Monday, March 4, 2024
বাড়িরাজ্যনাম না উল্লেখ করে রাহুল গান্ধীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন মুখ্যমন্ত্রী

নাম না উল্লেখ করে রাহুল গান্ধীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৮ ফেব্রুয়ারি : এক ভদ্রলোক দাড়ি বাড়িয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। উনার কি হবে জানা নেই। এ ধরনের লোক থাকলে নিশ্চিত নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সরকার পুনরায় প্রতিষ্ঠিত হবে। আর নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সরকার প্রতিষ্ঠিত হওয়াই দরকার। কারণ ২০১৪ সালের আগে সকলের চিন্তা ছিল দেশ থাকবে কিনা।

বর্তমানে গোটা দেশ এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারতের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ত্রিপুরা ন্যায্য মূল্যের দোকান পরিচালক সমিতির ২৬ তম রাজ্য সম্মেলনে নাম উল্লেখ না করে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে কটাক্ষ করে এই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহা। আগরতলা অরুন্ধতী নগর পঞ্চায়েতিরাজ ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে বক্তব্য রেখে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালের আগেও ত্রিপুরা আতংক ছিল। কারণ তখন ভোট মানেই ছিল আতঙ্ক। বর্তমানে শান্তি সম্প্রীতি বজায় রয়েছে। বিগত উপনির্বাচনে লক্ষ্য করা গেছে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হয়েছে। মানুষ ভারতীয় জনতা পার্টিকে সমর্থন করেছে। কারণ এই সরকারের প্রতি মানুষের আস্থা জন্মেছে। আমার সরকার ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে মানুষের মনে।

 এদিন মুখ্যমন্ত্রী সিপিআইএম -কে তুলোধুনো করে একথা বলেন। মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, যেখানে কমিউনিস্ট ছিল সেখানে সমস্যা জন্মে ছিল। উদাহরণস্বরূপ ত্রিপুরা এবং পশ্চিমবঙ্গের কথা উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী এইদিন রেশন ডিলারদের উদ্দেশ্যে বলেন, কোন এক সময় রাজ্যে রেশন শপে দুর্নীতির কথা শোনা যেত। এখন ডিলারদের চেহারা দেখে এগুলো মনে হয় না। কিন্তু তাদের সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায় সেদিকে নজর দেবে সরকার। তাহলে পুনরায় আর সেই পথ অবলম্বন করবে না ডিলাররা। এমনটাই বললেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ২০১৮ সালে সরকার পরিবর্তন হওয়ার পর গত ছয় বছরের গণ বন্টন ব্যবস্থার উপর বিশেষ পরিবর্তন আনা হয়েছে। রাজ্যে ১২৭ টি খাদ্য গুদাম রয়েছে। বর্তমান সরকার আসার পর বছরে দুবার কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত সরকার ৩৬৭ কোটি টাকা কৃষকদের দিয়েছে। সরকার এক দেশ এক রেশন কার্ড চালু করেছে। ফলে পরিযায়ী শ্রমিকদের সুবিধা হচ্ছে। ৭০০০ মেট্রিক টনের ১১ টি খাদ্য গুদাম করা হয়েছে। ২৫২ টি নতুন ন্যায্য মূল্যের দোকান খোলা হয়েছে। ২৬ জন মহিলা ক্লিনার খাদ্য গুদামে নিয়োগ করা হয়েছে। তাদের মজুরি দেড়শ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০৬ টাকা করা হয়েছে। তবে রেশন ডিলারদের মনে রাখতে হবে রেশন শপের চেহারা সরকারের চেহারা। রেশন শপের ডিলাররা সঠিকভাবে কাজ করলে সরকারের নাম হবে বলে জানান মু্খ্যমন্ত্রী। আয়োজিত অনুষ্ঠানে এই দিনে এছাড়া উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী, আগরতলা পুর নিগমের মেয়র দীপক মজুমদার, সমাজসেবী রাজীব ভট্টাচার্য সহ অন্যান্যরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য