Wednesday, June 19, 2024
বাড়িরাজ্যকতিপয় সরকারি কর্মচারীদের ভূমিকা তীব্র নিন্দা জানান মন্ত্রী সুধাংশু দাস

কতিপয় সরকারি কর্মচারীদের ভূমিকা তীব্র নিন্দা জানান মন্ত্রী সুধাংশু দাস

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১ মে :  যারা ইতিহাস ভুলে যায় তারা ইতিহাস তৈরি করতে পারে না। তাই সংবিধান প্রণেতা ডঃ বি আর আম্বেদকরের কৃতিত্ব ভুলে গেলে চলবে না। বেঁচে আছে তাঁর দিশা। এবং বেঁচে আছে তাঁর দেওয়া ভারতবর্ষের সংবিধান। এগুলি পাথেয় করে আগামী দিনে সকলকে এগিয়ে যেতে হবে। তার এই সর্ববৃহৎ গনতান্ত্রিক দেশের সংবিধানের উপর ভিত্তি করে ভারতবর্ষ পরিচালিত হচ্ছে এবং বিশ্বের দরবারে অনেক সম্মানের সাথে এগিয়ে যাচ্ছে। তাই দেশে যারা মহান ব্যক্তিদের কৃতিত্ব ছাত্র-ছাত্রীদের জানা অত্যন্ত জরুরি।

 সোমবার রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে ডঃ বি আর আম্বেদকরের ১৩৩ তম জন্ম জয়ন্তী উদযাপনের সপ্তাহ ব্যাপী অনুষ্ঠানে সমাপ্তি ও আলোচনাচক্র অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখে একথা বললেন মন্ত্রী সুধাংশু দাস। আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি বক্তব্য রেখে আরও বলেন দেশ স্বাধীন হওয়ার আগে দীর্ঘদিন যারা দেশের বাইরে থেকে এসে দেশবাসীকে শাসন করার চেষ্টা করেছিলেন। এবং তাদের নীতি একটাই ছিল ডিভাইড অ্যান্ড রুল। আর সেই নীতি এখনো অনুসরণ করে আছে দেশে কিছু রাজনৈতিক দল। এটা দেশের জন্য দুর্ভাগ্য, দেশ স্বাধীন হওয়ার ৭৫ বছর পরেও কিছু রাজনৈতিক দল দেশবাসীকে জাতপাত নিয়ে বিভক্ত করে রাজত্ব করতে চায়। আরো বলেন বিভিন্ন অফিসে কতিপয় সরকারি কর্মীরা নিয়মিত উপস্থিত থাকেন না।

তারা ভুয়া স্বাক্ষর দিয়ে চলেছে। তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে সেটা একটা দিক। কিন্তু অপরদিকে তাদের যতক্ষণ না জনগণের জন্য কাজ করার মানসিকতা তৈরি হবে এবং জনগণের করের টাকা দিয়ে বেতন গোনার কথা মাথায় আসবে না ততক্ষণ ডঃ বি আর আম্বেদকরের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা এবং আলোচনা করা বিফলতা ছাড়া আর কিছু নয় বলে জানান তিনি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী আরো বলেন তারা আগামী দিনে রাজ্যকে এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বড় দায়িত্ব পালন করবে। আয়োজিত অনুষ্ঠানে এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মেয়র দীপক মজুমদার, প্রাক্তন বিধায়ক রেবতী মোহন দাস, বিরায়িকা মিনারানী সরকার সহ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তার তপশিলি জাতি কল্যাণ দপ্তরের আধিকারিকেরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য