Monday, March 4, 2024
বাড়িরাজ্যজনজাতিদের উন্নয়নে বদ্ধপরিকর সরকার : প্রনজিৎ সিংহ রায়

জনজাতিদের উন্নয়নে বদ্ধপরিকর সরকার : প্রনজিৎ সিংহ রায়

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৯ জানুয়ারি : ১৯ জানুয়ারি তথা শুক্রবার ৪৬ তম রাজ্যভিত্তিক ককবরক দিবস উপলক্ষে আগরতলা রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনের সামনে থেকে শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী প্রণজিৎ সিংহ রায়, বিধায়ক রামপদ জমাতিয়া, ককবরক ভাষার চেয়ারম্যান অতুল দেববর্মা সহ অন্যান্যরা।

মন্ত্রী প্রণজিৎ সিংহ রায় বলেন, ১৯৭৯ সালে ১৯ জানুয়ারি এই ককবরক ভাষা স্বীকৃতি লাভ করে। তারপর থেকে প্রতি বছর এই দিনটি যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালন করা হয়। দিনটি রাজ্যবাসী কাছে অত্যন্ত গৌরবময় দিন। রাজ্যের জনসংখ্যা সমানুপাতে ২৫ শতাংশ মানুষ রয়েছে যারা ককবরক ভাষায় কথা বলেন। এবং তাদের মাতৃভাষাও ককবরক।

ককবরক ভাষার মানুষের জন্য রাজ্য সরকার শিক্ষা থেকে শুরু করে সমস্ত ক্ষেত্রে অগ্রাধিকারের দৃষ্টিতে দেখছে। পাশাপাশি আগামী দিনে কিভাবে ভাষাকে আরো বেশি শক্তিশালী করা যায় সেদিকে গুরুত্ব দিয়ে চলেছে সরকার বলে জানান মন্ত্রী। পরবর্তী সময়ে রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানেও সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মন্ত্রী বলেন, জনজাতিদের কল্যাণের জন্য বিভিন্ন যোজনা চালু করেছেন। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জনজাতি গৌরব দিবসের ঘোষণা দিয়েছেন। এর সাথে জনজাতির অংশের মানুষ যাতে শিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পায় ও স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারে তার জন্য বিভিন্ন প্রকল্প চালু করেছেন।

একইভাবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহাও জনজাতিদের কল্যাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মার্গ দর্শনে চলছে। বিশেষ করে বাজেট বিগত দিন থেকে এ বছর জনজাতিদের কল্যাণে বৃদ্ধি করা হয়েছে। ৩৯ শতাংশ অর্থ বাজেট থেকে জনজাতিদের উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি আরো বলেন ভাষার পাশাপাশি জনজাতিদের অন্যান্য দিকে উন্নয়ন করতে সরকার বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে চলেছে। ২০২৪-২৫ সালে আরো কুড়িটি ককবরক ভাষা স্কুল বাড়ানো হবে। সরকারের মূল উদ্দেশ্যই হল রাজ্যের সব অংশের মানুষের মত যাতে জনজাতি অংশের মানুষও সুযোগ সুবিধা পায়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য