সাহা যদি জয়ী হতে না পারেন তাহলে খোয়াতে হবে মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে।

তাই মুখ্যমন্ত্রীর আসনে ধরে রাখতে মর্যাদার লড়াই মানিক সাহার। তাই শ্রী সাহা দুয়ারে দুয়ারে প্রচার করে চলেছেন। এইদিন তিনি বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রের অধীন বিবেকানন্দ স্কুল সংলগ্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচার করেন। বিজেপি প্রার্থী ডাক্তার মানিক সাহার সাথে ছিলেন প্রদেশ বিজেপির সহসভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য, কিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি জহর সাহা সহ অন্যান্যরা। বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচারে গিয়ে গণদেবতাদের নিকট ভোট ভিক্ষা করেন বিজেপি প্রার্থী ডাক্তার মানিক সাহা। ভোট প্রচারে বেরিয়ে বিজেপি প্রার্থী ডাক্তার মানিক সাহা এক সাক্ষাৎকারে জানান বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রে ৫৬ টি বুথ রয়েছে। তারমধ্যে ৪৬ টি বুথে ইতিমধ্যে ভোট প্রচার করেছেন তিনি। প্রতিটি বুথের মানুষ ব্যাপক সারা দিচ্ছে। মানুষ বুঝতে পেরেছে অন্য দলের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে কোন লাভ হবে না। পাহারে তিপ্রা মথার সুপ্রিমোর কুশপুত্তলিকা পোরানোর বিষয়ে সাংবাদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান এই ধরনের ঘটনা কাম্য নয়। বিজেপি এই ধরনের ঘটনায় বিশ্বাসী নয়। কোন জায়গায় যেন কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তাঁর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার কোন কিছুতেই অবনতি হবে না। তিনি এইদিন ফের একবার দাবি করেন ২০২৩ সালের নির্বাচনে তিনিই মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হবেন।

৮ নং টাউন বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনকে সামনে রেখে বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচারে ঝড় তুললেন কংগ্রেস প্রার্থী আশীষ কুমার সাহা। তিনি বলেন, ত্রাস মুক্ত পরিবেশ চাইছে মানুষ। এই পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে বিজেপি সরকারকে শাসন ক্ষমতা থেকে টেনে নামাতে হবে। গনতান্ত্রিক মানুষ বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। সেদিকেই গুরুত্ব দিয়ে আগামী ২৩ জুন ভোট দান করবে জনগণ বলে জানান তিনি।

প্রচারে পিছিয়ে নেই বড়দোয়ালী বিধানসভা কেন্দ্রের ফরওয়ার্ড ব্লকের প্রার্থী রঘুনাথ সরকার। তিনি জয় নিয়ে অনেকটাই আশাবাদী। প্রচারের কাজ ৬০ শতাংশ করে নিয়েছেন। মানুষ ভালো সাড়া দিচ্ছে। মানুষ চাইছে গণতান্ত্রিক পরিবেশ পুনরুদ্ধার করতে। কারণ আইনশৃংখলা বলতে কোন কিছু নেই। রক্তদানের মতো সামাজিক কর্মসূচিতেও উদ্যোক্তারা আক্রান্ত হচ্ছে। তাই মানুষ চাইছে ২৩ জুন ভোটকেন্দ্রে গিয়ে সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে। তবে শেষ হাসি কে হাসবে সেটা ২৬ জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য