Monday, March 4, 2024
বাড়িরাজ্যজোর জবরদস্তি দুই মহিলার কাছ থেকে ভুয়া স্বাক্ষর নিয়ে অস্থায়ী চাকরি থেকে...

জোর জবরদস্তি দুই মহিলার কাছ থেকে ভুয়া স্বাক্ষর নিয়ে অস্থায়ী চাকরি থেকে বরখাস্ত করার অভিযোগে পুলিশের দ্বারস্থ

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৪ জানুয়ারি : সুশাসনের ছোঁয়ার বাইরে বিরোধী দলের গরিব মানুষরা। মন্ত্রী ও শাসক দলের বিধায়করা সুশাসনের নাম করে মঞ্চে দাঁড়িয়ে যতটাই গলা উঁচিয়ে দাবি করার চেষ্টা করুক না কেন আবারও অভিযোগ উঠেছে কুশাসনের।

অভিযোগ বিরোধী দলের সমর্থক হওয়ায় কাজ থেকে বহিষ্কার ও হুমকি দেওয়া হয়েছে। ন্যায় বিচারের দাবি জানিয়ে সোনামুড়া থানার দারস্থ হল দুই মহিলা। জানা যায় দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে সোনামুড়া মহকুমার বাতাদোলা স্কুলের প্রাত বিভাগে মিড ডে মিল রান্না করে আসছেন স্বপ্না নমঃ ও মাম্পি নমঃ। তাদের অভিযোগ দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে তারা মিড ডে মিল রান্না করে আসছেন।

কিন্তু বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠার পর স্থানীয় কয়েকজন শাসক দলের নেতা তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে কাজ ছেড়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু তারা কাজ ছাড়তে অসম্মতি প্রকাশ করার পর তাদেরকে জোর পূর্বক কাগজে সাক্ষর করিয়ে নেওয়া হয়। এবং তাদেরকে কাজ থেকে বের করে দেওয়া হয়। তারপর নতুন করে লোক দেওয়া হয় মিড ডে মিল রান্না করার জন্য। কিন্তু দীর্ঘ ৫ মাস ধরে বেতন না পাওয়ার পর তারাও কাজ বন্ধ করে দেয়। দুই মাস ধরে স্কুলে মিড ডে মিল বন্ধ রয়েছে। স্কুলের পড়ুয়াদের বিস্কুট দেওয়া হচ্ছে। তাই তারা ন্যায় বিচারের দাবি জানিয়ে সোনামুড়া থানার দ্বারস্থ হয়। তাদের দাবি তাদের কাজ তাদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হোক। কারণ তাদের কাছ থেকে জোর জবরদস্তি ভুয়া স্বাক্ষর নিয়ে চাকরি থেকে তাদের তাড়িয়ে দেওয়া চেষ্টা চলছে। এবং এর সাথে জড়িত এলাকার প্রধান থেকে শুরু করে মেম্বার পর্যন্ত অনেকে। যারা জড়িত তাদের নাম বিষ্ণু বিশ্বাস, সবী দত্ত, রাকেশ দত্ত, সত্যন রায়। তারা দীর্ঘ ১৬ বছর যাবত স্কুলে তারা চাকরি করে আসছেন। স্বামী অসুস্থ ঘরে রয়েছে সন্তান। এখন দেখার প্রশাসন কি ব্যবস্থা গ্রহণ করে। তবে এই অভিযোগের পর স্পষ্ট হয়ে উঠেছে দলমত নির্বিশেষে সুশাসনের ছোঁয়া লাগছে না। সুশাসন শুধু গেরুয়া রং বেছে হচ্ছে। নাহলে এই ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করার মত প্রমাণ পত্র নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এতক্ষণে জন সম্মুখে আসতো।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য