Sunday, June 23, 2024
বাড়িরাজ্যশ্রম দপ্তর ঘেরাও করার পর শ্রমিকদের মিললো মজুরি

শ্রম দপ্তর ঘেরাও করার পর শ্রমিকদের মিললো মজুরি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৫ মে : গোটা মরশুম কাজ করার পর বহিঃরাজ্যের শ্রমিকদের মজুরি মিটিয়ে দিতে অস্বীকার ইট ভাট্টা মালিকের। পাল্টা শ্রমিকদের দেওয়া হয় হুমকি। এমনই গুরুতর অভিযোগ উঠল বিলোনিয়া মহকুমার উত্তর সোনাইছড়ি এসএসবি ইট ভাট্টার মালিকের বিরুদ্ধে। শেষ পর্যন্ত স্থানীয় সাংবাদিকদের সহযোগিতা ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে শ্রমিকদের মজুরি মিটিয়ে দিল ইট ভাট্টার মালিক।

জানা যায়, বিলোনিয়া মহকুমার উত্তর সোনাইছড়ি এলাকায় রয়েছে একাধিক ইট ভাট্টা। তার মধ্যে একটি হল এসএসবি ইট ভাট্টা। বিহার থেকে প্রতি বছর শ্রমিকরা এই ইট ভাট্টায় কাজ করতে আসে। গোটা মরশুম কাজ করার পর মালিকের কাছ থেকে মজুরির টাকা নিয়ে তারা বিহারে নিজ বাড়িতে ফিরে যায়। এই মরশুমেও বিহারের শ্রমিকরা এসএসবি ইট ভাট্টায় কাজ করতে আসে। গোটা মরশুম কাজ করার পর শ্রমিকরা নিজ বাড়িতে ফিরে যাওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করে। ইট ভাট্টার মালিক শ্রমিকদের রেলের টিকিটও কেটে দেন। শনিবার শ্রমিকরা রেলে করে বিহারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার কথা ছিল। শ্রমিকরা সবকিছু গুছিয়ে নেওয়ার পর মালিক পক্ষ শ্রমিকদের বকেয়া মজুরির টাকা দিতে অস্বীকার করে। এমনকি শ্রমিকদের পাল্টা হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। শ্রমিকদের মুখ থেকে একবার শুনে নিন মালিক পক্ষ তাদেরকে ঠিক কি বলেছে।

পরবর্তী সময় শ্রমিকরা বাধ্য হয়ে দক্ষিন জেলা শ্রম দপ্তরের কার্যালয়ে ছুটে যায়। কিন্তু জেলা শ্রম আধিকারিক কুম্ভ নিদ্রায় আচ্ছন ছিলেন। রাতভর শ্রমিকরা জেলা শ্রম আধিকারিকের কার্যালয়ে অবস্থান করেন। রাতে তাদের খাবারের জন্য জুটেনি কোন কিছু। শেষ পর্যন্ত রবিবার স্থানীয় সাংবাদিকদের নজরে আসে বিষয়টি। সাথে সাথে স্থানীয় সাংবাদিকরা বিষয়টি মহকুমা প্রশাসনের নজরে নিয়ে যান। দ্রুত মহকুমা প্রশাসনের ডিসিএম অরিজিৎ পাল ছুটে যান জেলা শ্রম আধিকারিকের কার্যালয়ে। সেখানে জেলা শ্রম আধিকারিক, ইট ভাট্টার মালিক পক্ষ ও ডিসিএম-এর উপস্থিতিতে আলোচনা সভা হয়। আলোচনার পর মালিক পক্ষ বাধ্য হয়ে শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি মিটিয়ে দেন। বকেয়া মজুরি পেয়ে খুশি শ্রমিকরা। চাপে পরে বহিঃরাজ্যের শ্রমিকদের মজুরি মিটিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি রেল স্টেশনে পৌঁছানোর জন্য শ্রমিকদের গাড়ির ব্যবস্থা করে দেয় মালিক পক্ষ। বকেয়া মজুরি পাওয়ার পর শ্রমিকরা বিহারে নিজ বাড়িতে যাওয়ার জন্য রেল স্টেশনের উদ্দেশ্যে গাড়িতে করে রওয়ানা হয়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য