Tuesday, July 16, 2024
বাড়িরাজ্যশহরে বেড়েছে সিদ্ধিদাতার আরাধনা, মন্ডপ এবং মূর্তি পাড়ায় চলছে শেষ তুলির টান

শহরে বেড়েছে সিদ্ধিদাতার আরাধনা, মন্ডপ এবং মূর্তি পাড়ায় চলছে শেষ তুলির টান

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৬ সেপ্টেম্বর : বাণিজ্য নগরী মুম্বাইয়ের সাংস্কৃতি বেশ কয়েক বছর ধরেই ত্রিপুরায় আছড়ে পড়েছে। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন আপনারা। মুম্বাইতে গণপতি বাপ্পা মারিয়া এই ধ্বনিতে আমরা দেখতাম আগে গণপতির উৎসবে। কিন্তু আজ বেশ কয়েক বছর ধরেই পর্বত্র নন্দিনী ত্রিপুরায় গণেশ পূজার রম রমরমা উৎসবেরও সংকরায়ন হচ্ছে। আমরা নতুন নতুন উৎসব সংস্কৃতিতে নিজেদেরকে জড়িয়ে নিচ্ছি, তবে কিছু সংস্কৃতি বা উৎসব এভাবে বাড়ছে, তার পাশাপাশি কিন্তু আমরা লক্ষ্য যায় বিশ্বকর্মা পূজার হিরেকটা কিন্তু অনেকটাই কমেছে। সেই জায়গায় বিশ্বকর্মার স্থান করে নিয়েছে গণেশ পূজা।

গণেশ কেন্দ্র করে টানা তিন চার দিন চলে উৎসবের ভিড়। গনেশ চতুর্থী এখন ত্রিপুরার একটি অন্যতম বড় উৎসব। দুর্গাপূজার প্রাক্কালে উৎসব কিন্তু হয়ে থাকে এই গণেশ চতুর্থীর মাধ্যমে একদিকে যেমন সাংস্কৃতিক আয়োজন। অন্যদিকে বাণিজ্যিক আদান ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ইত্যাদি কেন্দ্র করে স্মার্ট নগরীতে পরিণত হচ্ছে আগরতলা। আগরতলা শহরের রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবন সংলগ্ন এলাকা এবং মোটর স্ট্যান্ড সহ বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে প্রস্তুতি এক প্রকারভাবে চূড়ান্ত। দেব শিল্পী এবং গণেশ চতুর্থীর মণ্ডপে শেষ তুলির প্রান দেওয়া হচ্ছে। ব্যাপক জাঁকজমক ভাবে অনুষ্ঠিত হবে দেব শিল্পী এবং গণেশ চতুর্থীর আরাধনা। আলোকসজ্জায় সেজে উঠছে শহরের মণ্ডপ গুলি। বিগত বছরগুলি থেকে এ বছর শহরে আরো বেশি ভিড় হবে বলে মনে করছে অনেকে। এক প্রকার ভাবে সার্বজনীন দুর্গাপূজাকে পাল্লা দেবে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে গণেশ চতুর্থী। দর্শনার্থীরা সন্ধ্যা সময় মন্ডপে মন্ডপে গিয়ে ধনসম্পত্তি বাড়ানো পাশাপাশি পরিবারের মঙ্গল কামনা করেন। এক প্রকার ভাবে বলতে গেলে এবারও গণেশ পূজা বিগত বছর থেকে অনেক বেড়েছে। তবে যাই হোক না কেন শহরের জুড়ে সিদ্ধিদাতা আনাগোনা বেড়েছে। এবং শুধুমাত্র শহর নয় অলিগলির বনেদি ক্লাবগুলিতে এবং মানুষের মধ্যে চাঁদা সংগ্রহ করে ছোট পরিসরে হলেও সিদ্ধিদাতার পূজায় ব্রতী হয়েছে মানুষ। শহরে বের হলে কানে ভেসে আসছে গণপতির গান। আকাশে বাতাসে পুজো আনন্দটা যেন এবার গণপতির আরাধনা থেকেই শুরু হবে। মুক্তি পাড়াতেও ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা। সব মিলিয়ে এক প্রকার ভাবে পুজোর আনন্দটা যেন ইতিমধ্যেই দোলা দিয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য