Saturday, July 2, 2022
বাড়িরাজ্যসংক্রমণ নিয়ে প্রশাসনের অভিযান ময়দানে

সংক্রমণ নিয়ে প্রশাসনের অভিযান ময়দানে

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১১ জানুয়ারি : শহর আগরতলায় করোনা সংক্রমণ দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে। আর এই সংক্রমণ রোধে প্রশাসনিক ভাবে জারি করা হয়েছে একাধিক বিধি নিষেধ। সোমবার থেকে লাগু হয়েছে নৈশ কারফিউ। মাস্ক পরিধান, দূরত্ব বজায় রাখা এবং ভিড় এড়িয়ে চলার জন্য বার বার বলা হচ্ছে। মাস্ক পরিধানে একটা অংশের মধ্যে এরপরেও রয়েছে উদাসীনতা।

 আর তাদের কারনের ঝুঁকির মুখে পড়তে শহরের বাসিন্দাদের। মঙ্গলবার সদর মহকুমা শাসক অসীম সাহার নেতৃত্বে মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের সদস্যদের নিয়ে শহরের বাজার গুলি পরিদর্শন করেন। রাজধানীর লেইক চৌমুহনি বাজার ঘুরে দেখেন সদর মহকুমা শাসক সহ মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের সদস্যরা। যথাযথ ভাবে ক্রেতা ও বিক্রেতা মাস্ক পরিধান করছেন কিনা এবং দূরত্ব বজায় রাখতে কি ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে তা খতিয়ে দেখেন তারা। এদিন বাজারে ক্রেতাদের জন্য নির্ধারিত জায়গা চিহ্নিত করতে মার্কিং করে দেওয়া হয়। বাজারে বহু মানুষ আসেন। সেই ক্ষেত্রে দোকানদার ও তাদের পরিবারের সুরক্ষার জন্য মাস্ক পরিধান আবশ্যক। অন্যদিকে ক্রেতাদেরও মাস্ক পরিধান বাধ্যতা মূলক। সব মিলিয়ে এই নিয়ম মেনে চলার আহ্বান জানান সদর মহকুমা শাসক। এদিকে বাজার কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোন ক্রেতা মাস্ক না পরিধান করে ব্যবসা করলে তার দোকান দুই দিনের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হবে। এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সদর মহকুমা শাসক অসীম সাহা। এদিন মাস্ক পরিধান না করার জন্য জরিমানা আদায় করা হয়।

এদিকে পশ্চিম থানার সামনে সদর মহকুমা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার সকাল থেকে মাস্ক এনফোর্সমেন্ট চালানো হয়। এদিন মাস্ক বিহীন ভাবে যারা রাস্তায় বেরিয়েছেন তাদের ২০০ টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়। সচতেনতা মূলক ভাবে তাদের সতর্ক করা হয়। শহরের অধিকাংশ মানুষ মাস্ক পড়ার ক্ষেত্রে জত্নবান হলেও এখনো একটা অংশ মাস্ক পরিধান করতে চাইছে না। তার উপর তাদের রয়েছে নানান অজুহাত। সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারী ভাবে মাস্ক পরিধান বাধ্যতা মূলক করার পরেও এই একাংশের কারনে ঝুঁকি ক্রমশ বাড়ছে শহর আগরতলায়। সংক্রমণের শীর্ষে রয়েছে পশ্চিম জেলার আগরতলা পুর নিগম এলাকা। ডিসিএম অমিত কুমার দাস জানান ধারাবাহিক ভাবে মাস্ক  এনফোর্সমেন্ট চালানো হচ্ছে। সকাল বেলায় ১৫ জনকে মাস্ক পরিধান না করার জন্য জরিমানা করা হয়েছে ২০০ টাকা করে। ধারাবাহিক ভাবে অন্যান্য স্থানেও এই অভিযান চালাচ্ছে প্রশাসন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য